ঢাকা, শুক্রবার, ৬ বৈশাখ ১৪৩১, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ০৯ শাওয়াল ১৪৪৫

আন্তর্জাতিক

আমাজনে ব্রিটিশ সাংবাদিকের লাশ পাওয়ার খবর অস্বীকার করেছে পুলিশ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১১১ ঘণ্টা, জুন ১৩, ২০২২
আমাজনে ব্রিটিশ সাংবাদিকের লাশ পাওয়ার খবর অস্বীকার করেছে পুলিশ

আমাজন বনে নিখোঁজ ব্রিটিশ সাংবাদিক ও আদিবাসী বিশেষজ্ঞের মৃতদেহ পাওয়া খবর অস্বীকার করেছে ব্রাজিলের পুলিশ।

সোমবার (১৩ জুন) ব্রাজিলের স্থানীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে, ব্রিটিশ সাংবাদিক ডম ফিলিপস ও আদিবাসী বিশেষজ্ঞ ব্রুনো পেরেইরার সন্ধানে গিয়ে দুটি মৃতদেহ পাওয়া গেছে।

পুলিশ বলছে, এখন পর্যন্ত তারা এই জুটির ব্যক্তিগত জিনিসপত্রের পাশাপাশি ‘জৈবিক উপাদান’ পরীক্ষা করা হচ্ছে।

সাংবাদিক ডম ফিলিপস ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম গার্ডিয়ান এবং মার্কিন সংবাদমাধ্যম ওয়াশিংটন পোস্টের সাবেক কর্মী। ব্রুনো পেরেইরা ফেডারেল আদিবাসী সংস্থা ফুনাইয়ের কর্মকর্তা। গত ৫ জুন তারা নিখোঁজ হন। নিখোঁজের ঘটনায় তদন্ত শুরু করে দেশটির পুলিশ।

ওই অঞ্চলের আদিবাসী সমিতি ইউনিভাজা প্রথমে কর্তৃপক্ষকে এ দুজনের নিখোঁজ হওয়ার বিষয়ে সতর্ক করেছিল।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়, ভ্যালে ডো জাভারি থেকে নৌকায় আতালিয়া দো নর্তে শহরের উদ্দেশ্যে রওনা হন তারা। কিন্তু মাঝপথে তাদের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়। তাদের বহনকারী নৌকায় রক্তের দাগ পাওয়া যায়। তাদের একটি গাছের সঙ্গে বাঁধা অবস্থায় পাওয়া গেছে। অন্ধকার থাকায় এখনো মরদেহ শনাক্ত করা হয়নি।

স্থানীয় গোষ্ঠীগুলি বলছে, উভয় ব্যক্তিই এই অঞ্চলে আদিবাসীদের অধিকার নিয়ে করার জন্য হুমকি সম্মুখীন হয়েছিলেন। ডম ফিলিপস এবং ব্রুনো পেরেইরা ওই অঞ্চল সম্পর্কে তাদের গভীর জ্ঞানের জন্য পরিচিত ছিলেন।

ফিলিপস এক দশকেরও বেশি সময় ধরে ব্রাজিলে বসবাস করছিলেন এবং গার্ডিয়ান সংবাদপত্রের দীর্ঘ সময়ের কর্মী ছিলেন। তিনি একটি বই নিয়ে গবেষণা করছেন। অন্যদিকে ব্রুনো পেরেইরা আমাজনে বিচ্ছিন্ন উপজাতিদের বিষয়ে বিশেষজ্ঞ ছিলেন।

এই জুটি নিখোঁজ হওয়ার কয়েক দিন আগে আদিবাসী গোষ্ঠীর সদস্যরা জানান, পেরেইরাকে এলাকায় অবৈধ মাছ ধরার বিরুদ্ধে প্রচারণা চালানোর জন্য হুমকি দেওয়া হয়েছিল।

যে অঞ্চলে তারা নিখোঁজ হয়েছেন সেখানে ২০টিরও বেশি গোষ্ঠীর প্রায় ৬৩০০  আদিবাসীদের বাসস্থান। এলাকাটি আমাজোনাস রাজ্যের পশ্চিমে পেরুর সীমান্তের কাছে অবস্থিত।

সূত্র: বিবিসি

বাংলাদেশ সময়: ২১০৫ ঘণ্টা, জুন ১৩, ২০২২
এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।