ঢাকা, শুক্রবার, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৪ মে ২০২৪, ১৫ জিলকদ ১৪৪৫

ভারত

টানা তৃতীয়বার কলকাতা তৃণমূলের

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫১০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২১, ২০২১
টানা তৃতীয়বার কলকাতা তৃণমূলের

কলকাতা: কলকাতা সিটি নির্বাচনে প্রত্যাশা মতই হয়েছে ভোটের ফলাফল।   শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত কলকাতা সিটির ১৪৪ ওয়ার্ডের মধ্যে তৃণমূল ১৩৪, বিজেপি, ৩ বামফ্রন্ট ২, কংগ্রেস ২ এবং অন্যদের দখলে গেছে ৩টি ওয়ার্ড।

যদিও নির্বাচন কমিশন এই ফলাফল চূড়ান্ত অনুমোদন দেয়নি।

তবে স্পষ্টতই বলা যায় ভোটের সংখ্যায় বা মার্জিনে কিছু হেরফের হতে পারে, তবে আসন সংখ্যা এইই থাকছে। অর্থাৎ ১৪৪টি ওয়ার্ডের মধ্যে তৃণমূল ১৩৪টি। অপরদিকে, যে বাম এবং কংগ্রেস একুশের বিধানসভা ভোটে খাতা খুলতে পারেনি তারা দুটি করে আসন পেয়েছে। তবে ভারতসহ পশ্চিমবঙ্গেও কমছে বিজেপির ইমেজ।

এদিকে ভোটের এমন ফলাফলে স্বভাবতই খুশির আমেজ বইছে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূলশিবিরে। মঙ্গলবার (২১ ডিসেম্বর) বেলা বাড়তেই তৃণমূল প্রধান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কালীঘাটের বাড়ির সামনে কর্মী-সমর্থকরা জড়ো হচ্ছেন, উৎসবে মেতেছেন, এক অকাল দোল উৎসব পালন করছেন। মুখে তাদের শ্লোগান ‘এবার খেলা হবে দিল্লিতে। ’ অর্থাৎ ২০২৪ ভারতে যে লোকসভা নির্বাচন হবে তাতে প্রধানমন্ত্রীর অন্যতম দাবিদার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

গত রোববার (১৯ ডিসেম্বর) কলকাতায় যে সিটি নির্বাচন হয়েছিল, মঙ্গলবার হয়েছে তার ভোট গণনা। এবার ১৪৪টি ওয়ার্ডের মধ্যে মোট ৯৫০ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন। সম্পূর্ণ ভোট হয়েছে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম)। কলকাতার মোট ভোটার সংখ্যা ৪০ লাখ ৪৮ হাজার ৩৫৭ জন। ১৪৪ ওয়ার্ডে ৪ হাজার ৯৫৯টি বুথে ভোট নেওয়া হয়। তাতে কলকাতা থাকলো মমতার তৃণমূলের দখলেই।

উল্লেখ্য, ২০১০ সালে প্রথম কলকাতা সিটি নির্বাচনে বিজয়ী হয় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তৃণমূল কংগ্রেস। এরপর ২০১১ সালে বাংলার মসনদ দখল করে তারা, প্রথম পশ্চিমবাংলার নারী মুখ্যমন্ত্রী হন দিদি (মমতা)। এরপর ২০১৫ সালে সিটি নির্বাচনে কলকাতার ১৪৪টি ওয়ার্ডের মধ্যে ১১৪টিতে জয় পায় তৃণমূল কংগ্রেস। সেবার বামেরা জয় পেয়েছিল ১৫টি ওয়ার্ডে, বিজেপি ৭টিতে, কংগ্রেস ৫টিতে এবং বাকি ৩টিতে জয়ী হন স্বতন্ত্র প্রার্থীরা। ফলে ২০১০, ২০১৫ ও ২০২১ টানা তিনবার কলকাতা থাকলো মমতার আঁচলে!

বাংলাদেশ সময়: ১৫১০  ঘণ্টা, ২১ ডিসেম্বর ২০২১
ভিএস/এমএমজেড

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।