ঢাকা, রবিবার, ৮ মাঘ ১৪২৮, ২৩ জানুয়ারি ২০২২, ১৯ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

আন্তর্জাতিক

মানব ইতিহাসের তুলনাহীন অভিযান: প্রেসিডেন্ট

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭৫৮ ঘণ্টা, অক্টোবর ১৩, ২০১০
মানব ইতিহাসের তুলনাহীন অভিযান: প্রেসিডেন্ট

কোপিয়াপো: আটকে থাকা ৩৩ জন খনি শ্রমিককে উদ্ধারের ঘটনাকে ‘মানব ইতিহাসে তুলনাহীন অভিযান’ বলে উল্লেখ করেছেন চিলির প্রেসিডেন্ট সেবাস্তিয়ান পিনেরা।

অ্যাটাকামা মরুভূমিতে উদ্ধার কাজ শুরুর প্রথম থেকেই সেখানে উপস্থিত আছেন প্রেসিডেন্ট পিনেরা এবং ফাস্ট লেডি সিসিলিয়া মোরেল।



সেখানে উপস্থিত থেকে একের পর এক উদ্ধার হওয়া শ্রমিকদের ব্যক্তিগতভাবে অভিনন্দন জানাচ্ছেন তারা।

সান জোসের খনি থেকে প্রথম ব্যক্তি হিসেবে উদ্ধার হওয়া ফোরেন্সিও আভালোসকে জড়িয়ে ধরে অভিনন্দন জানান পিনেরা।

বিশেষভাবে তৈরি ক্যাপসুলের সাহায্যে আভালোসকে উদ্ধারের পর প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘শ্রমিকদের এ ঘটনা আমরা সারাজীবন মনে রাখবো। ’

একইসঙ্গে সবচেয়ে প্রতিকূল সময়ে তারা তাদের সর্বোচ্চ সাফল্য দেখিয়েছেন বলেও জানান তিনি।

এ সংকটের সময় পিনেরা শ্রমিকদের নেতায় পরিণত হয়েছেন এবং এর মধ্য দিয়ে ডানপন্থী এ রাজনীতিবিদের জনপ্রিয়তাও অনেক বেড়ে গেছে।

মার্চে ক্ষমতা গ্রহণের পর তার জনপ্রিয়তা কমে ৫২ শতাংশে আসে যা তার পুর্বসূরী মাইকেল ব্যাচেলেটের ৮৪ শতাংশেরও কম।  

তবে খনি শ্রমিকদের নিয়ে সংকট শুরু হওয়ার পর বিশেষ করে শ্রমিক শ্রেণীর মধ্যে তার জনপ্রিয়তা বাড়তে থাকে।    

সংকট শুরুর পরই এ কোটিপতি উদ্ধার কাজ সফল করার জন্য প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা গ্রহণ করেন।

উদ্ধার অভিযান শুরুর আগে প্রেসিডেন্ট পিনেরা মাটির প্রায় ২ হাজার ফুট নিচে আটকে থাকা শ্রমিকদের শক্তি ও সাহসের প্রশংসা করেন।

তিনি বলেন, ‘দীর্ঘ এ প্রতীক্ষার আনন্দদায়ক অবসান হবে বলে আমি আশা করছি। ’

উদ্ধার অভিযানের প্রধান নির্বাহী হিসেবে ঘটনাস্থলে উপস্থিত থাকতে ইকুয়েডরে তার সফর সংক্ষিপ্ত করেন প্রেসিডেন্ট।  

তিনি বলেন, ‘এ দুর্ঘটনার আগে তারা যেমন ছিলেন উদ্ধারের পরের মানুষটি কখনোই তেমন থাকবেননা। এ ঘটনার পর চিলিও আগের মত থাকবেনা। ’

একইসঙ্গে তার সরকার কখনো হার না মেনে এগিয়ে যাওয়ার অঙ্গীকার করেছেন বলেও জানান তিনি।
 
দুর্ঘটনার পর খনির নিরাপত্তা আইনের উন্নয়নের নির্দেশ দেওয়া পিনেরা বলেন, ‘চিলি এ দুর্ঘটনা থেকে শিক্ষা নিয়েছে। ’

ঐতিহাসিক এ ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী হওয়ার জন্য পিনেরা স্ত্রী সিসিলিয়া মোরেলও সান জোসেতে উপস্থিত আছেন।

এমনকি আটকে পড়া শ্রমিকদের আত্মীয় স্বজনদের মানসিক সমর্থন দেওয়ার জন্য তার স্বামীর আগেই তিনি ঘটনাস্থলে পৌঁছান ফাস্ট লেডি সিসিলিয়া মোরেল ।

প্রেসিডেন্টের ভাই সুরকার মিগুয়েল পিনেরাও তাদের সমর্থন দেন।

তবে শুধু প্রেসিডেন্টই নন বরং ঘটনাস্থলে দিন রাত উপস্থিত থেকে জাতীয় বীর ও গণমাধ্যম তারকায় পরিণত হন খনিমন্ত্রী লরেন্স গোলবর্ন ।

একইসঙ্গে সংবাদ সম্মেলন করা, পরিবারকে সমর্থন দেওয়াসহ ক্যাম্প হোপের কাছে গিটার বাজিয়েও শোনান তিনি।

তার এ উৎসর্গ চিলির অধিকাংশ জনগণকে নাড়া দেয় এবং এমনকি ২০১৪ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দীতা করারও আহ্বান জানান ভক্ত-সমর্থকরা।
   
বাংলাদেশ স্থানীয় সময়: ১৭১২ ঘণ্টা, অক্টোবর ১৩, ২০১০

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa