ঢাকা, বুধবার, ২ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৭ জুলাই ২০১৯
bangla news

বিগ ডাটা-এআই বাংলাদেশের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ নয়

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০২-১১ ৭:৩০:১৬ পিএম
অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখছেন ডাক টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখছেন ডাক টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার

ঢাকা: বিগ ডাটা এবং আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্স (এআই) বাংলাদেশের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ নয় বলে দাবি করেছেন ডাক টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। দক্ষ জনশক্তি বাংলাদেশকে এআই এবং বিগ ডাটা চ্যালেঞ্জ সফলভাবে মোকাবেলা করতে সহায়তা করবে বলেও জানান মনে করেন মন্ত্রী।

সোমবার (১১ ফেব্রুয়ারি) স্বাস্থ্যখাতে বিগ ডাটা বিষয়ক এক আন্তর্জাতিক সম্মেলনের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন তিনি। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে দুই দিনব্যাপী চলমান এই আন্তর্জাতিক সম্মেলনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঘোষণা করেন মোস্তাফা জব্বার। 

তিনি বলেন, দেশের স্বাস্থ্যখাতে বিগ ডাটা বিষয়ক আন্তর্জাতিক সম্মেলন এটি প্রথম। আমরা এখন বিগ ডাটা, রোবোটিক্স, এআই নিয়ে কথা বলছি; যা সত্যিই আনন্দের ব্যাপার। বিগ ডাটা একটি চ্যালেঞ্জিং বিষয়। তবে আমি বলতে চাই যে, বিগ ডাটা আমাদের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ নয়। কারণ আমাদের খুবই দক্ষ এবং মেধাবী জনশক্তি রয়েছে। আর এমন জনশক্তি যেকোনো দেশের শ্রেষ্ঠ সম্পদ। সেই সঙ্গে আমাদের আছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মতো দক্ষ নেতৃত্ব। তাই আমরা বিগ ডাটা এবং ওয়াই এর মতো চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করে সেগুলোকে আমাদের প্রয়োজনে ব্যবহার করতে পারবো বলে আশা করি। 

পঞ্চম প্রযুক্তির মোবাইল নেটওয়ার্ক ৫জি খুব দ্রুতই আমাদের দেশে চালু করা হবে জানিয়ে মন্ত্রী আরো বলেন, আমরা আশা করছি ২০২১ থেকে ২৩ সালের মধ্যে ৫জি আমাদের দেশে চালু করবো, যা হয়তো অনেক উন্নত দেশও পারবে না। তবে এর আগেও আমরা ৫জি চালু করতে পারি। কারণ আমরা সবার থেকে এগিয়ে থাকতে চাই। প্রযুক্তিতে বাংলাদেশ বিশ্বের থেকে একদিনও পিছিয়ে থাকবে না।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্য সেবা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক প্রফেসর ড. আবুল কালাম আজাদ বলেন, স্বাস্থ্যখাতে সাগর সমান ডাটা আছে। এসব ডাটা আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স এবং বিগ ডাটা, অ্যানালাইসিসের মাধ্যমে ব্যবহার করে কাজে লাগানো যায়, যা দেশের স্বাস্থ্যখাতে আমূল পরিবর্তন আনতে পারে। দেশের স্বাস্থ্যখাতের উন্নতি কেমন হচ্ছে অথবা ভবিষ্যতের পরিকল্পনা কেমন হওয়া উচিত সে বিষয়ে তথ্য পাওয়া যাবে এই বিগ ডাটা থেকে।

সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসডিজি বিষয়ক প্রধান সমন্বয়ক আবুল কালাম আজাদ, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আসাদুল ইসলাম, পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের পরিসংখ্যান ও তথ্য বিভাগের সচিব সুরেন্দ্র নাথ চক্রবর্তী, এটুআই’র প্রজেক্ট ডিরেক্টর মোস্তাফিজুর রহমান, ইউএনডিপি বাংলাদেশের আবাসিক প্রতিনিধি সুদীপ্ত মুখার্জী এবং এটুআই’র পলিসি অ্যাডভাইজার আনির চৌধুরী।  

স্বাস্থ্যখাতে বিগ ডাটা বিষয়ক এই আন্তর্জাতিক সম্মেলনে বিশ্বের ২২টি দেশের প্রায় শতাধিক প্রতিনিধি অংশ নিচ্ছেন। সোমবার ও মঙ্গলবার দুই দিনব্যাপী সম্মেলনে পাঁচটি সেমিনার এবং একটি ভিডিও প্রদর্শনীর আয়োজন থাকছে। এসব সেমিনারে ২৩ জন দেশি-বিদেশি বিশেষজ্ঞ বক্তব্য রাখবেন। আর ভিডিও প্রেজেন্টেশন উপস্থাপন করবেন যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক টেলিনর রিসার্চের সিনিয়র ডাটা সায়েন্টিস্ট কেন্থ মনসেন। 

বাংলাদেশ সময়: ১৯২৬ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১১,২০১৯
এসএইচএস/জেডএস

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   তথ্যপ্রযুক্তি
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-02-11 19:30:16