ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৪ আশ্বিন ১৪২৭, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১০ সফর ১৪৪২

আন্তর্জাতিক

‘মানুষকে বোমা মেরে তাদেরই দায়ী করা পাকিস্তানের নীতি’

আন্তর্জাতিক ডেস্ক  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১১৪ ঘণ্টা, আগস্ট ৪, ২০২০
‘মানুষকে বোমা মেরে তাদেরই দায়ী করা পাকিস্তানের নীতি’ ছবি- প্রতীকী

সম্প্রতি আফগানিস্তানের কান্দাহার প্রদেশের স্পিন বোলদাক জেলা ও পাকিস্তানের বেলুচিস্তান প্রদেশের চামান শহরের সীমান্ত ক্রসিংয়ে সংঘর্ষে বেশ কিছু মানুষের প্রাণহানি হয়। এ নিয়ে উভয় পক্ষই একে অপরকে দোষারোপ করছে।

কোরবানির ঈদ ঘিরে সীমান্ত পার হয়ে আত্মীয়-স্বজনের কাছে যাওয়ার উদ্দেশ্যে অনেক আফগান ওইদিন ক্রসিংয়ে ভিড় করেছিল বলে জানা যায়। তাদের ওপর পাকিস্তানি বাহিনীর ছোড়া গোলায় ১৫ আফগান নিহত হন বলে অভিযোগ আফগানিস্তানের।  

অন্যদিকে পাকিস্তান বলছে, সেদিন আফগানিস্তানই ভিড় করা জনতার ওপর গুলি ছুড়েছে। পাকিস্তানি সেনারা কেবল স্থানীয় লোকজনের সুরক্ষায় ও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি চালায়। পাকিস্তানের দাবি, ওই সংঘর্ষে ৭ পাকিস্তানি নিহত হয়ছেন। ওই ঘটনায় আরো অন্তত অর্ধ শতাধিক মানুষ আহত হয়েছেন বলে উভয় পক্ষের দাবি থেকে জানা যায়।  

ওই সংঘর্ষে আফগান নাগরিকদের হত্যার ঘটনায় পাকিস্তানের প্রতি ব্যাপক নিন্দা জানিয়েছেন আফগানিস্তানের মিডিয়া মোগল ও ব্যবসায়ী সাদ মোহসেনি। আফগান-অস্ট্রেলিয়ান এ নাগরিক বলেন, পাকিস্তান সাধারণ মানুষের ওপর বোমা মেরে উল্টো তাদেরই দায়ী করে। এটাই তাদের নীতি।  

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে পাকিস্তানকে কটাক্ষ করে মোহসেনি লেখেন, ‘সাধারণদের বোমা মারো, আর তাদেরই দোষ দাও। ’

এর আগে আফগান-পাক সীমান্তে ওই সংঘর্ষের ঘটনায় পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কোরেশি বলেন, চামান শহরে যে ঘটনা ঘটেছে তা ঘটা উচিত হয়নি। আমরা এ নিয়ে আফগানিস্তানের সঙ্গে বসেছি। আশা করি সুষ্ঠুভাবে এর সুরাহা করা গেছে।  

বাংলাদেশ সময়: ২১১৩ ঘণ্টা, আগস্ট ০৪, ২০২০ 
এইচজে 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa