ঢাকা, মঙ্গলবার, ১ আশ্বিন ১৪২৬, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯
bangla news

সুচির মুক্তি ছাড়া নির্বাচন গ্রহণযোগ্য নয়: জাতিসংঘ

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১০-০৯-২৮ ২:২৬:৩৬ এএম

মিয়ানমারের নোবেল বিজয়ী নেত্রী আং সান সুচিকে মুক্তি দেওয়া না হলে দেশটির নির্বাচন বিশ্বাসযোগ্য হবে না। জাতিসংঘের একটি দল সোমবার একথা জানায়।

জাতিসংঘ: মিয়ানমারের নোবেল বিজয়ী নেত্রী আং সান সুচিকে মুক্তি দেওয়া না হলে দেশটির নির্বাচন বিশ্বাসযোগ্য হবে না। জাতিসংঘের একটি দল সোমবার একথা জানায়।

চীন, ভারত, থাইল্যান্ড, সিঙ্গাপুর, ইন্দোনেশিয়া, ব্রিটেন এবং যুক্তরাষ্ট্রের মন্ত্রীরা সমন্বিতভাবে একথা বলেন।

মন্ত্রীদের সঙ্গে এক বেঠকে জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি মুন বলেন, ‘নির্বাচনটি পক্ষপাতহীন, স্বচ্ছ ও সমন্বিত পদ্ধতিতে অনুষ্ঠিত হবে বলে আমি আশা করছি।’ একইসঙ্গে প্রায় দু’দশক থেকে গৃহবন্দী সুচির মক্তির বিষয়েও তিনি জোর দেন।

তিনি বলেন, ‘নির্বাচনী প্রক্রিয়াকে আরও সমন্বিত, অংশগ্রহণমূলক এবং স্বচ্ছ করার প্রয়োজনীয়তার কথার আমরা পুনরাবৃত্তি করছি। সদস্যরা রাজনৈতিক বন্দী আং সান সুচির মুক্তির ব্যাপারে পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।’

এছাড়া নির্বাচন নিয়ে মিয়ানমারের সামরিক জান্তার বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নিতে আসিয়ানের নেতাদের প্রতিও আহ্বান জানান জাতিসংঘের মহাসিচব।

নির্বাচন গ্রহণযোগ্য না হলে তা আসিয়ানের সমন্বিত মূল্যবোধে প্রভাব রাখবে বলে শুক্রবার বান সতর্ক করে দেন।

মিয়ানমারের একটি দলের সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের বান বলেন, ‘মিয়ানমারের স্থিতিশীলতা এবং উন্নয়নের জন্য নির্বাচনটি গ্রহণযোগ্য হওয়া জরুরি।’

জাতিসংঘ সাধারণ সভার পাশাপাশি অনুষ্ঠিত এ বৈঠকে মিয়ানমার সরকারের কোনো প্রতিনিধি ছিলেন না। তবে রোববার জাতিসংঘ সদরদপ্তরে বান মিয়ানমারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী উন নায়ানের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন এরইমধ্যে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে অবরোধ আরোপ করলেও চীন বরাবরই জাতিসংঘের নিষেধাজ্ঞা থেকে দেশটিকে রক্ষা করে আসছে। এদিকে, গত জুলাইয়ে মিয়ানমারের সামরিক জান্তাপ্রধান থান শোয়ে ভারতে এক রাষ্ট্রীয় সফর করেন।

দুই দশকের মধ্যে প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠেয় মিয়ানমারের এ নির্বাচনে সুচির দল ন্যাশনাল লীগ ফর ডেমোক্রেসিসহ আরও নয় বিরোধী দলকে নিষিদ্ধ করে দেশটির সামরিক সরকার। এ নির্বাচনকে প্রতারণামূলক বলে দলগুলো এর বিরোধিতা করেছে।    

বাংলাদেশ স্থানীয় সময়: ১২১১ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৮, ২০১০

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2010-09-28 02:26:36