bangla news

কম্বোডিয়ায় ভবন ধস, কাজ বন্ধে সতর্ক করা হয় দুইবার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৬-২৪ ৫:৪১:১০ পিএম
ভবন ধসের পর ঘটনাস্থল। ছবি: সংগৃহীত

ভবন ধসের পর ঘটনাস্থল। ছবি: সংগৃহীত

ঢাকা: যথাযথ অনুমোদন ছাড়াই চলছিল কম্বোডিয়ার উপকূলবর্তী শহর সিহানৌকভিলে ধসে পড়া ওই সাততলা ভবনের নির্মাণকাজ। চীনা মালিকানাধীন এ ভবনের নির্মাণকাজ বন্ধে দুইবার সতর্কও করেছিল কর্তৃপক্ষ।

সোমবার (২৪ জুন) আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম এ তথ্য জানায়।

সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়, শনিবার (২২ জুন) সিহানৌকভিলের ওই নির্মাণাধীন ভবনটি ধসে পড়ে। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত ২৪ জন নিহত ও ২৪ জন আহত হয়েছেন।

ঘটনায় পরপরই সেখানে গিয়ে তাৎক্ষণিকভাবে উদ্ধারকাজ শুরু করে উদ্ধারকর্মীরা। তাদের প্রচেষ্টাতেই এখনও সেখানে উদ্ধারকাজ চলছে।

স্থানীয় কর্তৃপক্ষ জানায়, ভবনটিতে নির্মাণকাজ চালানোর ব্যাপারে যথাযথ অনুমোদন ছিলোনা। এ দুর্ঘটনার আগেই ভবনটির মালিককে নির্মাণকাজ বন্ধ করতে দুইবার সতর্কও করা হয়েছিল।

ইতোমধ্যে ঘটনাস্থল থেকে প্রায় সব ধ্বংসস্তুপ সরিয়ে নেওয়া হয়েছে বলেই জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

এ ঘটনায় তিন চীনা নাগরিক ও এক কম্বোডিয়ান নাগরিককে আটক করা হয়েছে।

এ দুর্ঘটনায় বেঁচে ফেরা ওই ভবনে কর্মরত এক শ্রমিক জানায়, ভবনটির প্রায় ৮০ শতাংশ নির্মাণকাজই শেষ হয়ে গিয়েছিল। তবে এ ভবন নির্মাণে যে উপকরণ ব্যবহার করা হয়েছে, তা একটি সাততলা ভবন নির্মাণের জন্য পর্যাপ্ত ছিলোনা। 

কয়েকবছর আগেও এ শহরটি প্রত্যন্ত অঞ্চল হিসেবেই পরিচিত ছিলো। তবে চীনা পর্যটকদের আগ্রহের কারণেই বর্তমানে এ শহরে বহু হোটেল ও ক্যাসিনো নির্মাণ করা হয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৭৪০ ঘণ্টা, জুন ২৪, ২০১৯
এসএ/

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-06-24 17:41:10