ঢাকা, রবিবার, ৮ বৈশাখ ১৪৩১, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ১১ শাওয়াল ১৪৪৫

ভারত

আবর্জনার স্তূপে মিলল ১০৬ স্বর্ণের বার, গ্রেপ্তার ২

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৮২১ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ৪, ২০২৩
আবর্জনার স্তূপে মিলল ১০৬ স্বর্ণের বার, গ্রেপ্তার ২

কলকাতা: ভারতের পশ্চিমবঙ্গের নদীয়া এবং উত্তর ২৪ পরগনা জেলায় যৌথ অভিযান চালিয়ে ১০৬টি স্বর্ণের বার উদ্ধার করেছে ডিরেক্টরেট অফ রেভিনিউ ইন্টেলিজেন্স (ডিআরআই) এবং বিএসএফ।

বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তবর্তী এক গ্রামের একটি বাড়িতে আবর্জনার স্তূপ থেকে জব্দ করা হয় এ বিপুল পরিমাণ স্বর্ণ।

বিএসএফ জানিয়েছে, ডিআরআই -এর কাছে খবর আসে যে, ভারতীয় সীমান্ত এলাকায় অবস্থিত বিজয়পুর গ্রামের একজনের বাড়িতে বিপুল পরিমাণ স্বর্ণ লুকানো আছে। এরপরই বিএসএফের একটি দল শনিবার (২ সেপ্টেম্বর) রাতে বিজয়পুর গ্রামের সেই বাড়িতে তল্লাশি চালায়। এক ঘণ্টা তল্লাশির পর রাত ৯টা ৪০ মিনিটের দিকে নাগাদ বাড়ির ভেতরে আবর্জনার স্তূপ থেকে দুটি কাপড়ে মোড়ানো ব্যাগ উদ্ধার করে বিএসএফ। ব্যাগ খুলে সেখান থেকে নানান সাইজের মোট ১০৬ টি স্বর্ণের বার পাওয়া যায়।  

জব্দ হওয়া স্বর্ণের বারগুলির মোট ওজন ১৪.২৯৬ কেজি, যার ভারতীয় মুদ্রায় বর্তমান বাজারমূল্য আনুমানিক সাড়ে ৮ কোটি রুপি (বাংলাদেশি মুদ্রায় সাড়ে ১১ কোটি টাকা)।  

এ সময় স্বর্ণ চোরাকারবারি রবীন্দ্রনাথ বিশ্বাস ও বিধান ঘোষ নামে দুই ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করা হয়। তারা উভয়েই বিজয়পুর গ্রামের বাসিন্দা।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেপ্তার দুজন জানিয়েছেন, তারা শনিবার সকালে বাংলাদেশের নাস্তিপুর গ্রামের বাসিন্দা মাসুদ ও নাসিফ নামের দুই ব্যক্তির কাছ থেকে এই বিপুল পরিমাণ স্বর্ণ নিয়েছিলেন। বিজয়পুর গ্রামের একটি জলাধারের পাশে গেদে এলাকার গ্রামের বাসিন্দা সন্তোষ হালদারের কাছে এই স্বর্ণ তুলে দেওয়ার কথা ছিল তাদের। কিন্তু বিএসএফ সদস্যরা সতর্কতা থাকায় ওই বিপুল পরিমাণ স্বর্ণ নিজের বাড়িতে লুকিয়ে রাখেন রবীন্দ্রনাথ বিশ্বাস।  

জব্দকৃত স্বর্ণসহ গ্রেপ্তারদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য ডিআরআই দলের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে বলে জানিয়েছে বিএসএফ সূত্র।

অপরদিকে, উত্তর ২৪ পরগণা জেলার সীমা চৌকি হাকিমপুর এলাকায় ১১২ ব্যাটালিয়ন বিএসএফ সদস্যরা টহলরত অবস্থায় সীমান্ত সড়কে পড়ে থাকা একটি স্বর্ণের বার উদ্ধার করেছে। যদিও এই ঘটনায় কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি। জব্দ স্বর্ণের বারের ওজন ১১৬.৫৮০ গ্রাম এবং এর আনুমানিক মূল্য ৭ লাখ ১০ হাজার ৯৮৬ রুপি। জব্দকৃত স্বর্ণের বার তেঁতুলিয়ায় শুল্ক বিভাগের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

সাম্প্রতিককালে ভারত-বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে একসঙ্গে এত বিপুল পরিমাণ স্বর্ণ জব্দ করার ঘটনা এই প্রথম। সীমান্ত সদস্যদের এই সাফল্যে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন বিএসএফের দক্ষিণবঙ্গ সীমান্তের ডিআইজি (জনসংযোগ) এ.কে আর্য। সেইসঙ্গে ডিআরআইয়ের অবদানেরও প্রশংসা করেছেন তারা।

তিনি বলেছেন, বিএসএফ চোরাকারবারিদের প্রতিটি ঘৃণ্য কাজের বিরুদ্ধে তাদের নজরদারি আরও শক্ত করেছে। চোরাকারবারিদের প্রতি তার হুঁশিয়ারি, চোরাচালানের পথ ছেড়ে সমাজের মূল স্রোতে যোগ দিন। অন্যথায় কাউকে রেহাই দেওয়া হবে না।

এর আগে শুক্রবার (১ সেপ্টেম্বর) পশ্চিমবঙ্গের নদীয়া জেলার ফতেহপুর গ্রাম সংলগ্ন ভারত-বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক সীমান্তের কাছ থেকে ১৬টি স্বর্ণের বারসহ একজন পাচারকারীকে গ্রেপ্তার করে বিএসএফ। জব্দকৃত স্বর্ণের ওজন ১৯৮৯.১৮০ গ্রাম। মূল্য ১ কোটি ১৮ লাখ ৭৫ হাজার ৪০৫ রুপি।  

এছাড়া ২৫ আগস্ট বিএসএফের দক্ষিণবঙ্গ সীমান্তের অধীন ১৪৫ ব্যাটালিয়নের আইসিপি পেট্রাপোলে দায়িত্বপ্রাপ্ত বাহিনী ৪৫টি স্বর্ণের বারসহ একজন অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করে। জব্দকৃত স্বর্ণের ওজন ৫২৪২. ৯১০ গ্রাম এবং যার ভারতীয় মুদ্রায় বাজারমূল্য আনুমানিক ৩ কোটি ১০ লাখ রুপির বেশি।

বাংলাদেশ সময়: ০৮০০ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ৪, ২০২৩
ভিএস/এসএএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।