ঢাকা, সোমবার, ৩ আষাঢ় ১৪২৬, ১৭ জুন ২০১৯
bangla news

বোয়িংয়ের বড় অর্ডার বাতিল করলো গারুদা এয়ার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৩-২২ ৪:৩৪:০০ পিএম
যুক্তরাষ্ট্রে কারখানার টারমাকে পার্কিং করে রাখা বোয়িংয়ের ৭৩৭ ম্যাক্স মডেলের উড়োজাহাজ

যুক্তরাষ্ট্রে কারখানার টারমাকে পার্কিং করে রাখা বোয়িংয়ের ৭৩৭ ম্যাক্স মডেলের উড়োজাহাজ

পাঁচ মাসেরও কম সময়ের ব্যবধানে একই মডেলের দু’টি প্লেন বিধ্বস্ত হওয়ার ঘটনায় বোয়িংয়ের সঙ্গে করা পাঁচ বছর আগের চুক্তি বাতিল করেছে ইন্দোনেশিয়ার গারুদা এয়ারলাইন। এর ফলে ২০১৪ সালে করা অর্ডারের পাইপলাইনে থাকা বোয়িংয়ের ৭৩৭ ম্যাক্স মডেলের ৪৯টি প্লেন আনছে না দেশটির জাতীয় পতাকাবাহী এয়ারলাইন্সটি।

৪৯০ কোটি ডলারে ২০১৪ সালে বোয়িং থেকে ৫০টি প্লেন ক্রয়ের চুক্তি করে গারুদা এয়ার। এর মধ্যে মাত্র একটি প্লেন সরবরাহ করে বোয়িং। বাকিগুলো সরবরাহের প্রক্রিয়ায় ছিলো।

এয়ারলাইনটি বোয়িংকে পাঠানো এ সংক্রান্ত এক চিঠিতে জানিয়েছে, অবশিষ্ট প্লেনের অর্ডার আমাদের পক্ষ থেকে বাতিল করা হয়েছে। এ বিষয়ে পরবর্তী পদক্ষেপের বিষয়ে আলোচনার জন্য চলতি মাসের শেষ নাগাদ তাদের প্রতিনিধির সঙ্গে (বোয়িং) জাকার্তায় আলোচনা হতে পারে।

গারুদা এয়ারলাইনের এক কর্মকর্তা জানান, বোয়িংয়ের ম্যাক্স মডেলের প্লেনে ভ্রমণের বিষয়ে আমাদের যাত্রীরা আস্থাহীনতায় ভুগছেন।

গত ১০ মার্চ ইথিওপিয়ান এয়ারলাইন্সের বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স৮ মডেলের একটি প্লেন বিধ্বস্ত হয়ে এর ১৫৭ আরোহী সবার মৃত্যু হয়। এর আগে গত অক্টোবরে লায়ন এয়ারের বহরে থাকা একই মডেলের আরেকটি প্লেন বিধ্বস্ত হয়ে ১৮৯ আরোহীর মৃত্যু হয়।

চলতি মাসের শুরুতে রাশিয়ান এয়ারলাইন্সের ইউটিএয়ার, উরাল এয়ারলাইন্স, পোবিদা এয়ারলাইন্স এবং এস৭ বোয়িংয়ের সঙ্গে ৭৩৭ ম্যাক্স৮ মডেলের প্লেন সরবরাহের চুক্তি বাতিল করে।

২০১৭ সালে যাত্রীসেবায় যুক্ত হওয়ার পর দ্রুতই জনপ্রিয় হতে থাকে বোয়িংয়ের ইতিহাসে সর্বাধিক বিক্রিত ৭৩৭ ম্যাক্স৮ মডেলের প্লেনটি। এরই ধারাবাহিকতায় এ মডেলের আরো অন্তত ৫ হাজার উড়োজাহাজের অর্ডার পড়ে। 

বাংলাদেশ সময়: ১৬৩৩ ঘণ্টা, মার্চ ২২, ২০১৯
জেডএস

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-03-22 16:34:00