ঢাকা, শনিবার, ৬ বৈশাখ ১৪৩১, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ১০ শাওয়াল ১৪৪৫

তথ্যপ্রযুক্তি

সেরা স্মার্টফোনের কাতারে এগিয়ে ১০৮ মেগা পিক্সেলের রিয়েলমি সি৬৭

নিউজ ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৬ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০২৪
সেরা স্মার্টফোনের কাতারে এগিয়ে ১০৮ মেগা পিক্সেলের রিয়েলমি সি৬৭

স্মার্টফোনের বাজার কাঁপাতে এবার তবে এসেই গেল রিয়েলমি সি৬৭! বাংলাদেশের বাজারে এই স্মার্টফোন উন্মোচনের মাধ্যমে নতুনভাবে নিজের অস্তিত্ব জানান দিয়েছে তরুণদের জনপ্রিয় স্মার্টফোন ব্র্যান্ড রিয়েলমি। এবার, আমরা এনেছি ব্র্যান্ডের সি-সিরিজের সর্বাধুনিক প্রযুক্তির এই ডিভাইসটি।

নির্ভরযোগ্যতা ও গুণগত মান- গ্রাহকদের এই শীর্ষ চাহিদাগুলো পূরণে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ রিয়েলমি তাই স্মার্টফোনের বাজারে নিয়ে এলো এই অনন্য ফিচার সমৃদ্ধ স্মার্টফোনটি। অসাধারণ ক্যামেরা আর শক্তিশালী প্রসেসর- সেগমেন্টের এসব সেরা ফিচার প্রথম ব্যবহারেই প্রযুক্তি-প্রেমী তরুণদের দেবে এক অনন্য অভিজ্ঞতা।  

সি-সিরিজের প্রথম শক্তিশালী ১০৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা ও ইন-সেন্সর জুমের দ্বৈত রসায়ন!

প্রথম যখন রিয়েলমি সি৬৭ ফোনটি আমি হাতে নিই, এর ক্যামেরার সক্ষমতা, বিশেষ করে এত শক্তিশালী ও হাই-কোয়ালিটির ক্যামেরা দেখে তো আমি পুরোই হতবাক হয়ে গিয়েছি! কেননা এই সেগমেন্টের এটাই প্রথম ডিভাইস, যাতে রয়েছে ৩এক্স ইন-সেন্সর জুমসহ সবচেয়ে বেশি রেজোল্যুশন অর্থ্যাৎ ১০৮ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা। এছাড়া, ডিজিটাল জুমের তুলনায় ইন-সেন্সর জুম প্রযুক্তির মাধ্যমে আরও উন্নত মানের ছবি তোলা সম্ভব।

রিয়েলমি’র প্রতিযোগী স্মার্টফোন প্রতিষ্ঠানগুলোর বাজারে আনা নতুন কিছু ডিভাইসে সামনে থেকে হয়তো একই ধরনের ক্যামেরা সেটআপ দেখা যেতে পারে, তবে তাদের ডিজিটাল জুমের ক্যামেরায় তোলা ছবির সঙ্গে রিয়েলমি সি৬৭ এর ইন-সেন্সর জুম ক্যামেরায় তোলা ছবি পাশাপাশি রাখলেই আসল তফাতটা চোখে পড়বে যে কারোরই! ৩এক্স ইন-সেন্সর জুম প্রযুক্তি ব্যবহার করে সহজেই অনিন্দ্য সুন্দর ছবি তোলা সম্ভব, যা অন্যান্য ডিভাইসে সাধারণভাবে ব্যবহৃত ডিজিটাল জুমের ক্যামেরায় তোলা যাবে না। এতক্ষণ তো বললাম দিনের আলোতে ছবি তোলার কথা। আমরা রাতের বেলায়ও বাইরে ছবি তুলে এর পার্থক্য ধরার চেষ্টা করেছি। এবারও অবাক হওয়ার পালা! কেননা এই সেগমেন্টে প্রতিযোগী ডিভাইসগুলোর তুলনায় সি৬৭- এ তোলা রাতের ছবিগুলো ছিল কম নয়েজি, এমনকি অন্যান্য ডিভাইসের তুলনায় বেশ উজ্জ্বল ছবি তোলা গেছে। বোঝাই যায়, উন্নত ক্যামেরা প্রযুক্তিতে বেশ ভালো রকমের বিনিয়োগ করেছে জনপ্রিয় এ স্মার্টফোন ব্র্যান্ডটি। ফলাফলও তাই পাচ্ছে হাতেনাতে!

