ঢাকা, রবিবার, ৩ ভাদ্র ১৪২৬, ১৮ আগস্ট ২০১৯
bangla news

পদত্যাগ করছেন না রাহুল গান্ধী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৫-২৫ ৩:৩২:০৯ পিএম
কার্যনির্বাহী কমিটির সভায় রাহুল গান্ধী ও মনমোহন সিং। ছবি: সংগৃহীত

কার্যনির্বাহী কমিটির সভায় রাহুল গান্ধী ও মনমোহন সিং। ছবি: সংগৃহীত

ঢাকা: লোকসভা নির্বাচনে পরপর দু’বার ভারতের সুপ্রাচীন রাজনৈতিক দল কংগ্রেসের ভরাডুবি হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২৩ মে) ভোটের ফলাফল প্রকাশের পর থেকেই গুঞ্জন ছিল, পদত্যাগ করছেন দলটির সভাপতি রাহুল গান্ধী। শনিবার (২৫ মে) দলের কার্যনির্বাহী কমিটির জরুরি সভায় তিনি পদত্যাগপত্র দিতে পারেন বলে জানিয়েছিল দেশটির সংবাদমাধ্যমগুলো। শেষপর্যন্ত বিষয়টি নাকচ করে দিয়েছে কংগ্রেস। রাহুল গান্ধী পদত্যাগ করছেন না, তিনি কমিটির কাছে পদত্যাগপত্রও জমা দেননি, পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছে দলটি।

নির্বাচনে বাজে ফলাফলের কারণ বিশ্লেষণ ও পরবর্তী করণীয় ঠিক করতে শনিবার (২৫ মে) সকালে জরুরি বৈঠকে বসেছিল কংগ্রেসের কার্যনির্বাহী কমিটি (সিডব্লিউসি)। রাহুল গান্ধী, তার মা সোনিয়া গান্ধী, বোন প্রিয়াংকা গান্ধী এবং সাবেক প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংও আছেন এ কমিটিতে। 

ভারতের ১৭তম লোকসভা নির্বাচনে যেখানে বিজেপি প্রায় তিনশ’র কাছাকাছি আসনে জিতেছে, সেখানে কংগ্রেস পেয়েছে মাত্র ৫২টি আসন। নির্বাচনে নরেন্দ্র মোদীকে কটাক্ষ করে রাহুলের ‘চৌকিদার চোর’ প্রচারণা ব্যর্থ হয়েছে চরমভাবে।

দেশটির ১৭টি রাজ্যে কংগ্রেসের চরম বিপর্যয় ঘটেছে। গত ডিসেম্বরে বিধানসভা নির্বাচনে ভারতের তিনটি বড় রাজ্যে জয় পেয়েছিল তারা। কিন্তু লোকসভা নির্বাচনে সে ধারা ধরে রাখতে পারেনি রাহুলের কংগ্রেস। ছত্তিশগড়ে দু’টি ও মধ্যপ্রদেশে একটি আসন পেয়েছে তারা। রাজস্থানের কোনো আসনেই জিততে পারেনি ঐতিহ্যবাহী রাজনৈতিক দলটি। 

নির্বাচনের সময় উত্তর প্রদেশে রাহুলের সঙ্গে জোর প্রচারণা চালিয়েছেন বোন প্রিয়াংকা গান্ধীও। তবে ভাই-বোনের প্রচারণার কোনো প্রভাব পড়েনি ভোটের ফলাফলে। রাজ্যের ৮০টি আসনের মধ্যে কংগ্রেস জিতেছে মাত্র একটিতে। সেটি হলো সোনিয়া গান্ধীর রায়বারেলি আসন। এমনকি, কংগ্রেসের ঐতিহ্যবাহী আসন আমেথিতেও বিজেপি নেত্রী স্মৃতি ইরানীর কাছে হেরে গেছেন রাহুল গান্ধী।

ভারতের সংসদে বিরোধীদলের স্বীকৃতি পেতে আসন লাগে অন্তত ৫৫টি। কংগ্রেস এবার সেটিও পায়নি। নির্বাচনে ১৮৮টি আসনে বিজেপির সঙ্গে লড়াই হয়েছে কংগ্রেসের। সেখানে ১৭৪টিতেই হেরেছে রাহুল গান্ধীর দল।

নির্বাচনে এমন ভরাডুবির পর এর ১০০ ভাগ দায় নিজের কাঁধে তুলে নেন কংগ্রেস সভাপতি। বৃহস্পতিবার ফলাফলের পর তার কাছে প্রশ্ন করা হয়েছিল, পদত্যাগ করবেন কি-না? জবাবে রাহুল বলেন, বিষয়টি আমার আর কার্যনির্বাহী কমিটির ওপর ছেড়ে দিন।

শুক্রবার (২৪ মে) কংগ্রেসের তিন রাজ্যপ্রধান পদত্যাগ করায় তার ওপর চাপ আরো বেড়ে যায়।

তবে, এ গুঞ্জন আপাতত বন্ধ হয়েছে। শনিবার বৈঠকের পর জানানো হয়েছে, রাহুল গান্ধীই থাকছেন কংগ্রেসের সভাপতি।

২০১৪ সালের নির্বাচনে ইতিহাসের সবচেয়ে কম আসন পেয়েছিল কংগ্রেস। তিন দশকের রেকর্ড ভেঙে বিজেপির নিরঙ্কুশ জয়ের বিপরীতে তারা পায় মাত্র ৪৪টি আসন। সেসময় ব্যর্থতার দায় নিয়ে পদত্যাগ করতে চেয়েছিলেন দলের সভাপতি ছিলেন সোনিয়া গান্ধী ও সহ-সভাপতি রাহুল গান্ধী। তবে গান্ধী পরিবারের অনুগত কংগ্রেস তাদের পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেনি সেসময়েও।

বাংলাদেশ সময়: ১৫৩০ ঘণ্টা, মে ২৫, ২০১৯
একে

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
db 2019-05-25 15:32:09