ঢাকা, শনিবার, ৯ আশ্বিন ১৪২৮, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৬ সফর ১৪৪৩

আন্তর্জাতিক

আফগানিস্তানকে স্থিতিশীল করতে পাকিস্তানের সহায়তা চায় চীন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১৩২ ঘণ্টা, জুলাই ১৭, ২০২১
আফগানিস্তানকে স্থিতিশীল করতে পাকিস্তানের সহায়তা চায় চীন

মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের পর আফগানিস্তানে নিরাপত্তা ঝুঁকি নিয়ন্ত্রণে সহযোগিতা বাড়ানোর জন্য পাকিস্তানকে আহ্বান জানিয়েছে চীন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই আন্তর্জাতিক মঞ্চে বেইজিংয়ের অন্যতম ঘনিষ্ঠ অংশীদার ইসলামাবাদের সাথে কূটনৈতিক সম্পর্ক প্রতিষ্ঠার ৭০ বছর পূর্তি উপলক্ষে এক ভাষণে পাকিস্তানকে কোভিড-১৯-এর বিরুদ্ধে লড়াই করতে এবং তার অর্থনীতিকে সঠিক পথে ফিরিয়ে আনতে চীনের অঙ্গীকারের কথাও তুলে ধরেন।

তিনি বলেন, চীন ও পাকিস্তানকে একসাথে আঞ্চলিক শান্তি রক্ষা করতে হবে। আফগানিস্তানের সমস্যাগুলি ব্যবহারিক চ্যালেঞ্জ যা চীন এবং পাকিস্তান উভয়ই মুখোমুখি হয়।  

সরকারি বিবৃতিতে ওয়াং বলেন, পাকিস্তানের সাথে চীনও আলোচনার মাধ্যমে রাজনৈতিক সমাধানের জন্য আফগানিস্তানের সব পক্ষের প্রতি সমর্থন অব্যাহত রাখতে এবং জাতিগত পুনর্মিলন এবং দীর্ঘস্থায়ী শান্তির দিকে পরিচালিত করতে ইচ্ছুক।

তিনি আরও বলেন, প্রাসঙ্গিক স্বার্থ রয়েছে, এমন দেশগুলোর মধ্যে যোগাযোগ জোরদার করার জন্য জোর দেওয়া আফগানিস্তানে নিরাপত্তা ঝুঁকি ছড়িয়ে পড়া নিয়ন্ত্রণে কার্যকরভাবে সহায়তা করবে এবং আন্তর্জাতিক ও আঞ্চলিক উভয় সন্ত্রাসবাদের সম্প্রসারণ রোধ করবে, যাতে আঞ্চলিক স্থিতিশীলতা রক্ষা করা যায়।

ওয়াং আরও যোগ করেন, ন্যায়সঙ্গত এবং যুক্তিসঙ্গত বৈশ্বিক শাসনের চাপ দেওয়ার জন্য পাকিস্তানের সাথে সহযোগিতা জোরদার করতে চায়।

তিনি আরও বলেন, বেল্ট অ্যান্ড রোড ইনিশিয়েটিভের একটি প্রধান উপাদান চীন-পাকিস্তান অর্থনৈতিক করিডরে আফগানিস্তানের সম্পৃক্ততা বাড়িয়ে 'ত্রিপাক্ষিক সহযোগিতার' জন্য আরও জোর দেওয়া উচিত।

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে, চীন অর্থনৈতিক পরিমণ্ডলের বাইরে তার প্রভাব প্রসারিত করার চেষ্টা করছে। এর ভূমিকা সম্প্রসারণের প্রচেষ্টার একটি অংশ হ'ল সিপিইসি-র মাধ্যমে আফগানিস্তানের সাথে সম্পর্ক বৃদ্ধি করা, যার মধ্যে রয়েছে রাস্তা, বন্দর, তেল ও গ্যাস পাইপলাইন এবং অপটিক্যাল ফাইবার কেবলের একটি নেটওয়ার্ক।

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান সোমবার বলেছেন, আফগানিস্তানকে পূর্ণ গৃহযুদ্ধ থেকে বাঁচানোর প্রচেষ্টায় দেশটি তার প্রতিবেশীদের কাছে যাচ্ছে এবং শান্তি উদ্যোগের অংশ হিসেবে তারা 'তালেবানদের সঙ্গে যোগাযোগ' করবে।

একটি বিশ্বাসযোগ্য শাসন কাঠামো চালু রয়েছে তা নিশ্চিত না করে আফগানিস্তান ছেড়ে যাওয়ার জন্য ইসলামাবাদ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সমালোচনা করেছে।

বাংলাদেশ সময়: ২১৩০ ঘণ্টা, জুলাই ১৭, ২০২১
নিউজ ডেস্ক 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa