ঢাকা, সোমবার, ৯ বৈশাখ ১৪৩১, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ১২ শাওয়াল ১৪৪৫

আন্তর্জাতিক

প্লে-স্টোর থেকে ভারতীয় অ্যাপ কেন সরাচ্ছে গুগল?

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬৩৫ ঘণ্টা, মার্চ ২, ২০২৪
প্লে-স্টোর থেকে ভারতীয় অ্যাপ কেন সরাচ্ছে গুগল?

সার্ভিস চার্জ না মেটানোয় ১০টি ভারতীয় অ্যাপ সরিয়ে দিয়েছে গুগল। এ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থাটির ওপর ক্ষুব্ধ ভারতীয় স্টার্ট-আপ মহল।

গুগল বলছে, নির্ধারিত সার্ভিস চার্জ তাদের অ্যান্ড্রয়েড ব্যবস্থা ও প্লে-স্টোরের সহায়ক পরিবেশ গড়তে সাহায্য করে। কিন্তু ভারতীয় এ সংস্থাগুলো গুগল থেকে সেবা নিলেও মাসুল দেয়নি। যে কারণেই তারা এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

সরিয়ে দেওয়া অ্যাপগুলোর নাম প্রকাশ না করলেও কয়েকটি সূত্রের মাধ্যমে জানা গেছে, তালিকায় শাদি, ম্যাট্রিমনি ডট কম, ভারত ম্যাট্রিমনি, অডিয়ো অ্যাপ কুকু এফএম ও দুয়েকটি ডেটিং অ্যাপ রয়েছে।

অ্যাপ সরিয়ে দেওয়ার বিষয়টি ইন্টারনেট পরিষেবার ক্ষেত্রে দেশের ‘কালো দিন’ বলে মন্তব্য করেছেন ভারত ম্যাট্রিমনির প্রতিষ্ঠাতা মুরুগাভেল জানকীরামন। কুকু এফএমের সহ-প্রতিষ্ঠাতা বিনোদ কুমার মীনার বলেছেন, গুগ‌ল একচেটিয়া আধিপত্যের সুযোগ নিচ্ছে।

বিষয়টি নিয়ে কেন্দ্র সরকারও নড়েচেড় বসেছে। ভারতের তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণব আগামী সোমবার (৪ মার্চ) গুগলের ভারতীয় প্রতিনিধিদের একটি বৈঠকে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন। সেখানে টেক জায়ান্ট ও ভারতীয় কোম্পানির মধ্যে সার্ভিস চার্জ নীতি নিয়ে আলোচনা করবেন তিনি।

তিনি এ সংকট নিরসনে দ্রুত একটি রেজোলিউশনের আশা প্রকাশ করেন। বৈষ্ণব বলেন, আমি আশাবাদী গুগল তার পদ্ধতিগুলোতে আরও যুক্তিসঙ্গত করে তুলবে। আমাদের একটি বৃহৎ ক্রমবর্ধমান স্টার্টআপ ইকোসিস্টেম রয়েছে। তাদের স্বার্থ রক্ষা করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

তিনি বলেন, আমি গুগলকে আমার সঙ্গে দেখা করতে বলেছি। আমরা আমাদের স্টার্টআপ ইকোসিস্টেমকে সুরক্ষিত করতে সমস্ত প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেব। আমি বিশ্বাস করি গুগল ডিজিটাল অর্থপ্রদানের সঙ্গে ভালোভাবে খাইয়ে নিয়েছে। তারা বিষয়টি যুক্তিসঙ্গতভাবে তুলে ধরবে।

সার্ভিস চার্জ না দেওয়ার বিষয়টি শুরু হয় যখন গুগল ভারতীয় অ্যাপ সংস্থাগুলোকে ১৫ থেকে ৩০ শতাংশ সার্ভিস ফি দিতে বলে। কিন্তু ভারতীয়রা সেটি মানতে নারাজ। এ নিয়ে আবেদনের পর প্রতিযোগিতা কমিশন এই মাসুল কাঠামো বাতিলের নির্দেশ দেয়। কিন্তু এ সংক্রান্ত মামলায় মাসুল আরোপ করা ও তা না দিলে অ্যাপ সরানো নিয়ে সুপ্রিম কোর্ট-সহ দুটি আদালতের সম্মতি পায় গুগল।

পরে ভারতীয় অ্যাপ সংস্থাগুলোকে ১১ থেকে ২৬ শতাংশ হারে সার্ভিস ফি প্রদান করতে বলে গুগল। কিন্তু স্টার্ট-আপ সংস্থা সেটিও বন্ধ করে দেওয়ার চেষ্টা করে। তাদের দাবি, একচেটিয়া আধিপত্যের সুযোগে অ্যাপ ব্যবহারের টাকা মেটানোর ক্ষেত্রে শুধুমাত্র নিজেদের পদ্ধতিই মানতে সংস্থাগুলিকে বাধ্য করে গুগল।

গুগল বলেছে, তারা তাদের নীতি রক্ষা করছে। অ্যালফাবেট ইনকর্পোরেটেডের সহযোগী প্রতিষ্ঠানটির দাবি, যে দশটি ভারতীয় অ্যাপ বন্ধের সিদ্ধান্ত হয়েছে, তারা একটি বর্ধিত সময়ের জন্য প্লে স্টোর থেকে ‘বিপুল মূল্য পায়’। কিন্তু তারা সার্ভিস ফি না দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

গুগল আরও বলেছেন, সুপ্রিম কোর্টের আদেশের তিন সপ্তাহ ও এসব ডেভেলপারদের প্রস্তুতির জন্য তিন বছরেরও বেশি সময় দেওয়া হয়। কিন্তু তারা সেটি মানছে না। আমরা বিশ্বব্যাপী নীতি লঙ্ঘনের যেকোনো ধরনের ক্ষেত্রে আমাদের নিয়মগুলো ধারাবাহিকভাবে রক্ষায় প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিচ্ছি।

সূত্র: এনডিটিভি

বাংলাদেশ সময়: ১৬৩৫ ঘণ্টা, মার্চ ২, ২০২৪
এমজে

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।