ঢাকা, শুক্রবার, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৪ মে ২০২৪, ১৫ জিলকদ ১৪৪৫

ভারত

কলকাতার দুর্গাপূজাকে হেরিটেজ স্বীকৃতি দিল ইউনেস্কো

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১০০১ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৬, ২০২১
কলকাতার দুর্গাপূজাকে হেরিটেজ স্বীকৃতি দিল ইউনেস্কো

কলকাতা: কলকাতার মুকুটে আবার একটি আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি। কলকাতার সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যমণ্ডিত দুর্গাপূজা, জায়গা করে নিলো ইউনেস্কোর হেরিটেজ তালিকায়।

 

বৃহস্পতিবার (১৫ ডিসেম্বর) ইউনেস্কোর টুইটারে লেখা হয়েছে, সিটি অব জয় কলকাতার জন্য আনন্দের উদযাপন। কলকাতার দুর্গাপূজাকে ইউনেস্কোর মানবজীবনের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের তালিকায় স্থান দেওয়া হয়েছে।

প্যারিসে ১৩ ডিসেম্বর থেকে ১৮ ডিসেম্বর পর্যন্ত আয়োজিত হবে ইন্টার গভর্নমেন্ট কমিটির ১৬তম অধিবেশন। সেই অধিবেশনে কলকাতার দুর্গাপূজাকে ইউনেস্কোর ইনট্যানজিবল কালচারাল হেরিটেজ অব হিউম্যানিটির তালিকায় যুক্ত করা হয়েছে।

ট্যুইটে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি জানিয়েছেন, প্রত্যেক ভারতীয়ের জন্য গর্ব এবং আনন্দের বিষয়। দুর্গাপূজা আমাদের সাংস্কৃতিক ও আত্মিক বৈশিষ্টের শ্রেষ্ঠ দিকগুলোকে তুলে ধরে। আর কলকাতার দুর্গাপূজার অভিজ্ঞতা প্রত্যেকের থাকা উচিত। নিজের ট্যুইটের সঙ্গে এদিনের ইউনেস্কোর ঘোষণার অংশও জুড়ে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রীর পাশাপাশি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ট্যুইট করে এই স্বীকৃতি উদযাপন করেছেন। মমতা এদিন লেখেন, বাংলার জন্য গর্বের মুহূর্ত। সারা বিশ্বের বাঙালিদের কাছে দুর্গাপূজা উৎসবের ঊর্ধ্বে অনেক কিছু। একটা আবেগ, যা প্রত্যেককে বেঁধে রাখে। আর এখন মানবতার সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের তালিকায় প্রতিনধিত্ব করবে দূর্গাপূজা। আমাদের সবা জন্য আনন্দের মুহূর্ত।

এর আগে ২০১৩ সালে মণিপুরের কীর্তন গানকে হেরিটেজের স্বীকৃতি দিয়েছি ইউনেস্কো। ২০১৪ সালে পাঞ্জাব ঐতিহ্যবাহী পিতল এবং তামার শিল্পের জন্য হেরিটেজের স্বীকৃতি পেয়েছিল। ২০১৬ সালে ভারতীয় যোগচর্চাকে, আদি সংস্কৃতি হিসেবেও স্বীকৃতি দেওয়া হয়। ২০১৭ সালে ভারতের কুম্ভমেলা ইউনেস্কোর হেরিটেজ স্বীকৃতি পেয়েছিল। এবার সেই তালিকায় উঠল পশ্চিমবাংলার দুর্গাপুজা।

বাংলাদেশ সময়: ১০০১ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৬, ২০২১
ভিএস/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।