ঢাকা, শুক্রবার, ২০ মাঘ ১৪২৯, ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১১ রজব ১৪৪৪

আন্তর্জাতিক

দিল্লিতে পুলিশ-শিক্ষার্থী সংঘর্ষ, টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২৩৪৭ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৫, ২০১৯
দিল্লিতে পুলিশ-শিক্ষার্থী সংঘর্ষ, টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপ শিক্ষার্থীদের লাঠিপেটা করছে পুলিশ/ সংগৃহীত

ভারতীয় সংসদে পাস হওয়া ‘বিতর্কিত’ সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের জেরে দিল্লিতে পুলিশের সঙ্গে শিক্ষার্থীদের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় শিক্ষার্থীদের সঙ্গে জনতাও যোগ দিলে পুরো এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। একপর্যায়ে বিক্ষোভকারীরা বাস ভাঙচুর করে ও আগুন দেয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপ ও লাঠিচার্জ করে।

রোববার (১৫ ডিসেম্বর) বিকেলে দিল্লির দক্ষিণে এ ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলো।

জামিয়া মিল্লিয়া ইসলামিয়া (জেএমআই) বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থী জানায়, তারা শান্তিপূর্ণ আন্দোলন করলে পুলিশ তাদের উপর চড়াও হয়।

এতে পুলিশের সঙ্গে তাদের সংঘর্ষে পুরো এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়।  

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপ ও লাঠিচার্জ করলে বিক্ষোভকারীরা বেশ কয়েকটি বাসে ভাঙচুর চালায় ও অন্তত তিনটি গাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেয়। এছাড়া বেশ কয়েকটি মোটরসাইকেলেও আগুন দেওয়া হয়। এতে পুলিশের কয়েকজন সদস্য আহত হয়েছেন, তাদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সংঘর্ষের কারণে দিল্লির দক্ষিণের নিউ ফ্রেন্ডস কলোনিসহ আশপাশের এলাকায় যান চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে ট্রাফিক পুলিশ। বিক্ষোভকারীরা দিল্লি-মাথুরা সড়ক বন্ধ করে দিয়েছেন।

দিল্লি পুলিশ জানিয়েছে, তারা ধারণা করেছিলো সর্বোচ্চ দুই শতাধিক বিক্ষোভকারী অবস্থান নিয়েছেন। কিন্তু শিক্ষার্থী-জনতা মিলে তা হাজারের বেশি।

পুড়ে যাওয়া বাসের আগুনে নেভাচ্ছে পুলিশজামিয়া মিল্লিয়া ইসলামিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান প্রক্টর ওয়াসিম আহমেদ খান জানিয়েছেন, অনুমতি না নিয়ে একরকম জোরপূর্বক পুলিশ ক্যাম্পাসের ভেতরে প্রবেশ করে। এসময় তারা শিক্ষার্থী ও কর্মকর্তাদের লাঠিপেটা করে ক্যাম্পাস থেকে বের করে দেওয়ার চেষ্টা করে। কয়েকজন শিক্ষার্থীকে আটক করে থানায় নিয়ে যাওয়ার কথাও জানিয়েছে সংবাদমাধ্যমগুলো।

এদিকে ভারতের পূর্বাঞ্চলের রাজ্য ঝাড়খণ্ড সফরে এক বক্তব্যে দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেছেন, ভারতীয় সংসদে পাস হওয়া সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন ১০০০ শতাংশ সঠিক। তিনি বলেন, মোদী ও ভারতীয় সংসদ এ আইনের মাধ্যমে দেশ বাঁচিয়ে দিলো।

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন পাস হওয়ায় গত কয়েকদিন ধরে ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় বিভিন্ন রাজ্যে বিক্ষোভ চলে আসছে। এসব বিক্ষোভে বেশ কয়েকজন নিহত হওয়ার খবরও জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলো। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ কারফিউ জারি করে। বন্ধ করে দেওয়া হয় ইন্টারনেট সেবা।

সম্প্রতি ভারতীয় সংসদে পাস হয়েছে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন। নতুন পাস হওয়া আইনে ১৯৫৫ সালের ভারতীয় নাগরিকত্ব আইন সংশোধন করে বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তান থেকে যাওয়া হিন্দু, বৌদ্ধ, শিখ, জৈন, পারসিসহ অমুসলিম অবৈধ অভিবাসীদের নাগরিকত্ব দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। এ আইনটিকে ‘বৈষম্যমূলক’ ও ‘অসাংবিধানিক’ আখ্যা দিয়েছেন বিশ্লেষকরা।  

বাংলাদেশ সময়: ১৮৪৫ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৫, ২০১৯/আপডেট: ১৯২৬ ঘণ্টা
জেডএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa