bangla news

দেশে এখন প্রতিবছর ৫ লাখ কম্পিউটার আসে: পলক

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-১১-১৬ ১০:০১:৫০ পিএম
অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। ছবি: বাংলানিউজ

অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। ছবি: বাংলানিউজ

ঢাকা: তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, ১৯৯৭ সালে দেশে ৬০ টি কম্পিউটার ছিল। বর্তমানে প্রতিবছর ৫ লাখ কম্পিউটার আমদানি করতে হয়। এতেই বুঝা যায় প্রযুক্তি কত এগিয়ে গেছে দেশ। এখন শিক্ষা থেকে শুরু করে কৃষি, স্বাস্থ্য, ক্রীড়াসহ সব ক্ষেত্রেই দেশ প্রযুক্তিনির্ভর হয়েছে।

শনিবার (১৬ নভেম্বর) সন্ধ্যায় রাজধানীর একটি অভিজাত কনভেনশন সেন্টারে বেসরকারি সাউথ-ইস্ট বিশ্ববিদ্যালয় আয়োজিত ইন্টারন্যাশনাল কলিজিয়েট প্রোগ্রামিং কনটেস্টের (আইসিপিসি) ঢাকা রিজিওনাল অনসাইট প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, এই মুহূর্তে প্রযুক্তিনির্ভর জ্ঞান না থাকলে শুধু বিষয়ভিত্তিক জ্ঞান দিয়ে কোনো ক্ষেত্রেই সফল হওয়া যায় না। সরকারও এসব বিষয় বিবেচনা করে সার্বিকভাবে আইসিটির ওপর গুরুত্ব দিচ্ছে। 

প্রযুক্তির অগ্রগতি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ১০ বছর আগেও দেশে রেফ্রিজারেটর আমদানি করতে হতো। বর্তামানে দেশে ৯০ শতাংশ উৎপন্ন হয়। বছরে ২০ লাখ ফ্রিজ বিক্রি হয়। এমন সময় আসবে বাংলাদেশ কম্পিউটারও তৈরি করবে। দেশে সার্চ ইঞ্জিন, অপারেটিং সিস্টেম তৈরির কাজ চলছে। একদিন অবশ্যই সফল হবে দেশের মেধাবী তরুণেরা।

আইসিটি প্রতিমন্ত্রী বলেন, সারাদেশে ৮ হাজার শেখ রাসেল কম্পিউটার ল্যাব, ৪৩ হাজার মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুম ও দুই হাজার স্মার্ট ক্লাসরুম স্থাপন করা হযেছে। পর্যায়ক্রমে প্রত্যেকটি স্কুলে কম্পিউটার ল্যাব, মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুম স্থাপন করা হবে।

সাউথইস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এএনএম মেশকাত উদ্‌দীনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন জাতীয় অধ্যাপক ও এশিয়া প্যাসিফিক ইউনিভার্সিটির উপাচার্য ড. জামিলুর রেজা চোধুরী, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সিনিয়র সচিব এনএম জিয়াউল আলম, বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের (বিসিসি) ব্যবস্থাপনা পরিচালক পার্থ প্রতীম দেব। 

এ সময়  অন্যদের মধ্যে সাউথইস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের বোর্ড অব ট্রাস্টিজের চেয়ারম্যান মো. রেজাউল করিম, যমুনা গ্রুপের পরিচালক মো. আলমগীর, অধ্যাপক ড. আবুল লেইস এমএস হক, অধ্যাপক এম কায়কোবাদ, সহকারী অধ্যাপক হাসনাইন হেকেল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

১৫-১৬ নভেম্বর দুইদিনব্যাপী এ প্রতিযোগিতায় দেশের বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৯০টি দল অংশ নেয়।

বাংলাদেশ সময়: ২১৫৭ ঘণ্টা, নভেম্বর ১৬, ২০১৯
পিএস/এমএ

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   তথ্যপ্রযুক্তি ডিজিটাল বাংলাদেশ
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Alexa
cache_14 2019-11-16 22:01:50