ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১ কার্তিক ১৪২৬, ১৭ অক্টোবর ২০১৯
bangla news

১০ কোটি নাগরিকের আইডি ভেরিফায়েড: পলক

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৯-১৫ ৪:০৪:০০ পিএম
চুক্তি সই অনুষ্ঠান, ছবি: বাংলানিউজ

চুক্তি সই অনুষ্ঠান, ছবি: বাংলানিউজ

ঢাকা: দেশের ১০ কোটি নাগরিকের পরিচয়পত্র (আইডি) যাচাই-বাছাইয়ের পর ভেরিফায়েড অবস্থায় আছে। আর সেসব আইডির তালিকা তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিভাগের কাছে রয়েছে।

রোববার (১৫ সেপ্টেম্বর) জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) যাচাইয়ে ‘পরিচয় ডট গভ ডট বিডি’ পোর্টালের সঙ্গে ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেডের (ইবিএল) এক চুক্তি সই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এমনটাই জানিয়েছেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

এ চুক্তির মাধ্যমে বেসরকারি খাতের ব্যাংক হিসেবে প্রথম পোর্টালটির সঙ্গে যুক্ত হল ইবিএল। চুক্তির ফলে ইবিএল একটি নির্দিষ্ট আইডি ও পাসওয়ার্ড ব্যবহার করে পরিচয় পোর্টাল থেকে গ্রাহকদের বর্তমান ও স্থায়ী ঠিকানা, পুলিশ ভেরিফিকেশন রিপোর্ট, পাসপোর্টের তথ্য, স্বাক্ষর, ছবি, বায়োমেট্রিক (আঙুলের ছাপ), কর শনাক্তকরণ নম্বরের (টিআইএন) তথ্য এবং সিআইবি (ক্রেডিট ইনফরমেশন ব্যুরো) তথ্যসহ বিভিন্ন ধরনের তথ্য পাবে।

আইসিটি প্রতিমন্ত্রী বলেন, একজন নাগরিককে ডিজিটাল সেবা দেওয়ার জন্য প্রয়োজন মূলত তিনটা গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। প্রথম ও প্রধান শর্ত হচ্ছে, ভেরিফায়েবল আইডি থাকতে হবে। অর্থাৎ একটা ডিজিটাল ভেরিফায়েড পরিচয় থাকতে হবে। দ্বিতীয়ত, ডিজিটাল পেমেন্ট প্ল্যাটফর্ম। যেন নাগরিকেরা ফিজিক্যাল লেনদেন না করে ডিজিটালি করতে পারে। তৃতীয়ত, ইন্টার-অপারেবলিটি। অর্থাৎ একটা সিস্টেমের সঙ্গে আরেকটা সিস্টেমের; একটা প্ল্যাটফর্মের সঙ্গে আরেকটা প্ল্যাটফর্মের এবং ইন্টার-অপারেবল হতে হবে। এ তিনটা পূরণ করা গেলে সব কার্যক্রম শতভাগ ডিজিটাল করা সম্ভব। আমাদের প্রায় ১০ কোটি নাগরিকের ডিজিটাল ভেরিফায়েড তথ্য এখন আমাদের কাছে আছে। ন্যাশনাল পেমেন্ট সুইচ (এনপিএস) আছে। লেনদেনের ক্ষেত্রে ইন্টার-অপারেবলিটি এখনও নেই। তবে উপদেষ্টার নির্দেশনায় আমরা ইন্টার-অপারেবল ডিজিটাল ট্র্যানজেকশন প্ল্যাটফর্ম আমরা করছি। এর ফলে একটা প্ল্যাটফর্ম থেকে আরেকটা প্ল্যাটফর্মে টাকার লেনদেন করা যাবে।

প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, আমাদের লক্ষ্য সরকারের ৯০ শতাংশ সেবা ২০২১ সালের মধ্যে ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে নিয়ে আসবো। আমরা এরই মধ্যে ৮০০ সেবা চিহ্নিত করেছি, যেগুলো ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে নিয়ে আসতে হবে। মাত্র ১০ বছরে আমরা প্রায় পাঁচ শতাধিক সেবা অনলাইনে এনেছি। ব্যাংকিং থেকে এডুকেশন, এডুকেশন থেকে এমপ্লয়মেন্ট; সবকিছু যেন হাতের ছোঁয়ায় থাকে তার জন্য আমরা কাজ করছি।

অনুষ্ঠানে আইসিটি বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের পাশাপাশি ইবিএলর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও আলী রেজা ইফতেখারসহ ব্যাংকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৫৫৫ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ১৫, ২০১৯
এসএইচএস/ওএইচ/

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-09-15 16:04:00