সামাজিক যোগযোগ মাধ্যমে ছবি শেয়ার করতে কে না ভালোবাসে? এজন্য আমি কিছু সুন্দর পোট্টেট শট নিতে এই ডিভাইসের ৩এক্স পোট্টেট ফিচারটি ব্যবহার করেছি। লক্ষ্য করলাম, গভীরতা আর স্বচ্ছতার অপূর্ব সংমিশ্রণ ঘটেছে ছবিগুলোতে! পুরো ইমেজ কোয়ালিটিতে এক ধরনের ন্যাচারাল-লুকিংয়ের আবহ তৈরি হয়েছে।  

প্রথমবার স্ন্যাপড্রাগন প্রসেসর ব্যবহারের রোমাঞ্চকর অভিজ্ঞতা

প্রথমবারের মতো রিয়েলমি সি৬৭ ডিভাইসটি হাতে নেওয়ার পর এটা বলাই যায় যে, এই স্মার্টফোনের পারফরম্যান্স অসাধারণ! এজন্য সিরিজে এই প্রথম ব্যবহৃত স্ন্যাপড্রাগন ৬৮৫ চিপসেটটিকে ধন্যবাদ দিতে হয়। মাল্টিটাস্কিংয়ের কথা বলুন বা গভীর মনোযোগে গেম খেলা- সি৬৭ এর স্ন্যাপড্রাগন প্রসেসরটি স্মার্টফোনপ্রেমীকে নিশ্চয়তা দেয় একটি মসৃণ ও ঝামেলাহীন ইউজার এক্সপেরিয়েন্সের। স্মার্টফোন গ্রাহকদের নির্ভরযোগ্য ও উন্নত মানের অভিজ্ঞতা প্রদানের প্রতিশ্রুতি পূরণের প্রতিফলন দেখা যায় রিয়েলমির নতুন এই স্মার্টফোনে স্ন্যাপড্রাগন চিপসেট অন্তর্ভুক্ত করার সিদ্ধান্তে। যদিও বাজার ঘুরলে প্রতিযোগী প্রতিষ্ঠানগুলোর এমন অনেক ফোন পাওয়া যাবে, যেখানে ইতোমধ্যে স্ন্যাপড্রাগন ৬৮৫ প্রসেসরটি ব্যবহার করা হয়েছে। তবে একটু লক্ষ্য করলেই বুঝতে পারবেন, রিয়েলমি সি৬৭ এ ব্যবহৃত প্রসেসর অন্যান্য ফোনের তুলনায় প্রায় ১৫% বেশি উন্নত ক্রায়ো সিপিইউ পারফরম্যান্স প্রদর্শন করে, যা অন্য ফোনগুলোতে আপনি পাবেন না। এই বাড়তি প্রসেসসিং সক্ষমতা তরুণ স্মার্টফোনপ্রেমীদের দেয় একটি নির্বিঘ্ন ইউজার এক্সপেরিয়েন্স। আর এটাই বাজারের অন্যান ফোন থেকে সহজেই রিয়েলমি সি৬৭ সিরিজটিকে আলাদা করে তোলে!

স্মার্টফোন ডিভাইসের জন্য ব্যবহৃত বিশ্বের জনপ্রিয় বেঞ্চমার্কিং অ্যাপ আনটুটু বেঞ্চমার্ক- এর ৩ লাখ ৩০ হাজারেরও বেশি স্কোর পেয়ে এই প্রসেসরটি বিভিন্ন কাজ ও ব্যবহার ভেদে বিভিন্ন পরিস্থিতিতে মসৃণ কর্মক্ষমতা নিশ্চিত করে।


