bangla news

ফিনল্যান্ডে সপ্তাহে কর্মদিবস চারদিন!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০১-০৬ ৮:০২:৩৯ এএম
সানা ম্যারিন-ফিনল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী

সানা ম্যারিন-ফিনল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী

এখন থেকে উত্তর ইউরোপের দেশ ফিনল্যান্ডের মানুষজন সপ্তাহে চারদিন আর দিনে ৬ ঘণ্টা করে কাজ করবে। দেশটির প্রধানমন্ত্রী সানা ম্যারিন এমনটাই ঘোষণা দিয়েছেন। গেল ডিসেম্বর বিশ্বের সর্ব কনিষ্ঠ প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ফিনল্যান্ডের দায়িত্ব গ্রহণ করেন তিনি। দায়িত্ব গ্রহণের পর দেশটির জনগণের জন্য এটি তার বড় উপহার হিসেবে দেখছে ফিনল্যান্ডবাসী। দেশটিতে সাধারণত সপ্তাহে ৫ দিন আর দিনে ৮ ঘণ্টা কাজ করার নিয়ম ছিল। 

৩৪ বছর বয়সী প্রধানমন্ত্রী সানা ম্যারিন মনে করেন, কর্মঘণ্টা কমানোর ফলে দেশটির জনগণ তাদের নিজের পরিবারকে আরও বেশি সময় দিতে পারবে।

এক সন্তানের জননী সানা ম্যারিন মাত্র ২৭ বছর বয়সে ফিনল্যান্ডের দক্ষিণাঞ্চলে নিজ শহর ত্যামপেরে'র কাউন্সিল প্রধান হিসেবে নির্বাচিত হন ম্যারিন। এরপর দেশটির রাজনৈতিক অঙ্গনে দ্রুত উন্নতি করতে থাকেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী হওয়ার আগে দেশটির পরিবহন মন্ত্রীর দায়িত্বে ছিলেন সানা।

সানা বলেন, আমি মনে করি- এ দেশের জনগণ তাদের প্রিয়জন-পরিবারের সঙ্গে আরও বেশি সময় কাটানোর, জীবনকে উপভোগ করার অধিকার রয়েছে। এটা আমাদের কাজের পরবর্তী পদক্ষেপ হতে পারে।

প্রধানমন্ত্রীর এ প্রস্তাবকে স্বাগত জানিয়েছেন দেশটির বাম জোটের নেতা শিক্ষামন্ত্রী এন্ডারসন। তিনি বলেন, এটা ফিনল্যান্ডবাসীর জন্য খুবই সুখের খবর। এটা কোনো নারীঘটিত সিদ্ধান্ত নয়, বরং ভোটারদের প্রতি দায়বদ্ধতার অংশ।

প্রতিবেশি দেশ সুইডেনে ২০১৫ সাল থেকে দিনে ৬ ঘণ্টা করে কাজ করার নিয়ম চালু রয়েছে। এতে দেখা গেছে সেখানকার কর্মীরা খুবই খুশি মনে কাজ করে এবং উৎপাদনও ভালো।

আরও পড়ুন৩৪ বছর বয়সেই ফিনল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী

গেল ডিসেম্বরের শুরুতে আস্থা ভোটে হেরে প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে পদত্যাগ করেন সোশ্যাল ডেমোক্র্যাটিক পার্টির নেতা অ্যান্তি রিনে। মাত্র ছয় মাস আগেই প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পেয়েছিলেন রিনে। কিন্তু সম্প্রতি ডাকবিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ধর্মঘট মোকাবিলায় ব্যর্থ হয়ে দলের আস্থা হারিয়ে ফেলেন তিনি। এরপর ৮ ডিসেম্বর দলীয় নেতাদের মধ্যে ভোটাভুটিতে (৩২-২৯) নির্বাচিত হন ম্যারিন।

এর আগে জাপানে সপ্তাহে চার কর্মদিবস চালু করে ভালো ফল পেয়েছে বিশ্বের শীর্ষ সফটওয়্যার নির্মাতা প্রতিষ্ঠান মাইক্রোসফট। এতে করে ৩৯.৯ শতাংশ কাজ বেড়েছে প্রতিষ্ঠানটির।

দেশটিতে মাইক্রোসফটের এমন সফলতা পাওয়ার পেছনে যে বিষয়গুলো কাজ করেছে তা হলো- কোনো মিটিং সর্বোচ্চ ৩০ মিনিটের মধ্যে সম্পন্ন করা। যে কোনো স্থান থেকে মিটিংয়ে যোগ দেওয়ার সুবিধা।

বাংলাদেশ সময়: ০৮০০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০৬, ২০২০
এসএইচ

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2020-01-06 08:02:39