ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ২৩ মে ২০১৯
bangla news

চলতি বছরেই খুলনায় হাইটেক পার্ক নির্মাণ কাজ শুরু হবে

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৩-২৩ ৪:১০:১৪ পিএম
সভায় বক্তব্য রাখছেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সচিব এন এম জিয়াউল আলম। ছবি: বাংলানিউজ

সভায় বক্তব্য রাখছেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সচিব এন এম জিয়াউল আলম। ছবি: বাংলানিউজ

খুলনা: তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সচিব এন এম জিয়াউল আলম বলেছেন, চলতি বছরেই খুলনাতে হাইটেক পার্ক নির্মাণ কাজ শুরু হবে।

শনিবার (২৩ মার্চ) দুপুরে খুলনা সার্কিট হাউস সম্মেলন কক্ষে শিক্ষিত তরুণ-তরুণী ও যুবকদের আত্মকর্মসংস্থানের লক্ষ্যে গ্রহীত ক্যাপাসিটি বিল্ডিং শীর্ষক প্রকল্পের উপকারভোগীদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

খুলনা জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে আয়োজিত সভায় জিয়াউল আলম বলেন, খুলনা জেলা তথ্যপ্রযুক্তি খাতের জন্য একটি সম্ভাবনাময় জায়গা। এ অঞ্চলের শিক্ষিত তরুণ-তরুণীদের মধ্যে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে স্বাবলম্বী হওয়ার যে স্বপ্ন, তাকে বাস্তবে রূপ দিতে আধুনিক সব সুযোগ-সুবিধা সমৃদ্ধ করে এ হাইটেক পার্ক নির্মাণ করা হবে।

ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার ক্ষেত্রে তরুণদেরই নেতৃত্ব দিতে হবে উল্লেখ করে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সচিব বলেন, ডিজিটাল প্রযুক্তির নতুন নতুন উদ্ভাবনের সঙ্গে খাপ খাইয়ে নিতে ক্যাপাসিটি বিল্ডিং প্রশিক্ষণের কোনো বিকল্প নেই। তবে কেবল প্রশিক্ষণ গ্রহণ করলেই চলবে না, সেই প্রশিক্ষণকে চর্চা করতে হবে। তিনি প্রশিক্ষণপ্রাপ্তদের ডাটাবেজ তৈরি করে তাদের নিয়মিত মনিটরিং করার জন্য খুলনা জেলা প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানান।

সভায় প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত উপকারভোগীদের পক্ষ থেকে প্রশিক্ষণের সময় বাড়ানো এবং লজিস্টিক সাপোর্টের জন্য ব্যাংক থেকে সহজ শর্তে ঋণের ব্যবস্থা করার দাবি করা হয়।

উল্লেখ্য, খুলনা জেলা প্রশাসকের নিজস্ব উদ্যোগে বাস্তবায়িতব্য এ প্রকল্পে ফ্রি ল্যান্সিং, ডিজিটাল মার্কেটিং, সেলাইসহ কয়েকটি ট্রেডে দুই সপ্তাহ মেয়াদী ফ্রি প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। এ পর্যন্ত মোট ৩৬৫ জন শিক্ষিত তরুণ-তরুণী এ প্রকল্পের আওতায় প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেছে।

খুলনা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন- জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব শেখ ইউসুফ হারুন, বিএল কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর কে এম আলমগীর, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আছাদুজ্জামান, মুক্তিযোদ্ধা আলমগীর কবির, মহিলা বিষয়ক অধিদফতরের উপ-পরিচালক নার্গিস ফাতেমা জামিন, খুলনা প্রেসক্লাবের সভাপতি এস এম হাবিব এবং খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি মুন্সী মাহবুব আলম সোহাগ।

বাংলাদেশ সময়: ১৬০৭ ঘণ্টা, মার্চ ২৩, ২০১৯ 
এমআরএম/আরবি/

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   খুলনা
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Alexa
cache_14 2019-03-23 16:10:14