মাথা ঘুরিয়ে দেওয়ার মতো লুকে এসেছে ব্র্যান্ড নিউ রিয়েলমি সি৬৭

এতক্ষণ তো বললাম ক্যামেরা আর প্রসেসরের অনন্য পারফরম্যান্সের কথা। এবার আসি ফোনের লুকে। হাতে নেওয়ার পরপরই একটি দারুণ অনুভূতি দেয় মসৃণ ও আল্ট্রা-স্লিম ডিজাইনের রিয়েলমি সি৬৭। ফলে মাত্র ৭.৫৯ মিলিমিটার পুরুত্বের এমন ফোনের ডিজাইনে মুগ্ধ না হয়ে কোনো উপায় নেই স্মার্টফোনপ্রেমীদের। বছর না ফুরোতেই স্মার্টফোনের বাজারে প্রতিযোগিতার হিড়িক লেগে যায়। অনেক সময় দেখতে একই রকম হলেও অনেক স্মার্টফোনের অরিজিনাল টাচটাই পাওয়া যায়না। তবে রিয়েলমি সি৬৭ এক্ষেত্রে ব্যতিক্রম। লুকের পাশাপাশি এই ডিভাইস স্মার্টফোন ব্যবহারকারীকে পাতলা ফোনটিকে ধরে রাখার আরামদায়ক অনুভূতির এক অনন্য অভিজ্ঞতা প্রদান করে। সানি ওয়েসিস ও ব্ল্যাক রক- এই দুটি আকর্ষণীয় ডিজাইনে রিয়েলমি সি৬৭ ডিভাইসটি বাজারে আনা হয়েছে, যাতে স্মার্টফোনপ্রেমীরা পায় চমৎকার একটি ডিভাইস ব্যবহারের সুযোগ!

স্মুদ কার্ভিং ডিজাইনের মাধ্যমে ফোনটি এমনভাবে তৈরি করা হয়েছে, গ্রাহক এটি সহজেই হাতের রেখে আরামে কাজ চালিয়ে নিতে পারবেন। সব মিলিয়ে এর স্লিম প্রোফাইল ডিভাইসটিকে এক অনন্য মাত্রা দিয়েছে। স্টাইল ও কার্যক্ষমতার এক অনন্য সংমিশ্রণ রিয়েলমি সি৬৭ কে একটি সত্যিকারের চিত্তাকর্ষক ফোন হিসেবে উপস্থাপন করে। এই স্মার্টফোন নিয়ে যেখানেই যান না কেন, এর নজরকাড়া ডিজাইন থেকে কারো চোখ ফেরানোই কঠিন হবে।  

দূষণের এই শহরে নিশ্চিন্তে ফোন চালাতে আইপি ৫৪ সার্টিফিকেশনের মাধ্যমে সি-সিরিজে এই প্রথম পানি ও ধুলা-প্রতিরোধী স্মার্টফোন এনেছে তরুণদের জনপ্রিয় ব্র্যান্ড রিয়েলমি। ধুলাবালি প্রতিরোধের ক্ষেত্রে রিয়েলমি সি৬৭ সিরিজটি পঞ্চম পর্যায়ে রয়েছে। এর মানে হলো, স্মার্টফোনটির পারফরম্যান্সের ক্ষেত্রে ধুলাবালি কোনো নেতিবাচক প্রভাবই ফেলতে পারবে না। এছাড়া, পানি প্রতিরোধের ক্ষেত্রে এটি রয়েছে চতুর্থ পর্যায়ে। যাতে এটা স্পষ্ট যে, পানির ছিটে লাগলেও স্মার্টফোনটি নিয়ে আপনি থাকতে পারেন পুরোপুরি চিন্তামুক্ত!

স্টোরেজ বাঁচাতে কোন ছবিটা রেখে কোন ছবিটা ডিলিট করবেন, তাই ভাবছেন? সমস্যার সমাধান রয়েছে রিয়েলমি সি-সিরিজের এই নতুন স্মার্টফোনটিতে। এতে র‌্যাম ব্যবহার করা যাবে ৮ জিবি পর্যন্ত। তাতেও হচ্ছে না? তাহলে ডিআরই (ডায়নামিক র‌্যাম এক্সপেনশন) প্রযুক্তির মাধ্যমে আরও ৮ জিবি অর্থ্যাৎ মোট ১৬ জিবি স্টোরেজ সুবিধা বাড়িয়ে একটি আনন্দদায়ক অভিজ্ঞতা নিন। নানা ধরনের অ্যাপ এবং প্রচুর ছবি ও ভিডিওর সমন্বয়ে বিশাল মিডিয়া লাইব্রেরি সি৬৭ সামলাবে বিনা অভিযোগে। এটা এক ধরনের মসৃণ ও নিরবচ্ছিন্ন অভিজ্ঞতা, যেখানে আমি আমার সকল অ্যাপ ও ছবি রাখার জন্য পর্যাপ্ত জায়গা পাচ্ছি। ১২৮ জিবি রমের বিশাল মেমরি ইউজারকে কোনো চিন্তা ছাড়াই নিজের স্মৃতিগুলোকে সংরক্ষণ করে রাখার সুবিধা দেয়। আর তরুণ-প্রাণোচ্ছল স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের বেলায় তো এই সুযোগটা একেবারেই পোয়া বারো!

রিয়েলমি সি৬৭ এর চার্জিং সক্ষমতা দেখে তো আমি একেবারেই বাকরুদ্ধ হয়ে গেছি! এর জন্য ডিভাইসটির দ্রুততম চার্জিং প্রযুক্তি ৩৩ ওয়াট সুপারভুকের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করতে হয়। মাত্র ২৬ মিনিটে ব্যবহারকারী ৫০% পর্যন্ত একটি সন্তোষজনক চার্জিং অভিজ্ঞতা পাবেন। এর সঙ্গে রয়েছে ৫০০০ এমএএইচ এর শক্তিশালী ব্যাটারি, যা বাড়তি ব্যবহারের পরও স্মার্টফোন ব্যবহারকারীকে দেয় দীর্ঘতম সময়ের পাওয়ারের নিশ্চয়তা।

তরুণদের জনপ্রিয় স্মার্টফোন ব্র্যান্ড রিয়েলমি এনেছে সেগমেন্টের সবচেয়ে উজ্জ্বল ৬.৭২-ইঞ্চি এফএইচডি+ ডিসপ্লে, যাতে রয়েছে ৯৫০ নিট পর্যন্ত উজ্জ্বলতা এবং ৯১.৪% স্ক্রিন-টু-বডি রেশিওর অনন্য সংমিশ্রণ, যা স্মার্টফোন প্রেমীদের দেবে যে কোনো আলোতে অসাধারণ দৃশ্য দেখার অভিজ্ঞতার নিশ্চয়তা। ভেজা হাতে ধরলেও স্মার্টফোনটির উদ্ভাবনী স্ক্রিন প্যাটার্ন আনলক ফিচার কাজ করে সহজেই। আরও রয়েছে মিনি ক্যাপসুল ২.০, যা ছোট ক্যাপসুলের মতো ডিজাইনের মাধ্যমে নোটিফিকেশন প্রদর্শন করে ইউজার এক্সপেরিয়েন্সকে করে তুলবে আরও আনন্দময়।

শেষ কথা

এক কথায় বলতে গেলে, রিয়েলমি’র নতুন উন্মোচন হওয়া সি৬৭ সিরিজটি একটি অনন্য ফিচার সমৃদ্ধ স্মার্টফোন, যা এই সেগমেন্টের জন্য একটি নতুন মানদণ্ড স্থাপন করেছে। নির্ভরযোগ্যতা ও গুণগতমানের ওপর গুরুত্ব দিয়ে রিয়েলমি স্মার্টফোন গ্রাহকদের একটি ইউজার-ফ্রেন্ডলি/ ব্যবহার-বান্ধব অভিজ্ঞতা প্রদানের প্রতিশ্রুতির প্রতিফলন ঘটাতে পেরেছে বলে আমি মনে করি। তাই ফোন ব্যবহারের ক্ষেত্রে যারা উন্নত ফিচার ও নির্ভরযোগ্য পারফরম্যান্স চান, তারা নির্দ্বিধায় ২২,৯৯৯ টাকার আকর্ষণীয় মূল্যের রিয়েলমি সি৬৭ ডিভাইসটি ব্যবহার করতে পারেন। নিশ্চয়তা দিয়ে বলতে পারি, আশাহত হবেন না।

*বিজ্ঞাপনবার্তা

বাংলাদেশ সময়: ২০১৬ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০২৪
এমএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।