bangla news

দেশের সেরা অনলাইন গন্তব্য হতে চায় ‘সহজ’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৭-১৮ ১২:১৯:১৩ পিএম
অনুষ্ঠানে উপস্থিত অতিথিরা। ছবি: রাজীন চৌধুরী/বাংলানিউজ

অনুষ্ঠানে উপস্থিত অতিথিরা। ছবি: রাজীন চৌধুরী/বাংলানিউজ

ঢাকা: গণপরিবহন ও লজিস্টিক খাতে দেশের সেরা অনলাইন গন্তব্য হতে চায় ‘সহজ’। একই ছাতার নিচে বিভিন্ন রকম সেবার সমন্বয়ে ‘সুপার অ্যাপ স্ট্র্যাটেজি’ তৈরি করে দেশের মানুষের জীবন-যাত্রাকেও সহজ করতে চায় এই দেশীয় প্রযুক্তি কোম্পানিটি। 

রাজধানীর একটি হোটেলে বুধবার (১৭ জুলাই) রাতে নিজেদের কার্যক্রমের পঞ্চম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে ‘সহজ’ এর অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মালিহা এম কাদির এমনটাই জানিয়েছেন। 

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ (আইসিটি) বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিডা) নির্বাহী চেয়ারম্যান কাজী এম আমিনুল ইসলাম। 

অনুষ্ঠানে ‘সহজ’ এর ভবিষ্যত ব্যবসায়িক পরিকল্পনা তুলে ধরেন হার্ভার্ড বিজনেস স্কুলের সহকারী অধ্যাপক ড. এন্ডি উ।

অনুষ্ঠানে ‘সহজ’ এর যাত্রাপথ তুলে ধরে মালিহা এম কাদির বলেন, গণপরিবহন ও লজিস্টিক সেবা নিয়ে কাজ শুরু করে আমাদের প্ল্যাটফর্মে এখন অনেক ধরনের সেবা পাওয়া যায়। তবে পাঁচ বছরের এই যাত্রাকে আমি এখনই সফল বলতে চাই না। সামনে আমাদের আরো দীর্ঘ পথ পড়ে রয়েছে। 

‘‘আমাদের প্ল্যাটফর্মে এখন বাস, লঞ্চ ও ইভেন্টের টিকিট, রাইড শেয়ারিং সার্ভিস মিলে পাঁচ ধরনের সেবা মিলছে। আমরা নতুন একটি সেবা নিয়ে আসছি- ‘অন ডিমান্ড ট্রাক’। এতসব সার্ভিস নিয়ে আমরা দেশের মানুষের জীবনযাত্রা সহজ করতে চাই।’

তিনি বলেন, আমাদের এ পর্যন্ত আসার পেছনে যে পথ পাড়ি দিয়েছি তা মোটেই সহজ ছিল না। ‘সহজে’র প্রতিটি সদস্য অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। এজন্যই তা সম্ভব হয়েছে। 

‘সহজ’ এর সবগুলো সেবাকে একটি অ্যাপের মধ্যে নিয়ে আসার পরিকল্পনার কথা উল্লেখ করে মালিহা বলেন, আমাদের প্ল্যাটফর্মে প্রায় এক হাজার ৮০০ রুটের গণপরিবহনের টিকিট পাওয়া যায়। ৭০টিরও বেশি বাস কোম্পানির সঙ্গে আমরা কাজ করছি। প্রতিদিন প্রায় তিন হাজার ফুড অর্ডার পৌঁছে দেই আমরা। 

‘‘প্রায় পঞ্চাশ হাজার রাইড শেয়ার হয় প্রতিদিন। আর এখন দেড় হাজার ট্রাক নিবন্ধন করেছি আমরা। এসকল সেবা মিলিয়ে প্রায় দেড় কোটি মানুষকে আমরা সেবা দিচ্ছি। আর এসব সেবা আমরা এক ছাতার নিচে নিয়ে আসতে চাই, যেটাকে আমরা বলছি ‘সুপার অ্যাপ স্ট্র্যাটেজি’।’’

তিনি বলেন, ‘সহজ’ এ আমরা যেমন বিভিন্ন ধরনের সেবা রেখেছি তেমনি অন্য সেবা প্রদানকারী ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানও আমাদের প্ল্যাটফর্মে সেবা দিতে পারেন সেই ব্যবস্থা নিয়েও কাজ করছি আমরা।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে আমরা যেসব কাজ করে যাচ্ছি তাতে ‘সহজ’ গুরুত্বপূর্ণ একটি ভূমিকা পালন করছে। ‘সহজ’ এর মতো বিভিন্ন স্ট্যাটাসকে সহযোগিতার জন্য আমরা স্টেট অব কোম্পানি চালু করার একদম দ্বারপ্রান্তে আছি। আমরা বিশ্বাস করি একজন উদ্যোক্তা সফল হলে হয়তো লক্ষ তরুণের স্বপ্ন পূরণ হবে। 

তরুণদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আমাদের লক্ষ্য ২০২১ সালের মধ্যে এক হাজার স্টার্টআপকে অর্থ সহায়তা দেবো। আমরা চাই তোমরা যেনো শুধু চাকরির পেছনে না ছুটে মালিহা এম কাদিরের মতো সফল উদ্যোক্তা হোক।’ 

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস-বেসিস এর সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবির, বিজিএমইএ-এর সভাপতি রুবানা হক প্রমুখ। 

বাংলাদেশ সময়: ১২১৫ ঘণ্টা, জুলাই ১৮, ২০১৯
এসএইচএস/এমএ

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Alexa
cache_14 2019-07-18 12:19:13