ঢাকা, শনিবার, ৭ কার্তিক ১৪২৮, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

ভারত

মমতা প্রার্থী হবে জেনে ভবানীপুরে প্রচার শুরু তৃণমূলের

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯৪৯ ঘণ্টা, আগস্ট ৮, ২০২১
মমতা প্রার্থী হবে জেনে ভবানীপুরে প্রচার শুরু তৃণমূলের

কলকাতা: দক্ষিণ কলকাতার ভবানীপুর বিধানসভা কেন্দ্রে এখনও উপ-নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা হয়নি। তা সত্ত্বেও ওই কেন্দ্রে তৃণমূল কংগ্রেসের উৎসাহী নেতাকর্মীরা, নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভোটের প্রচারের জন্য নিজেরাই উপ-নির্বাচনে একটি স্লোগান বানিয়ে ফেলেছে।

নতুন স্লোগানটি হলো ‘উন্নয়ন ঘরে ঘরে, ঘরের মেয়ে ভবানীপুরে’। আর তা দিয়ে সামাজিক মাধ্যমে জোর প্রচার শুরু হয়েছে। এ স্লোগান দিয়ে ছোট ছোট হোর্ডিং তৈরি হয়েছে গোটা ভবানীপুর কেন্দ্রজুড়ে।

স্লোগানটি তৈরি করেছে তৃণমূল কংগ্রেসের শাখা সংগঠন জয়হিন্দ বাহিনী। এর আগে তৃতীয়বারের জন্য তৃণমূল বঙ্গ বিজয় করেছে ‘বাংলা নিজের মেয়েকেই চায়’ স্লোগান নিয়ে। সে স্লোগানটি বানিয়েছিল ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোরের সংস্থা আইপ্যাক।  

রোববার (৮ আগস্ট) স্লোগান প্রসঙ্গে জয়হিন্দ বাহিনীর সভাপতি তথা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভাই কার্তিক বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, দিদিতো ভবানীপুরের ঘরের মেয়ে। তাই ভবানীপুরের নেতাকর্মীরা উপ-নির্বাচনের আগে এ স্লোগানকে সামনে রেখে দিদির হয়ে ভোট প্রচার করবে। কারণ দিদি ছাড়া ভবানীপুর আসনে যোগ্য প্রার্থী কেউ হতে পারেন না বলেই এখানকার কর্মীরা বিশ্বাস করেন।

ধারণা করা হচ্ছে আগস্ট মাসের শেষ সপ্তাহে উপ-নির্বাচনের দিনক্ষণ ঘোষণা হয়ে যেতে পারে। সেপ্টেম্বরের শেষ সপ্তাহে ভবানীপুরসহ ৭ বিধানসভা কেন্দ্রে উপ-নির্বাচন হতে পারে।

গত শনিবার (৭ আগস্ট) রাতেই দলের রাজ্য সভাপতি সুব্রত বক্সীর ভবানীপুরের কার্যালয় আসন্ন উপ-নির্বাচন নিয়ে এক বৈঠক হয়েছে। সেই বৈঠকে ছিলেন পরিবহণমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম ও দক্ষিণ কলকাতা জেলা তৃণমূলের সভাপতি তথা ভবানীপুরের পার্শ্ববর্তী কেন্দ্র রাসবিহারীর বিধানসভা কেন্দ্রের বিধায়ক দেবাশিস কুমারসহ নেতৃত্বরা।

২০১১ সালে মমতা বন্দোপাধ্যায় প্রথমবার মুখ্যমন্ত্রীর চেয়ারে বসলেও সেই সময়ও তিনি বিধায়ক পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেননি। পরে সুব্রত বক্সি ভবানীপুর কেন্দ্রের বিধায়ক পদ থেকে ইস্তফা দিলে ছয় মাসের মধ্যে উপ-নির্বাচনে জিতে আসেন মমতা। এরপর ২০১৬ সালেও তিনি এ কেন্দ্র থেকেই জিতে দ্বিতীয়বারের জন্য মুখ্যমন্ত্রীর চেয়ারের দায়িত্ব নেন। আর ২০২১ সালের নির্বাচনে ভবানীপুরে তৃণমূলের প্রার্থী হয়েছিলেন রাজ্যের বর্তমান কৃষিমন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়। ২৮ হাজার ভোটে জিতেও ২১ মে ভবানীপুর বিধানসভা আসন থেকে পদত্যাগ করেছেন তিনি।  

অন্যদিকে এবারই মমতা কেন্দ্র বদল করে নন্দীগ্রাম থেকে ভোটে লড়েছিলেন। হারতে হয় বিজেপি প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারীর কাছে। ফলে আরও একবার ভবানীপুরেকেই বেছে নিয়েছেন মমতা। তাই ভোটের তারিখ ঘোষণার আগেই প্রচারে নেমে পড়েছেন ওই কেন্দ্রের নেতাকর্মীরা।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৪৭ ঘণ্টা, আগস্ট ০৮, ২০২১
ভিএস/আরবি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa