bangla news

ভারতের নাগরিকত্ব আইন বৈষম্যমূলক: জাতিসংঘ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-১২-১৪ ১১:৫১:২১ এএম
প্রতীকী ছবি।

প্রতীকী ছবি।

ঢাকা: ভারতের নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনটি বৈষম্যমূলক বলে মন্তব্য করেছে জাতিসংঘের মানবাধিকার সংস্থা।

শনিবার (১৪ ডিসেম্বর) এমন তথ্যই জানিয়েছে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম।

সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়, বিলটিতে ১৯৫৫ সালের নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন সংশোধন করার প্রস্তাব করা হয়েছে। আফগানিস্তান, বাংলাদেশ ও পাকিস্তান থেকে যাওয়া হিন্দু, শিখ, বৌদ্ধ, জৈন, পারসি ও খ্রিস্টান অবৈধ অভিবাসীদের যাতে ভারতের নাগরিকত্ব দেওয়া যায়, এ হিসেবেই এ সংশোধনী। এতে ২০১৪ সালের আগ পর্যন্ত আসা এসব মানুষদের কথা বলা হয়েছে। কিন্তু এটি মুসলিমদসহ সংখ্যালঘুদের প্রতি বৈষম্যমূলক।

জাতিসংঘের মানবাধিকার সংস্থার মতে, নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনটি প্রকৃতিগতভাবেই বৈষম্যমূলক। এ নিয়ে শঙ্কাও প্রকাশ করেছে সংস্থাটি।

সংস্থাটি জানায়, সমতার ভিত্তিতে ভারত নতুন আইন করতে পারে। কিন্তু বৈষম্যমূলকভাবে নয়।

ওই আইন নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক মুখপাত্র জেরেমি লরেন্স শুক্রবার (১৩ ডিসেম্বর) সুইজারল্যান্ডের জেনেভায় এক ব্রিফিংয়ে বলেন, ‘ভারতের নতুন নাগরিকত্ব আইনটি মৌলিক চরিত্রের দিক দিয়েই বৈষম্যমূলক এবং এ বিষয়ে আমরা উদ্বিগ্ন। আমরা জানি যে, এই আইনের বৈধতা ভারতের সর্বোচ্চ আদালতে চ্যালেঞ্জের মুখে পড়বে এবং আমাদের আশা মানবাধিকার সংক্রান্ত আন্তর্জাতিক আইনে ভারতের যে দায়বদ্ধতা রয়েছে আদালত তা বিবেচনায় নিয়ে নাগরিকত্ব আইনটির ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবে।’

এদিকে ‘বিতর্কিত’ নাগরিকত্ব আইন পাসের প্রতিবাদে বিক্ষোভে ফুঁসে উঠেছে ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্যের মানুষ। এ বিক্ষোভে ভারতের গুয়াহাটিতে পুলিশের গুলিতে এখন পর্যন্ত অন্তত তিনজনের প্রাণহানির খবর পাওয়া গেছে।

বাংলাদেশ সময়: ১১৫১ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৪, ২০১৯
এসএ/

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   ভারত
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-12-14 11:51:21