ঢাকা, বুধবার, ৮ আশ্বিন ১৪২৭, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৪ সফর ১৪৪২

তথ্যপ্রযুক্তি

করোনা রোগী শনাক্তে রবির ‘ডাটা অ্যানালিটিক্স টুলস’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১২৫২ ঘণ্টা, এপ্রিল ৩, ২০২০
করোনা রোগী শনাক্তে রবির ‘ডাটা অ্যানালিটিক্স টুলস’

ঢাকা: করোনা পরিস্থিতি মোকবিলায় সরকারের সহযোগিতায় ডাটা অ্যানালিটিক্স প্রযুক্তি নিয়ে এগিয়ে এসেছে মোবাইল ফোন অপারেটর রবি। করোনা সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে সরকারকে সহযোগিতা করবে রবির এ ডাটা অ্যানালিটিক্স টুলস।

বৃহস্পতিবার (২ এপ্রিল) তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের উপস্থিতিতে এক লাইভ ভিডিও কনফারেন্সে এ টুলস সংশ্লিষ্ট সবার জন্য উন্মুক্ত করে রবি।

সংবাদ সম্মেলনে রবির পক্ষ থেকে প্রতিষ্ঠানটির রবির হেড অব করপোরেট অ্যান্ড রেগুলেটরি অ্যাফেয়ার্স শাহেদ আলম বলেন, বিশ্ব্বের অনেক দেশ প্রযুক্তির সাহায্য নিয়েছে।

যেমন দক্ষিণ কোরিয়া মোবাইল অ্যাপ দিয়ে, হংকং ব্লুটুথ প্রযুক্তি দিয়ে করোনা আক্রান্ত ব্যক্তি ও অঞ্চল শনাক্ত করতে সক্ষম হয়েছে। সিঙ্গাপুর ট্র্যাকিং প্রযুক্তি দিয়ে নাগরিকদের হোম কোয়ারেন্টিনের বিষয়টি নিশ্চিত করতে সক্ষম হয়েছে। তেমনি একটি প্রযুক্তি হচ্ছে রবির ডাটা অ্যানালিটিক্স টুলস। এর মাধ্যমে করোনা আক্রান্তের ঝুঁকিতে থাকা অঞ্চল এবং কোথায় বেশি আক্রান্ত হচ্ছে সে বিষয়টি জানা যাবে।

রবির প্রধান তথ্য কর্মকর্তা আসিফ নাইমুর রশিদ বলেন, রবির নিজস্ব বিগ ডাটা প্ল্যাটফর্ম এবং ডাটা সায়েন্স টিম রয়েছে। এই টিমের মাধ্যমে আমাদের অ্যাডভান্স অ্যানালেটিক্স মডেলগুলো আমরাই বানিয়ে থাকি। রবির নিজস্ব সোর্স থেকে পাওয়া তথ্য এবং অন্যান্য সোর্সের পাশাপাশি রবির সিম ব্যবহারকারীদের নিজ উদ্যোগে দেওয়া তথ্য বিশ্লেষণ করা হবে এসব প্ল্যাটফর্মে। ব্যবহার করা হবে মেশিং লার্নিং প্রযুক্তিও। এসব তথ্য বিশ্লেষণ করে জানা যাবে, যাদের হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার কথা তারা সেটি মানছেন কি-না। না মানলে তাদের গতিবিধি কি রকম। একই সঙ্গে কোন এলাকায় করোনার ঝুঁকি কেমন, আক্রান্তদের অবস্থান কোথায় কোথায় এবং সেসব এলাকায় আক্রান্তের ঘনত্ব কত। এসব তথ্য শুধু সরকারি সংস্থাগুলোর সঙ্গেই বিনিময় করা হবে যার থেকে তারা তাদের একশন প্ল্যান নির্ধারণ করতে পারবেন।

তবে এসবকিছুই এখন পর্যন্ত ‘টেস্ট’ পর্যায়ে আছে বলে জানায় রবি।

এসময় রবির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মাহতাব উদ্দিন বলেন, সবথেকে ঝুঁকিপূর্ণ এলাকাগুলোতে থাকা আমাদের গ্রাহকদের কাছে আমাদের বিভিন্ন সেবার নোটিফিকেশন চলে যাবে। শুধু রবি না এবং অন্যান্য জায়গা থেকে পাওয়া তথ্য নিয়ে কাজ করছে রবি যেন পরবর্তী লেভেলে আমরা কাজ করতে পারি। যেমন যারা করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন তাদের আগামী এক মাসের জন্য
আনলিমিটেড ভয়েস কল এবং ডাটা দেব। যারা করোনায় আক্রান্ত তারা একটি নির্দিষ্ট নম্বরে ডায়াল করে এ সুবিধা পাবেন।

তবে এসব ডাটা যেন বেহাত না হয় সেদিকে সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বর করা হবে বলে জানান আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। একই সঙ্গে নিজেদের টুলস এবং প্রযুক্তি সঙ্কটকালীন মুহুর্তে উন্মোচন করায় রবির প্রতি সাধুবাদ জানান তিনি।  

পলক বলেন, যে ডাটাগুলো সংগ্রহ করা হচ্ছে সেগুলোর মূল সোর্স শনাক্তকরণ অযোগ্য অবস্থায় যাবে সবার কাছে। আর যারা তথ্য দেবেন তারা স্বপ্রণোদিত হয়ে দেবেন। তথ্য সুরক্ষায় আমরা একটি আইন ও করতে যাচ্ছি। আমরা আশা করি, প্রযুক্তির সর্বোচ্চ ব্যবহারের মাধ্যমে করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে সক্ষম হবো। আমাদের মনে রাখতে হবে আমরা এখনও ঝুঁকিপূর্ণ নই। আমরা সবাই যেন ঘরে থাকি।

সংবাদ সম্মেলনে এক্সেস টু ইনফরমেশনের (এটুআই) পলিসি অ্যাডভাইজার আনির চৌধুরী, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডা. আবুল কালাম আজাদসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ১২৩০ ঘণ্টা, এপ্রিল ০৩, ২০২০
এসএইচএস/ওএইচ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa