bangla news

চলচ্চিত্র উৎসবে অ্যাসাঞ্জের মুক্তি চাইলেন কুসতুরিজা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০১-১৬ ৩:৩৮:১২ পিএম
সার্বীয় চলচ্চিত্রকার এমির কুসতুরিজা। ছবি: সংগৃহীত

সার্বীয় চলচ্চিত্রকার এমির কুসতুরিজা। ছবি: সংগৃহীত

সার্বিয়ার কুস্তেনদর্ফ আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র ও সংগীত উৎসবে উইকিলিকস প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জের মুক্তি দাবি করলেন সার্বীয় চলচ্চিত্রকার এমির কুসতুরিজা।

মঙ্গলবার (১৪ জানুয়ারি) সার্বিয়ায় আন্তর্জাতিক এ চলচ্চিত্র উৎসবের ১৩তম আয়োজনে অংশ নিয়ে এ দাবি করেন তিনি।

সার্বীয় এ চলচ্চিত্রকার উৎসবে জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জের ছবিযুক্ত টিশার্ট পরে অংশ নেন যাতে লেখা ছিল ‘জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জের জন্য মুক্তি’।

উৎসবে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি জানান, সার্বিয়ার মতো বিশাল দেশের কোথাও অ্যাসাঞ্জের খবর নেই যখন রাজধানী বেলগ্রেদের সংবাদ মাধ্যমের শীর্ষখবর তার হওয়ার কথা।

তিনি বলেন, ‘তার (অ্যাসাঞ্জ) সঠিক সংবাদের বদলে সার্বিয়ায় ভাসাভাসা এক ধারণা আছে, কোনো এককালে এক লোক ছিলেন যিনি তথ্যের জগতে বিপ্লব করেছেন এবং আমাদের জনগণ ও অন্য বিষয়ে আমাদের না জানা সব তথ্য আমাদের দিয়েছেন।’

তিনি জানান,  মৃত্যুপথ যাত্রী অ্যাসাঞ্জের কোনো সংবাদই পাওয়া যাচ্ছেনা। তার বদলে ‘স্থানীয় পঁচা খবর’ই সংবাদ মাধ্যমে পরিবেশন করা হয়। যে খবর জীবনকে পরিবর্তন করতে নিরুৎসাহিত করে।

এদিকে সোমবার (১৩ জানুয়ারি) লন্ডনে ওয়েস্টমিনিস্টার ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টে যুক্তরাষ্ট্রে জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জকে প্রত্যার্পণের বিষয়ে শুনানি শুরু হয়েছে। শুনানিতে বিচারক আদেশ দেন, পরের ২৩ জানুয়ারির শুনানি থেকে অ্যাসাঞ্জ ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে শুনানিতে অংশ নিতে পারবেন।

এর আগে সুইডেনে ধর্ষণের এক মামলায় অভিযুক্ত অ্যাসাঞ্জ গ্রেফতারি এড়াতে ২০১২ সালে লন্ডনের ইকুয়েডর দূতাবাসে আশ্রয় নেন। সাত বছরের অবস্থানের পর ২০১৯ সালের এপ্রিলে ইকুয়েডর সরকারের অনুমোদন নিয়ে ব্রিটিশ পুলিশ দূতাবাসে ঢুকে তাকে গ্রেফতার করে।

অস্ট্রেলিয় সাংবাদিক জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ ২০০৬ সালে উইকিলিকসের প্রতিষ্ঠার মধ্য দিয়ে পরিচিতি পান। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের জনগণের কাছ থেকে সরকারের গোপন রাখা সংবাদ উইকিলিকসের প্লাটফর্মে ফাঁসের মধ্য দিয়ে আলোচনায় আসেন তিনি। এর মধ্যে ২০১০ সালে যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনীর ইরাকের সাধারণ নাগরিকদের হত্যার ভিডিওচিত্র প্রকাশ অন্যতম।

গোপন সংবাদ ফাঁসের পরিপ্রেক্ষিতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিচার বিভাগ গুপ্তচরবৃত্তির দায়ে ১৭টি অভিযোগ এনেছে। অভিযোগগুলো প্রমাণিত হলে তিনি ১৭৫ বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত হতে পারেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৫৩৭ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৬, ২০২০
এবি

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2020-01-16 15:38:12