ঢাকা, শনিবার, ৯ আশ্বিন ১৪২৮, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৬ সফর ১৪৪৩

আন্তর্জাতিক

নেপোলিয়নের টুপির দাম ৬ কোটি টাকার বেশি!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫৪৩ ঘণ্টা, জুলাই ১৬, ২০২১
নেপোলিয়নের টুপির দাম ৬ কোটি টাকার বেশি!

ঢাকা: নিলামে উঠতে চলেছে নেপোলিয়ন বোনাপোর্টের আরেক বাইকর্ন (দ্বিকোণ বিশিষ্ট) টুপি। ধারণা করা হয়, ১৮০৭ সালে ফ্রিডল্যান্ডের লড়াইয়ে (ব্যাটল অব ফ্রিডল্যান্ড) রুশ সেনাবাহিনীকে পরাজিত করার সময় এ টুপি পরে ছিলেন তিনি।

আয়োজকরা জানিয়েছেন, নিলামে টুপিটি চার লাখ থেকে ছয় লাখ ইউরোতে (৬.০৩ কোটি টাকা) বিক্রি হতে পারে। এ খবর দিয়েছে দ্য গার্ডিয়ান।

নেপোলিয়নের মৃত্যুর পর ২০০ বছর পার হয়ে গেছে। নিলামকারী প্রতিষ্ঠান সথবি’স-এর প্যারিস শাখা গত বৃহস্পতিবার (১৫ জুলাই) এক ঘোষণায় জানায়, নেপোলিয়নের ২০০তম মৃত্যুবার্ষিকী স্মরণে আগামী ১৫ থেকে ২২ সেপ্টেম্বর তার ব্যবহৃত বিভিন্ন জিনিসের একটি নিলাম আয়োজন করবে।

নেপোলিয়ন বুদ্ধিমান সামরিক কৌশলবিদ ছিলেন নাকি কোনো যুদ্ধংদেহী নির্মম একনায়ক ছিলেন তা নিয়ে এখনো দেশে দেশে বিতর্ক রয়ে গেছে। তবে সথবি’স বলছে, তিনি ছিলেন একজন সম্রাট, যার কাহিনী তার মৃত্যুর ২০০ বছর পরও বিশ্ববাসীকে আকর্ষণ করে।

এ নিলামের মূল আকর্ষণ হচ্ছে নেপোলিয়নের একটি বাইকর্ন টুপি। ধারণা করা হয়, ব্যাটল অব ফ্রিডল্যান্ডে জয়ের পর তিলসিত সন্ধি স্বাক্ষরের সময় এ টুপি পরে ছিলেন তিনি।

১৮১৪ সালে তার কাছ থেকে টুপিটি কিনে নিয়েছিলেন তৎকালীন ধনশালী রাজনীতিক স্যার মাইক্যাল স’-স্টুয়ার্ট। নেপোলিয়নকে নিয়ে কিছুটা সম্মোহিত ছিলেন বলে তার পরিচিতি রয়েছে। টুপিটি নিজের জন্মস্থান স্কটল্যান্ডে নিয়ে যান স্টুয়ার্ট। এরপর থেকে বহু প্রজন্ম ধরে টুপিটি তার পরিবারের তত্ত্বাবধায়নেই আছে। এখন অবদি নেপোলিয়নের পরিহিত ১৯টি বাইকর্ন টুপি শনাক্ত হয়েছে।

টুপিটি ছাড়া নিলামে আরও থাকবে নেপোলিয়নের লাশের মুখের ছাপ দিয়ে তৈরি মুখোশ (ডেথ মাস্ক)। সেটিও চার থেকে ছয় লাখ ইউরোতে বিক্রির প্রত্যাশা করা হচ্ছে। সব মিলিয়ে নিলামটিতে থাকবে ভাস্কর্য, রুপার তৈরি জিনিসপত্র, ফার্নিচার, চীনা মাটির তৈরি জিনিসপত্র, গহনা, ছবি ইত্যাদি।

সথবি’স জানায়, সামরিক কলাকৌশলের পাশাপাশি শিল্পকর্মের রাজনৈতিক প্রভাবও ভালো বুঝতেন নেপোলিয়ন। হয়তো তার সেদিকটা ফুটিয়ে তুলতেই নিলামে উঠছে বেলজিয়ান চিত্রশিল্পী জেমস এনসরের আকা একটি বিদ্রুপাত্মক কাজ। ছবিটি তিনি এঁকেছিলেন ১৮৯০-৯১ সালের মধ্যে। ‘লে রেমর্দস দে এল’ ‘এগর দে কর্সে’ (দ্য রিমর্স অব দ্য করসিকান ওগর) শীর্ষক ছবিটিসহ বেশ কিছু ছবিতে ওয়াটারলু যুদ্ধের ঘটনা তুলে ধরেন এনসর।  

১৮১৫ সালে বেলজিয়ামের ওয়াটারলু শহরে বৃটেনের প্রথম ডিউক অব ওয়েলিংটন আর্থার ওয়েলেজলির হাতে পরাজিত হন নেপোলিয়ন।  

নিলামে উঠতে চলা চিত্রকর্মটিতে দেখা যায়, নিজের সেনাদের কাছে বিদায় নিচ্ছেন নেপোলিয়ন। সেনারা চোখ দূরে তাকিয়ে আছে। আর ব্যাকগ্রাউন্ডে নেপোলিয়নের ব্যর্থতার বর্ণনা দেওয়া আছে একটি পতাকায়। এ চিত্রকর্মটিও চার থেকে ছয় লাখ ইউরোতে বিক্রি হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

নেপোলিয়ন মারা যান ৫১ বছর বয়সে। বৃটিশ দ্বীপ সেইন্ট হেলেনায় নির্বাসনে থাকাকালে। মরার আগে তার বলা শেষ শব্দগুলো ছিল: ফ্রান্স, এল’আর্মি, তেত দি’আর্মে, জোসেফিন (ফ্রান্স, সেনাবাহিনী, সেনাবাহিনীর প্রধান, জোসেফিন)।

বাংলাদেশ সময়: ১৫৪০ ঘণ্টা, জুলাই ১৬, ২০২১
নিউজ ডেস্ক

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa