ঢাকা, শনিবার, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০, ০২ মার্চ ২০২৪, ২০ শাবান ১৪৪৫

আন্তর্জাতিক

চেন্নাইয়ে ভারী বৃষ্টিতে সড়ক হলো নদী, ৫ জনের মৃত্যু 

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১০২১ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৫, ২০২৩
চেন্নাইয়ে ভারী বৃষ্টিতে সড়ক হলো নদী, ৫ জনের মৃত্যু 

প্রবল ঘূর্ণিঝড় মিগজাউম মঙ্গলবার দুপুরে আছড়ে পড়তে চলেছে। তার আগে সোমবার তাণ্ডব চলল চেন্নাইসহ আশপাশের এলাকায়।

এতই বৃষ্টি হয়েছে যে কার্যত স্তব্ধ হয় তামিলনাড়ুর রাজধানী। ভেসে যায় সড়ক। কোমর ছাড়ায় পানির উচ্চতা।  

শুধু চেন্নাইয়েই পাঁচজনের মৃত্যু হয়েছে। বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মৃত্যু হয়েছে দুজনের। গাছ পড়ে একজনের প্রাণ গেছে। শহরের দুটি পৃথক এলাকা থেকে অজ্ঞাতপরিচয় এক নারী এবং এক পুরুষের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।  

সংবাদসংস্থা এএনআইয়ের প্রতিবেদন অনুযায়ী, চেন্নাইয়ে উদ্ধারকাজ চালাচ্ছে ভারতীয় সেনার মাদ্রাজ ইউনিট। মোতায়েন করা হয়েছে জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীও (এনডিআরএফ)।

চেন্নাইয়ে এমন অবস্থা হয়েছে যে, ২০১৫ সালের ভয়াবহ স্মৃতি ফিরে আসছে। লাগাতার বৃষ্টির জেরে স্তব্ধ হয়ে গেছে পুরো শহর। নদীতে পরিণত হয়েছে শহরের বিভিন্ন সড়ক। কোথাও পানি স্থির তো কোথাও আবার স্রোত বয়ে যাচ্ছে। না বলে দিলে মনে হবে যেন বয়ে যাচ্ছে কোনো নদী।  

ঝোড়ো হাওয়ার কারণে উপড়ে পড়েছে গাছ। সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়া একাধিক ভিডিওতে দেখা গেছে, পানির তোড়ে ভেসে যাচ্ছে গাড়ি। কোথাও গাড়ি আটকে আছে। লাগাতার বৃষ্টির জেরে সোমবার সকাল থেকেই একাধিক জায়গায় বিদ্যুৎ সংযোগ নেই।  

সেখানে ইন্টারনেট সংযোগও নেই। কার্যত বিচ্ছিন্ন দ্বীপে বসে থাকার মতো অবস্থা অধিকাংশ মানুষের। শুধু তাই নয়, একটি ভাইরাল ভিডিওতে সড়কে কুমির ঘুরে-বেড়াতে দেখা গিয়েছে।

আবহাওয়ার দপ্তরের পক্ষে জানানো হয়েছে, শেষ ২৪ ঘণ্টায় পেরুনগুডিসহ একাধিক জায়গায় প্রায় ৩০০ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। সেই পরিস্থিতিতে মঙ্গলবার স্কুলসহ যাবতীয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, সরকারি অফিস, বেসরকারি অফিস, আর্থিক প্রতিষ্ঠান, ব্যাঙ্কের মতো জায়গায় ছুটি ঘোষণা করে দেওয়া হয়েছে।  

যে যে জায়গা কার্যত বিচ্ছিন্ন হয়ে আছে, সেখানে বেসরকারি অফিসগুলিকে প্রয়োজনে ‘ওয়ার্ক ফ্রম হোম’ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। যদিও আপাতত যা অবস্থা, তাতে অনেকের বাড়িতে বিদ্যুৎ ও ইন্টারনেট সংযোগ নেই। ফলে ওয়ার্ক ফ্রম হোমের প্রশ্ন ওঠে না।

এমন পরিস্থিতিতে স্বভাবতই যান চলাচল পুরোপুরি থমকে গেছে। প্রবল বৃষ্টিতে ভেসে গিয়েছে চেন্নাই বিমানবন্দর। সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল একাধিক ভিডিওতে দেখা গেছে, চেন্নাইয়ের বিমানবন্দরে পুরো পানির স্রোত বয়ে যাচ্ছে। কোনোক্রমে বিমান সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে।  

এয়ারপোর্ট অথরিটি অব ইন্ডিয়ার পক্ষে জানানো হয়েছে, সোমবার সকাল ৯টা ৪০ মিনিট থেকে রাত ১১ টা পর্যন্ত চেন্নাই বিমানবন্দর বন্ধ ছিল। প্রায় ৭০টির মতো বিমান বাতিল করা হয়। একাধিক দূরপাল্লার ট্রেনও বাতিল করে দিয়েছে ভারতীয় রেল। যে তালিকায় পশ্চিমবঙ্গের ট্রেন আছে।  

সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস

বাংলাদেশ সময়: ১০১৮ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৫, ২০২৩
আরএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।