ঢাকা, সোমবার, ১৮ আশ্বিন ১৪২৯, ০৩ অক্টোবর ২০২২, ০৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

আন্তর্জাতিক

উত্তর কোরিয়াকে তেল দিচ্ছে চীন,অভিযোগ ট্রাম্পের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০১৩৫ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২৯, ২০১৭
উত্তর কোরিয়াকে তেল দিচ্ছে চীন,অভিযোগ ট্রাম্পের

ঢাকা: চীন তার প্রতিবেশী দেশ উত্তর কোরিয়ার কাছে গোপনে তেল বিক্রি করছে বলে অভিযোগ করলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। 

চীনের এহেন আচরণে তিনি হতাশ ও মর্মাহত বলেও জানিয়েছেন। আর চীন যদি এ ধরনের কাজ অব্যাহত রাখে তবে, উত্তর কোরিয়া সংকটের বন্ধুত্বপূর্ণ ও শান্তিপূর্ণ সমাধান হবে না বলেও হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন তিনি।

এক টুইট বার্তায় তিনি এই অভিযোগ ও হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করলেন।


দক্ষিণ কোরিয়ার গণমাধ্যমগুলো জানায়, উত্তর কোরিয়ার জাহাজে চীনের জাহাজ তেল হস্তান্তর করেছে এমন প্রমাণ তাদের কাছে আছে।  

তবে হোয়াইট হাউস ও যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের কেউই রাষ্ট্রপতির টুইটটির ব্যাখ্যা করতে রাজি হয়নি।  

ট্রাম্প তার টুইটে লেখেন, আমি খুবই হতাশ যে উত্তর কোরিয়ায় তেল পাঠানোর অনুমতি দিচ্ছে চীন। এভাবে চলতে থাকলে উত্তর কোরিয়া সমস্যার শান্তিপূর্ণ সমাধান হবে না।

মার্কিন ট্রেজারি ডিপার্টমেন্টে নভেম্বর মাসে ঘোষণা করা হয়েছিল যে, জাতিসংঘ নিষেধাজ্ঞা বহাল থাকায় উত্তর কোরিয়ার শিপিং ও ট্রেডিং কোম্পানিগুলোর একটি চক্র গোপনে তেল স্থানান্তর – (একটি জাহাজ থেকে জাহাজের স্থানান্তর) করার চেষ্টা করেছিল। ওই ঘটনার কিছু ছবিও সে সময় দক্ষিণ কোরিয়ার গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়।

দক্ষিণ কোরিয়ার সরকারি কর্মকর্তা স্টিভ মুনুচিন এ বিষয়ে বলেন, উত্তর কোরিয়া আন্তর্জাতিক শান্তি ও নিরাপত্তার জন্য হুমকি হয়ে দাঁড়িয়েছে। আমরা ট্রেজারি কৌশলগুলো প্রকাশের সঙ্গে সঙ্গে বাণিজ্য ও রাজস্বের বাইরের উৎস থেকে তাদের আলাদা করার জন্য অর্থনৈতিক চাপ বাড়ানোর জন্য দৃঢ় প্রতিজ্ঞ।

এদিকে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র হুয়া চুনিং বিষয়টি অস্বীকার করেছেন।

তিনি বলেন, উত্তর কোরিয়া বিষয়ে জাতিসংঘের অন্য সদস্যদের মতো চীনের অবস্থানও অভিন্ন। চীন সরকার সিকিউরিটি কাউন্সিলে উত্তর কোরিয়া-সম্পর্কিত রেজুলেশনগুলো যথাযথভাবে, বাস্তবায়ন করছে।  

তিনি আরো যোগ করেন, যদি প্রমাণিত হয় যে চীন নিরাপত্তা পরিষদের সিদ্ধান্তের কোনো লঙ্ঘন করেনি  তবে চীন আইনঅনুযায়ী এই অভিযোগের জবাবা দেবে।

এ বছরের প্রথম দিকে হোয়াইট হাউসে পা দিয়েই চীনের সঙ্গে একটি মিশ্র সম্পর্কের কৌশল গ্রহণ করেন ট্রাম্প। যদিও তিনি চীনা প্রেসিডেন্টকে হোয়াইট হাউজে আমন্ত্রণ জানান এবং নিজেও চীন সফর করেন। তিনি দেশটির বাণিজ্য নীতিগুলোর সমালোচনা করেন এবং উত্তর কোরিয়ার ওপর "কোন প্রভাব" না থাকার কারণে চীনকে তিরষ্কার করেন।

বাংলাদেশ সময়: ০৭৩৩ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২৯, ২০১৭
আরএম/এসআই

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa