ঢাকা, শনিবার, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ২৫ মে ২০১৯
bangla news

বসতি স্থাপন শুরু করেছে ইসরায়েল, অনিশ্চয়তায় শান্তি আলোচনা

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১০-০৯-২৭ ৮:৩০:৩১ এএম

পশ্চিমতীরে বসতি স্থাপন কার্যক্রম সোমবার নতুন করে শুরু করেছে ইসরায়েল। রোববার মধ্যরাতে বসতি স্থাপন স্থগিত রাখার মেয়াদ শেষ হলে নতুন এই নির্মাণ কাজ শুরু হয়।

জেরুজালেম: পশ্চিমতীরে বসতি স্থাপন কার্যক্রম সোমবার নতুন করে শুরু করেছে ইসরায়েল। রোববার মধ্যরাতে বসতি স্থাপন স্থগিত রাখার মেয়াদ শেষ হলে নতুন এই নির্মাণ কাজ শুরু হয়।

বিশ্লেকদের মধ্যে এর ফলে শান্তি আলোচনা ভেঙ্গে যেতে পারে। তবে আলোচনা ভেঙ্গে দেওয়া প্রসঙ্গে ফিলিস্তিন প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস এখনো কোনো মন্তব্য করেননি।

ইসরায়েলের সরকারি রেডিওতে বলা হয়েছে, পশ্চিম তীরে আরও ৩০ টি বাড়ি নির্মাণ করা হবে।

ইসরায়েলের এই সিদ্ধান্তের ফলে ফিলিস্তিনের সঙ্গে শান্তি আলোচনা ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠেছে।

তবে ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু একবছরের মধ্যে শান্তি চুক্তি করার জন্য আলোচনা এগিয়ে নিতে ফিলিস্তিন প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসের প্রতি আহবান জানিয়েছেন।

এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, ইসরায়েল শান্তি আলোচনা এগিয়ে নিতে প্রস্তুত রয়েছে।

এদিকে আব্বাসের মুখপাত্র নাবিল আবু রুদিয়ান জানান, প্যারিসে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে আব্বাস বলেছেন, আগামী ৪ অক্টোবর আরব নেতাদের সঙ্গে বৈঠকে পর শান্তি আলোচনা এগিয়ে নেওয়ার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবেন। এর আগে ফিলিস্তিনের পক্ষ থেকে কোনো সিদ্ধান্ত দেওয়া হবে না।

নাবিল বলেন, ‘আমরা মার্কিন প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করে চলছি। তাদের শান্তি উদ্যোগের বিষয়ে খোঁজখবর রাখছি। তবে ইসরায়েলের সর্বশেষ অবস্থান না দেখে শান্তি আলোচনা ভেঙ্গে দেওয়া না দেওয়ার ব্যাপারে কোনো সিদ্ধান্ত দেবো না।’

তিনি আরও বলেন, ‘শান্তি আলোচনা এগিয়ে নিতে আমরা সবসময়ই তৎপর। তবে বসতি স্থাপন কাজ এমুহুর্তে স্থগিত করতে হবে। তবেই কার্যকর আলোচনা হতে পারে।’

তবে রোববার যুক্তরাষ্ট্র জানায়, ইসরায়েলের সিদ্ধান্তের বিষয়ে দুই পক্ষের সঙ্গে সমঝোতার চেষ্টা চলছে। ইসরায়েল বসতি স্থাপনের কাজ শুরু করলেও শান্তি আলোচনা এগিয়ে নিতে আহবান জানায় যুক্তরাষ্ট্র।

মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রী হিলারি কিনটন রোববার দুই দফা ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেছেন। কিন্তু ইসরায়েল তাদের সিদ্ধান্তে অটল থাকে।

মার্কিন মধ্যস্ততায় ২০ মাস স্থগিত শান্তি আলোচনা গত ২ সেপ্টেম্বর শুরু হয়। আলোচনার শুরুতে শান্তি প্রতিষ্ঠায় দুই পক্ষ একমত হলেও বসতি স্থাপন স্থগিত রাখার মেয়াদ বাড়ানো নিয়ে দুপক্ষ ভিন্ন মত অবলম্বন করে।

ফিলিস্তিন প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস বসতি স্থাপনের মেয়ান বাড়ানো না হলে শান্তি আলোচনা ভেঙ্গে দেওয়ার ঘোষণা  দেয়। মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামাও বসতি স্থাপন স্থগিত রাখার মেয়াদ বাড়াতে আহবান জানায়। কিন্তু ইসরায়েল তাদের সিদ্ধান্তে অটল থাকে।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা মন্ত্রনালয়ের মুখপাত্র পি জে ক্রাউলি এক বিবৃতিতে বলেন, ‘বসতি স্থাপন বিষয়ে আমাদের নীতির কোনো পরিবর্তন হয়নি। আমরা দুপক্ষের সঙ্গে নিবির সম্পর্ক বাজায় রাখছি। তাদের সঙ্গে আলোচনা অব্যাহত রাখবো।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা দুই পক্ষকে লক্ষ্য অর্জনের জন্য কার্যকর পদক্ষেপ নিতে এগিয়ে যেতে উৎসাহিত করছি।’

তবে নতুন করে বসতি স্থাপনের কাজ শুরু হওয়ায় শান্তি আলোচনা ভেঙ্গে যেতে পারে বলে আশঙ্কা করেছেন বিশেষজ্ঞারা।

পশ্চিম তীর ও পূর্ব জেরুজালেমে প্রায় ৪ লাখ ৩০ হাজার ইহুদি বসবাস করে। তারা ১০০টি বসতি নির্মাণ করেছে। বিশ্ব  নেতারা বসতি স্থাপন অবৈধ ঘোষণা করলেও ইসরায়েল তা প্রত্যাখ্যান করছে। একই এলাকায় প্রায় দুই লাখ ৫০ হাজার ফিলিস্তিনি বসবাস করছে।


বাংলাদেশ স্থানীয় সময়: ১৬২৬ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৭, ২০১০৩

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
db 2010-09-27 08:30:31