ঢাকা, মঙ্গলবার, ৬ আশ্বিন ১৪২৮, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২ সফর ১৪৪৩

ভারত

সৌজন্য সাক্ষাতে মোদীর কাছে ভ্যাকসিন চাইলেন মমতা

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯৩৪ ঘণ্টা, জুলাই ২৭, ২০২১
সৌজন্য সাক্ষাতে মোদীর কাছে ভ্যাকসিন চাইলেন মমতা

কলকাতা: পূর্বঘোষিত সূচি মেনেই মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) বিকেলে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বাসভবনে পৌঁছে যান পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। তবে বৈঠকের আগে তিনি কংগ্রেসের দুই নেতা কমল নাথ ও আনন্দ শর্মার সঙ্গে বৈঠক করেছেন।

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ৩০ মিনিটের বৈঠকের পর ছাতা হাতে বৃষ্টি ভেজা দিল্লিতে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়েছিলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী।

তিনি জানান, পশ্চিমবঙ্গে তৃতীয় তৃণমূল সরকার গঠনের পর এটা ছিল প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ। সংবিধান মেনে নির্বাচনে জিতলে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করতে হয়। আমি সেটা করতেই আজ এসেছি। তবে সৌজন্য সাক্ষাতের পাশাপাশি ভ্যাকসিন বণ্টন নিয়ে আলোচনা হয়েছে বলে মমতা জানান। কেন্দ্রীয় স্তরে ভ্যাকসিন বণ্টনের সময় বাংলার জনসংখ্যার কথা মাথায় রাখার দাবি জানিয়েছেন তিনি।

মমতা বলেন, অন্যান্য রাজ্যের থেকে আমাদের রাজ্যে সংক্রমণ হার কম হলেও আমাদের আরও ভ্যাকসিনের দরকার। এই অনুরোধ আমি করেছি।

এছাড়া রাজ্যের বকেয়া মেটানোসহ একাধিক ইস্যুতে প্রায় আধঘণ্টা প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীর আলোচনা হয়েছে। এই আলোচনায় ভ্যাকসিন প্রসঙ্গের পাশাপাশি পশ্চিমবঙ্গের নাম বদল করে বাংলা করার পক্ষে দ্রুত পদক্ষেপ নিতে প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী।

তবে প্রধানমন্ত্রী মোদী কী বলেছেন সাংবাদিকরা জানতে চাইলে মমতা বলেন, তিনি কী বলেছেন, সেই কথা আমার মুখ দিয়ে বলা উচিত নয়। তিনি সবকিছু মন দিয়ে শুনেছেন, এতটুকুই বলতে পারি।

এরপর আগামী দিনে মোদীবিরোধী অন্য নেতার সঙ্গে বৈঠকের প্রসঙ্গে মমতা বলেন, আমরা সব পুরনো বন্ধুবান্ধব। এভাবেই সাক্ষাৎ করি। এবারেও তাই করব। সোনিয়াজি (সোনিয়া গান্ধী) আমাকে কাল সন্ধ্যায় ডেকেছেন। চায়ে-পে চর্চায় (চায়ের আমন্ত্রণ) আমাদের আলাপ-আলোচনা হবে।

এরপর রাষ্ট্রপতি ভবনে যাওয়ার ব্যাপারে মমতা বলেন, আমাকে বলা হয়েছে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে দেখা করার আগে আরটি-পিসিআর (করোনার বিশেষ টেস্ট)  করে আসতে হবে। যদিও আমার টিকার দুটি ডোজ সম্পন্ন। এখন আমি কোথায় এসব করব? এটা তো আমার এলাকা নয়। আমি তাই রাষ্ট্রপতির শারীরিক সুস্থতা কামনা করে একবার অনুরোধ করব, যদি আমাকে অনুমতি দেন তবে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে দেখা করবো। না হলে পরে আসব দেখা করতে।

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের পরেই অপর এক কংগ্রেস নেতা তথা আইনজীবী অভিষেক মনু সিংভির সঙ্গে বৈঠক করেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো। মনু সিংভি বর্তমানে নারদাকাণ্ডে মমতার তিন মন্ত্রীর হয়ে হাইকোর্টে আইনি লড়াই করছেন। পাঁচদিনের দিল্লি সফরের দ্বিতীয় দিন থেকেই তৎপর মুখ্যমন্ত্রী। বুধবার কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধীসহ মহারাষ্ট্রের এনসিপি নেতা শরদ পাওয়ার এবং শিবসেনার সাংসদদের সঙ্গে বৈঠক আছে মমতার। তার সঙ্গে সাক্ষাতের ইচ্ছাপ্রকাশ করেছেন উত্তর প্রদেশের সমাজবাদী পার্টির নেতা অখিলেশ যাদবও।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৩৪ ঘণ্টা, জুলাই ২৭, ২০২১
ভিএস/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa