[x]
[x]
ঢাকা, বুধবার, ৫ চৈত্র ১৪২৫, ২০ মার্চ ২০১৯
bangla news

ই-কমার্স অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড বেগবান করছে: পলক

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৩-১৭ ৭:৩২:০৪ পিএম
বক্তব্য রাখছেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। ছবি: বাংলানিউজ

বক্তব্য রাখছেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। ছবি: বাংলানিউজ

ঢাকা: ই-কমার্স দেশের কর্মসংস্থান ও অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডকে বেগবান করছে উল্লেখ করে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, ই-কমার্স বা ডিজিটাল শিল্পকে সুন্দর করে গড়ে তুলতে আমাদের চারটি বিষয়ের ওপর গুরুত্ব দিতে হবে। এগুলো হচ্ছে ইন্টারনেট, লেনদেনের ব্যবস্থা, ডেলিভারি সুবিধা ও বিশ্বাস।

রোববার (১৭ মার্চ) রাজধানীর আগারগাঁওয়ে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি) এসএমই ফাউন্ডেশন আয়োজিত বাংলাদেশের ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প উদ্যোক্তাদের জন্য ই-কমার্সের সুবিধা শীর্ষক এক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ই-কমার্সে ব্যবসা করতে গেলে আপনাকে বিশ্বাস রাখতে হবে। পণ্যটি  আসবে, যা অর্ডার করা হয়েছে তা ঠিক আছে। এছাড়া পণ্যের মানও ঠিক রাখতে হবে।

পলক আরও বলেন, বর্তমানে আমরা যে ব্যবসার কথাই চিন্তা করি না কেন, প্রযুক্তিকে বাদ দিয়ে সে ব্যবসার উন্নয়ন করা সম্ভব নয়। বর্তমানে প্রায় দুই হাজারের মতো উদ্যোক্তা ই-কমার্স নিয়ে কাজ করছে। সোশ্যাল মিডিয়াও আজকাল ই-কমার্স হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে। এখন শুধু ছবি শেয়ার করা কিংবা যোগাযোগের মাধ্যম হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে না সোশ্যাল মিডিয়াকে, এটা  মানুষের কর্মসংস্থান এবং অর্থনৈতিক যে কর্মকাণ্ড, সেটাকেও কিন্তু বেগবান করছে। 

সামাজিক যোগাযগমাধ্যমের ইতিবাচক ব্যবহারের প্রতি জোর দিয়ে তিনি বলেন, সোশ্যাল মিডিয়া আমরা কিভাবে ব্যবহর করবো, সেটা নির্ভর করছে ব্যবহারকারীর ওপর। আমরা ইচ্ছে করলে ভালো কাজেও ব্যবহার করতে পারি, আবার শিক্ষা, স্বাস্থ্য, বাণিজ্যিক কাজে বা সমাজবিরোধী কাজেও ব্যবহার করতে পারি। কিংবা অন্য কাউকে ক্ষতি করতেও সেটা ব্যবহার করা যায়। 

ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প উদ্যোক্তাদের উদ্দেশে প্রতিমন্ত্রী বলেন, আপনারা নিজেদের ক্ষুদ্র ও মাঝারি ব্যবসায়ী হিসেবে মনে করবেন না, আমাদের স্বপ্ন বড় থাকতে হবে। কিভাবে ব্যবসাকে আরও প্রসারিত করা যায় সেই চিন্তা থাকতে হবে। আপনাদের ই-কমার্স সংক্রান্ত সকল সযোগ-সুবিধা এসএমই ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে সরকার দেবে। 

এসএমই ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান কে এম হাবিব উল্লাহের সভাপতিত্বে সেমিনারে আরও উপস্থিত ছিলেন ফাউন্ডেশনের পরিচালনা পর্ষদের পরিচালক মো. মোশতাক হাসান, মানতাশা আহমেদ প্রমুখ। 

বাংলাদেশ সময়: ১৯১৮ ঘণ্টা, মার্চ ১৭, ২০১৯
এসএইচএস/এইচএ/

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Alexa
cache