[x]
[x]
ঢাকা, সোমবার, ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ১৯ নভেম্বর ২০১৮
bangla news

এমএনপি: তিন সপ্তাহে ৪৭ হাজার আবেদন

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-১০-২১ ৫:৩১:৪৬ পিএম
বিটিআরসির লোগো ও বিভিন্ন অপারেটরের সিম

বিটিআরসির লোগো ও বিভিন্ন অপারেটরের সিম

ঢাকা: মোবাইল নম্বর অপরিবর্তিত রেখে এক নম্বরে অন্য অপারেটরের সেবা বা এমএনপি সেবা নিতে এ পর্যন্ত ৪৭ হাজার গ্রাহক আবেদন করেছেন। তার মধ্যে সফল হয়েছেন প্রায় ২৭ হাজার। গত ১ অক্টোবর থেকে চালু হওয়ার পর সবশেষ এক প্রতিবেদনে এ তথ্য পাওয়া যায়।

এমএনপি কার্যক্রম চালুর পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রোববার (২১ অক্টোবর) গণভবনে এই সেবার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেছেন। অনুষ্ঠানে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, বিটিআরসির চেয়ারম্যান জহুরুল হক, টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব শ্যাম সুন্দর সিকদার এসময় উপস্থিত ছিলেন।
 
একই দিন বিটিআরসির করা এক প্রতিবেদনে দেখা যায়, এমএনপি সেবা নেওয়ার জন্য ১৮ অক্টোবর পর্যন্ত মোট আবেদন করেছেন ৪৭ হাজার ৯০ জন গ্রাহক। এরমধ্যে সফল হয়েছে ২৬ হাজার ৮১৭টি, বাধাগ্রস্ত হয়েছে ২০ হাজার ২৫৫টি এবং অপেক্ষাধীন রয়েছে ১৮টি আবেদন।
 
প্রতিবেদন অনুযায়ী, রাষ্ট্রায়ত্ত অপারেটর টেলিটকে আসার জন্য গ্রামীণফোনের ১২৩ জন, রবির ১৪০ জন, বাংলালিংকের ৭১ জনসহ মোট ৩৩৪ জন আবেদন করেন।
 
গ্রামীণফোনের সেবা নিতে টেলিটকের ৪৬ জন, রবির ২ হাজার ৬৪৩ জন, বাংলালিংকের ১ হাজার ৩৫২ জনসহ মোট ৪ হাজার ৪১ জন আবেদন করেছেন।
 
রবিতে আসতে টেলিটকের ১৬৫ জন, গ্রামীণফোনের ৯ হাজার ২৫৮ জন, বাংলালিংকের ৭ হাজার ৪৯৩ জনসহ মোট ১৬ হাজার ৯১৬ জন গ্রাহক আবেদন করেছেন।
 
বাংলালিংকের সেবা পেতে টেলিটকের ৪১ জন, গ্রামীণফোনের ২ হাজার ২৯৫ জন, রবির ৩ হাজার ১৯০ জনসহ মোট ৫ হাজার ৫২৬ জন গ্রাহক আবেদন করেছেন।
 
অন্যদিকে, টেলিটকে আসতে বাধাগ্রস্ত হয়েছেন ১৩১ জন, গ্রামীণফোনে ২ হাজার ৬৩১ জন, রবিতে ১৩ হাজার ৪০৬ জন ও বাংলালিংকে ৪ হাজার ৮৭ জন।
 
এমএনপি সেবা পেতে একজন গ্রাহককে কাঙ্ক্ষিত অপারেটরের নতুন সিম ও এমএনপি চার্জ বাবদ ১৫৭ টাকা ৫০ পয়সা গুনতে হচ্ছে। এরমধ্যে এমপি চার্জ ৫০ টাকা ও ভ্যাট ৭ টাকা ৫০ পয়সা। আর সিম ক্রয় বাবদ গ্রাহককে ১০০ টাকা দিতে হচ্ছে।
 
গ্রাহককে কাঙ্খিত অপারেটরের সেবা কেন্দ্রে গিয়ে নির্দিষ্ট ফি প্রদান ও পুরনো সিম বদল করে নতুন সিম নিতে হবে। এমএনপি সেবা পেতে আবেদনের ৭২ ঘণ্টার মধ্যে সেবা চালু হলে পরবর্তী ৯০ দিন তিনি অপারেটর পরিবর্তন করতে পারবেন না।
 
এদিকে অপারেটর ও গ্রাহকরা এমএনপি সেবা নিতে খরচ কমানোর দাবি জানিয়ে আসছিলেন।
 
ইনফোজিলিয়ন টেলিটেক বিডি এমএনপি সেবা দিচ্ছে। এমএনপি সেবা নিয়ে একজন গ্রাহক কাঙ্ক্ষিত অপারেটরের ভয়েস ও ডাটা সেবা গ্রহণ করতে পারবেন।
 
গত বছরের ৩০ নভেম্বর বাংলাদেশ ও স্লোভেনিয়ার যৌথ কনসোর্টিয়াম ইনফোজিলিয়ন বিডি টেলিটেককে মোবাইল অপারেটরদের মাধ্যমে দেশে এমএনপি সেবা দেওয়ার লক্ষ্যে লাইসেন্স দেওয়া হয়।
 
বাংলাদেশ সময়: ১৭২৩ ঘণ্টা, অক্টোবর ২১, ২০১৮
এমআইএইচ/এএ

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache