ঢাকা, সোমবার, ১৬ মাঘ ১৪২৯, ৩০ জানুয়ারি ২০২৩, ০৭ রজব ১৪৪৪

আন্তর্জাতিক

চীনের প্রযুক্তি আধিপত্য মোকাবিলা করা জরুরি: গুগলের সাবেক সিইও  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯৪৭ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২১
চীনের প্রযুক্তি আধিপত্য মোকাবিলা করা জরুরি: গুগলের সাবেক সিইও  

চীনের ক্রমবর্ধমান প্রযুক্তির আধিপত্য মোকাবিলায় পদক্ষেপ নেওয়া জরুরি বলে মনে করেন গুগলের সাবেক প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এরিক। এ বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্র সরকারের প্রতি তিনি আহ্বান জানিয়েছেন।

 

উদীয়মান প্রযুক্তি এবং জাতীয় নিরাপত্তায় সেগুলোর প্রভাব নিয়ে সিনেট আর্মড সার্ভিসেস কমিটির এক শুনানিতে তিনি বলেন, চীনের চেয়ে এক বা দুই বছর এগিয়ে আছে আমেরিকা, ৫ বা ১০ বছর নয়। কিন্তু চীনারা ফেস রিকগনিশন প্রযুক্তিতে এগিয়ে গেছে অনেক দূর।  

কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা বিষয়ক জাতীয় নিরাপত্তা কমিশনের চেয়ারম্যান স্মিডট বলেন, প্রযুক্তির বিস্তারের কারণে, আপনাকে আশা করতে হবে যে ওপেন-সোর্স এআই জগতে আবিষ্কৃত যে কোন কিছু অবিলম্বে চীন গ্রহণ করবে।

গত মাসে এরিকসহ একদল প্রযুক্তিবিদ সতর্ক করে দেন যে চীন কিছু জটিল বিষয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে ডিঙিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছে।  

চায়না স্ট্র্যাটেজি গ্রুপ নামের এই গ্রুপটি এক প্রতিবেদনে বেশ কিছু জরুরি নীতি সমাধানের প্রস্তাব করেছে যা চীনের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় কাজে লাগবে।  

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আমেরিকার প্রযুক্তিগত নেতৃত্ব তার নিরাপত্তা, সমৃদ্ধি এবং গণতান্ত্রিক জীবনযাত্রার জন্য মৌলিক বিষয়। কিন্তু এই গুরুত্বপূর্ণ সুবিধা এখন চীনের কারণে ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে।

‘অসম প্রতিযোগিতা: চীন ও প্রযুক্তির জন্য একটি কৌশল’ নামক ওই প্রতিবেদনে যুক্তরাষ্ট্র এবং চীনা প্রযুক্তি খাতে ‘বিভেদ’ করার প্রস্তাব করা হয়েছে।

চায়না স্ট্র্যাটেজি গ্রুপ উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেছে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ওপর একটি প্রতিযোগিতামূলক প্রযুক্তিগত সুবিধা ধরে রাখতে যাচ্ছে চীন। কিন্তু এক্ষেত্রে যুক্তরাষ্ট্র যাতে শীর্ষে থাকতে পারে তা নিশ্চিত করতে ফেডারেল প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য সুপারিশ করেছে তারা।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, উদীয়মান প্রযুক্তির নতুন চ্যালেঞ্জ মোকাবেলার জন্য আমাদের অভ্যন্তরীণ সরকারের কাঠামোগুলো অনুকূল নয়।

২০২০ সালের অক্টোবর মাসে ইউরোপ, যুক্তরাষ্ট্র এবং জাপানের একদল গবেষক চীনা সরকারের প্রযুক্তির মান এবং তার প্রযুক্তি খাতকে বিদেশে রাষ্ট্রীয় শক্তির হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহারের বিরুদ্ধে গণতান্ত্রিক দেশগুলোর একটি ‘প্রযুক্তি জোট’ গড়ার প্রস্তাব করেন।

প্রস্তাবে বলা হয়, এশিয়া, ইউরোপ এবং উত্তর আমেরিকার প্রধান গণতান্ত্রিক প্রযুক্তি শক্তির জন্য অসমন্বিত এবং প্রতিক্রিয়াশীল প্রযুক্তি নীতি নির্ধারণের অবস্থা মানে তাদের প্রযুক্তিগত নেতৃত্ব খর্ব হওয়ার ক্রমবর্ধমান ঝুঁকি।

গবেষক যুক্তি দেখান, চীনের সরকার বিশ্ব অর্থনীতির শর্তাবলীর ক্ষেত্রে বেইজিং ছাড়া কারো স্বার্থ চিন্তা করে না। এর ফলে অধিকাংশ দেশের অর্থনৈতিক ও জাতীয় নিরাপত্তা খর্ব হবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৪৫ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২১
নিউজ ডেস্ক 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa