ঢাকা, রবিবার, ১০ আশ্বিন ১৪২৯, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ২৭ সফর ১৪৪৪

তথ্যপ্রযুক্তি

বিদেশ নয়, এখন ঘরে বসেই ডলার উপার্জন করা সম্ভব: পলক

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১৫৪ ঘণ্টা, এপ্রিল ২১, ২০২২
বিদেশ নয়, এখন ঘরে বসেই ডলার উপার্জন করা সম্ভব: পলক

সিরাজগঞ্জ: তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, ডলার আয়ের জন্য আর বিদেশে পাড়ি দেওয়ার প্রয়োজন নেই, ঘরে বসেই
ইউরোপ আমেরিকার বিভিন্ন মার্কেটে কাজ করে ডলার আয় করবে তরুণ-তরুণীরা।

বৃহস্পতিবার (২১ এপ্রিল) সিরাজগঞ্জের কাজিপুর উপজেলার সিংড়াবাড়ী এলাকায় ‘শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং অ্যান্ড ইনকিউবেশনই সেন্টারের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন শেষে
শহীদ এম মনসুর আলী অডিটোরিয়ামে আয়োজিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, এই আইটি ট্রেনিং সেন্টার সিরাজগঞ্জবাসীর জন্য প্রধানমন্ত্রীর এক অনন্য উপহার। আগামী দেড় বছরের মধ্যে এটি নির্মাণ শেষ হবে। দুই বছরের মধ্যে এখানে আমরা কার্যক্রম শুরু করবো। এখান থেকে বছরে এক হাজার তরুণ-তরুণী প্রশিক্ষণ নিয়ে তাদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করতে পারবে।

তিনি বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ আসলে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলারই আধুনিক রূপ। প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশে আইসিটি খাতে যথাযথ অবকাঠামো গড়ে উঠার কারণে বর্তমানে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা ১৩ কোটিরও অধিক। সাড়ে ছয় লাখ ফ্রিল্যান্সার ৫০০ মিলিয়ন ডলার বৈদেশিক মুদ্রা আয় করছে। গ্রাম পর্যন্ত ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সেবা পৌঁছে গেছে। প্রতিযোগিতার এই যুগে আমাদের তরুণদের টিকে থাকতে হলে প্রযুক্তি শিক্ষার বিকল্প নেই। সরকার এজন্যই একটি প্রযুক্তিনির্ভর জাতি গড়ে তুলতে কাজ করে চলেছে। এখন থেকে আর চাকরির পেছনে ছুটতে হবে না, নিজেরাই উদ্যোক্তা হয়ে মানুষকে চাকরি দেবে।

তিনি আরও বলেন, এসএসসি এবং এইচএসসির শিক্ষার্থীদের আইটিতে দক্ষ জনশক্তি হিসেবে গড়ে তুলতে প্রকল্পটি গৃহীত হয়েছে। এ প্রকল্পের মাধ্যমে তথ্য ও যোগাযোগ
প্রযুক্তি খাতে নতুন নতুন উদ্যোক্তা তৈরি করে একাডেমিয়া এবং আইটি ইন্ডাস্ট্রির মধ্যে সেতুবন্ধন প্রতিষ্ঠা করা হবে। এতে করে আইটি খাতে যুব সমাজের আত্ম-কর্মসংস্থানের ব্যাপক সুযোগ সৃষ্টি হবে।

স্থানীয় সংসদ সদস্য (এমপি) প্রকৌশলী তানভীর শাকিল জয়ের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ডিজেল প্ল্যান্ট লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সৈয়দ মো. রফিকুল ইসলাম, বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষ এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক (গ্রেড-১) ডা. বিকর্ণ কুমার ঘোষ, শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং অ্যান্ড ইনকিউবেশন সেন্টার স্থাপন (১১ জেলা) প্রকল্পের পরিচালক একেএম আব্দুল্লাহ খান, সিরাজগঞ্জ জেলা প্রশাসক ড. ফারুক আহাম্মদ, পুলিশ সুপার হাসিবুল আলম, জেলা আওয়ামী লীগের অ্যাডভোকেট কে এম হোসেন আলী হাসান, সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ তালুকদার, চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির প্রেসিডেন্ট আবু ইউসুফ সূর্য, কাজিপুর উপজেলা চেয়ারম্যান মো. খলিলুর রহমান সিরাজী, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. জাহিদ হাসান সিদ্দিকী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রেফাজ উদ্দিন মাস্টার প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ২১৫৫ ঘণ্টা, এপ্রিল ২১, ২০২২
আরআইএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa