ঢাকা, রবিবার, ১ বৈশাখ ১৪৩১, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ০৪ শাওয়াল ১৪৪৫

ভারত

আবারও কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিম

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫৩১ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২৩, ২০২১
আবারও কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিম

কলকাতা: আবারও কলকাতার মেয়র হয়েছেন ফিরহাদ হাকিম। এ নিয়ে দুবার কলকাতার মেয়রের দায়িত্ব মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তুলে দিয়েছেন ফিরহাদের হাতে।

চেয়ারপারসন হয়েছেন মালা রায় ও ডেপুটি মেয়র হয়েছেন অতীন ঘোষ।

দলের ১৩৪ জন জয়ী কাউন্সিলরদের নিয়ে বৃহস্পতিবার (২৩ ডিসেম্বর) বৈঠকে বসেছিলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। দক্ষিণ কলকাতার মহারাষ্ট্র নিবাসে দুপুর ২টায় হয় সেই বৈঠক। সেখানেই ঠিক হয় নতুন মেয়রের নাম।  

মমতা বলেন, সব জয়ী কাউন্সিলরকে ধন্যবাদ জানাই। শহরের রাজ্য পুলিশ দিয়ে যেভাবে শান্তিপূর্ণ ভোট হয়েছে তা কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে ভারতেও হয় না। এবার ৪২ শতাংশ মহিলা প্রার্থী ছিলেন। তারমধ্যে একজন পরাজিত। ১০ জন যারা পরাজিত হয়েছেন তারাও করপোরেশনের কিছু না কিছু দায়িত্ব পাবেন। আমি মনে করি সবাই তৃণমূলের কর্মী। এটা মনে রাখবেন যে সবাইকে তো দায়িত্ব দেওয়া যায় না।  

এরপরই মমতা বলেন, প্রতি ছয় মাস বাদে রিভিউ হবে। যে কাজ করবে না তার বিরুদ্ধে সরকার পদক্ষেপ নেবে। তবে সবাইকে বকাবকি করছি ভাববেন না। মনে রাখবেন প্রতি ছয় মাস পর পর আমি রিপোর্ট কার্ড নেব। আমি চাই সারা বিশ্বের মধ্যে কলকাতা বেস্ট মডেল হোক।

কলকাতার ১৪৪টি ওয়ার্ডের ভোট গণনা রোববার (২১ ডিসেম্বর) শেষ হয়েছে। এরমধ্যে ১৩৪টি ওয়ার্ডে জয়ী হয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। বিজেপি পায় তিনটি, বামফ্রন্ট ও কংগ্রেস দুটি করে এবং বাকি তিনটি ওয়ার্ডে জয়ী হয় নির্দল প্রার্থীরা। ফলে শাসকদল তৃণমূল কাকে মেয়র করেন সেটাই দেখার বিষয় ছিল। তালিকায় সাবেক মেয়র ফিরহাদ হাকিম ছাড়া আরও দুই নারী জয়ী প্রার্থীর নাম আলোচনায় আসছিল। এদিনই তা স্পষ্ট হয়ে গেল। তৃণমূল ২০১০ সালে কলকাতা করপোরেশনের ক্ষমতায় আসার পর মেয়র ছিলেন শোভন চট্টোপাধ্যায়। এরপর ২০১৫ পর ২০২১ মেয়র পদে ফিরহাদের ওপর ভরসা রাখলেন মমতা।

অপরদিকে কলকাতার পর পশ্চিমবঙ্গের বাকি জেলাগুলোতে কবে হবে পুরনির্বাচন এদিন তার ইঙ্গিত পাওয়া গেল। রাজ্য নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা যায়, বাকি জেলাগুলোর পুরসভাগুলোতে দুই দফায় নির্বাচন করার কথা। আগামী ২২ জানুয়ারি ও ২৭ ফেব্রুয়ারি রাজ্যের মোট ১১২টি পুরসভার মধ্যে ১১০টি পুরসভায় ভোট হতে পারে। রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়ের অনুমোদন না পাওয়ায় আপাতত বাকি থাকবে হাওড়া ও বালির পুরভোট। কারণ রাজ্যপাল এখনও হাওড়া পুরসভার সংশোধনী বিলে সই করেননি।

বাংলাদেশ সময়: ১৫৩০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২৩, ২০২১
ভিএস/আরবি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।