ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৩ মে ২০২৪, ১৪ জিলকদ ১৪৪৫

ভারত

কলকাতায় ভোটের নামে প্রহসন, অভিযোগ বিরোধীদের

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫৩৮ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৯, ২০২১
কলকাতায় ভোটের নামে প্রহসন, অভিযোগ বিরোধীদের বেশির ভাগ বুথে এজেন্ট দিতে পারেননি বলে অভিযোগ করেছেন রাজ্য বিজেপির নেত্রী অগ্নিমিত্রা পাল

কলকাতা: কলকাতা সিটি ভোটেও এড়ানো যাচ্ছে না সহিংসতা। রোববার (১৯ ডিসেম্বর) সকাল থেকেই ভোট ঘিরে কলকাতার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষের খবর পাওয়া গেছে।

কোথাও মারধর, কোথাও বোমাবাজির অভিযোগ। একাধিক ক্ষেত্রে পুলিশের নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগ করেছেন বিরোধীরা। প্রতিবাদে সোচ্চার হয়েছেন বাম নেতাকর্মীরা। ভোটের নামে প্রহসন হচ্ছে, সে কারণে ভোট বয়কট করে পথ অবরোধ করে বিক্ষোভ জানান তারা। একই ভাবে শাসক দলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছে রাজ্য বিজেপি।

রাজ্য বিজেপির নেত্রী অগ্নিমিত্রা পাল বলেন, ভোটের দিনও রাস্তার বোমা পড়ছে, ভোটারদের ভয় দেখানো হচ্ছে—এমন পরিস্থিতিতে কোন ভদ্র বাঙালি ভোট দিতে বের হবে? কেউ চায় না ভোট দিতে গিয়ে এই সমস্যার সম্মুখীন হতে। যেখানে প্রার্থীর নিরাপত্তা নেই সেখানে সাধারণ ভোটারদের কীভাবে নিরাপত্তা থাকবে? শাসক দল তৃণমূল সামান্য সিটি ভোটেও যেভাবে রিগিং করেছে, তা আর বলে বোঝানোর দরকার নেই। ১৪৪ ওয়ার্ডে সিংহভাগ বুথেই বিজেপি এজেন্ট দিতে পারেনি। শুধু বিজেপি কেন, শাসক দল ছাড়া কোনো রাজনৈতিক দলেরই এজেন্ট নেই। এই ভোটে জয় তাদের হবে না তো কাদের হবে?

তবে এসব অভিযোগকে বিরোধীদের নাটক বলে মন্তব্য করেছেন কলকাতার সাবেক মেয়র তথা পশ্চিমবঙ্গের পরিবহনমন্ত্রী ফিরাদ হাকিম। তিনি বলেন, বিরোধীরা নাটক করছে। সব জায়গায় শান্তিপূর্ণভাবে ভোট হচ্ছে। নির্বাচন কমিশন নিরপেক্ষভাবে ভোট করছে। যথেষ্ট পুলিশ মোতায়েন আছে। নিয়ম অনুযায়ী ওয়ার্ডের বাইরের কোনো মানুষ পোলিং এজেন্ট হতে পারবে না। ওরা ইচ্ছে করে বাইরের লোককে পোলিং এজেন্ট করেছে। তাতে গণ্ডগোল বাড়ছে।

এদিকে হাওড়া জেলার উত্তরপাড়ার বিধায়ক হওয়ার পর প্রথম ভোট দিলেন অভিনেতা কাঞ্চন মল্লিক। তিনি বলেন, আমার নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, ভোটটা উৎসবের মতো পালন করতে। তাই আমি উৎসবের মতো করে ভোটটা দিতে এসেছি। প্রত্যেক জনগণের গণতান্ত্রিক অধিকার ভোট দেওয়ার এবং আমি এখানে এসে তাই লক্ষ্য করেছি। যুবসমাজ তো এই উৎসবে মেতেছে, পাশাপাশি প্রবীণরাও আনন্দে ভোট দিতে আসছেন। বিরোধীরা তো বিরোধিতা করবেন, যার খুঁটির জোর কম তারা এসব ভাবে।

কার দখলে থাকবে কলকাতা, তা জানা যাবে ২১ ডিসেম্বর ফল ঘোষণার পর। কলকাতার ভোট হচ্ছে ১৪৪টি ওয়ার্ডের ৪ হাজার ৫৯৫টি বুথে। ভোট দিচ্ছেন কলকাতার ৪৮ লাখ ৪০ হাজারের বেশি ভোটার। ৯৫০ জন প্রার্থী দলীয় প্রতীকে লড়ছেন। আর ৩৭৮ জন নির্দলীয় প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৫৩২ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৯, ২০২১
ভিএস/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।