ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৬ মে ২০২২, ২৪ শাওয়াল ১৪৪৩

আগরতলা

বিএসএফ-বিজিবি একাধিক বৈঠক হয়েছে

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১০০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৫, ২০২২
বিএসএফ-বিজিবি একাধিক বৈঠক হয়েছে কথা বলছেন ত্রিপুরা ফ্রন্টিয়ার্সের ইন্সপেক্টর জেনারেল সুশান্ত কুমার নাথ। ছবি: বাংলানিউজ

আগরতলা, (ত্রিপুরা): ‘ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ) ২০২১ সালে ত্রিপুরার বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালিয়ে প্রায় ৩৬ কোটি রুপির মাদকদ্রব্যসহ বিভিন্ন ধরনের সামগ্রী জব্দ করতে সক্ষম হয়েছে। সেসঙ্গে প্রতিবেশি রাষ্ট্র বাংলাদেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) আধিকারিকদের সঙ্গে একাধিক বৈঠক করা হয়েছে যৌথভাবে আন্তঃসীমান্ত অবৈধ মাদক চোরাচালান পাচার বাণিজ্য প্রতিরোধ করা এবং যৌথ নজরদারি সংক্রান্ত বিষয়ে’।

 

মঙ্গলবার (২৫ জানুয়ারি) আগরতলার শালবাগান এলাকায় বিএসএফের ত্রিপুরা ফ্রন্টিয়ার হেডকোয়ার্টারে এক সংবাদ সম্মেলন এ কথা জানান ত্রিপুরা ফ্রন্টিয়ার্সের ইন্সপেক্টর জেনারেল (আইজি) সুশান্ত কুমার নাথ।

তিনি আরও বলেন, এর মধ্যে ছিল নিষিদ্ধ মাদকদ্রব্য এবং জব্দ করা সামগ্রী। যেমন: ইয়াবা, বিভিন্ন ধরনের নিষিদ্ধ কফ সিরাপ ফেনসিডিল, এসকাফ, গাঁজা, নানা ধরনের পাচার সামগ্রী এবং গবাদিপশু। গত এক বছরে বিএসএফ ৮৮ হাজার ৪১৭টি ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করেছে। ১৩ হাজার ২০৭ কেজি গাঁজা জব্দ করেছে। ৪৮ হাজার ২০০ বিভিন্ন ব্রান্ডের নিষিদ্ধ কাফ সিরাপ জব্দ করেছে, বিভিন্ন ব্র্যান্ডের মদ জব্দ করেছে ৮ হাজার ৯৩৯ বোতল। গবাদিপশু আটক করেছে মোট ২ হাজার ৪২২টি, বিভিন্ন ধরনের বেআইনি ওষুধ আটক করেছে ৪১, ৮৪, ১৩৭ রুপি। বিভিন্ন ধরনের তৈরি কাপড় এবং শাড়ি আটক করেছে ১৬ হাজার ১৬৫পিস। ১৭,৭৮,৮৩,৬৭৮ রুপির বিভিন্ন ধরনের নিষিদ্ধ সামগ্রী আটক করেছে। গত এক বছরে রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালিয়ে বিএসএফ ৪৫,০৭,০৩৯টি গাঁজা গাছ ধ্বংস করেছে।   ২০২১ সালে রাজ্যের বিভিন্ন সীমান্ত দিয়ে অনুপ্রবেশের সময় মোট ২২১ জন অনুপ্রবেশকারীকে আটক করেছে বিএসএফ। এর মধ্যে ১১৮ জন নাগরিক এবং বাকি ৯৭ জন ছিল বাংলাদেশি নাগরিক। সেসঙ্গে মোট ৩১ জন নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠনের সদস্য বিএসএফের কাছে এবছর আত্মসমর্পণ করেছে।   এছাড়াও বিএসএফ প্রতিবেশি রাষ্ট্র বাংলাদেশের বিজিবি আধিকারিকদের সঙ্গে নিয়মিত বৈঠকের আয়োজন করেছে। বিএসএফ এবং বিজিবি মধ্যে খুব ভালো সম্পর্ক রয়েছে। মূলত উভয় দেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনী যাতে মিলিতভাবে আন্তঃসীমান্ত অপরাধ নেশা সামগ্রী এবং নারী পাচার ইত্যাদি কমিয়ে আনা যায়, এজন্য যৌথ বৈঠক এবং যৌথ টহল আয়োজন করেছে। এছাড়া দুই দেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনী যৌথভাবে ভারতের স্বাধীনতার ৭৫ বছর এবং বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের ৫০ বছরপূর্তি উপলক্ষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, খেলাধুলার আয়োজন করেছে।  

ত্রিপুরা-বাংলাদেশ সীমান্তের বেশ কিছু জায়গায় কাঁটাতারের বেড়ার কাজ অসম্পূর্ণ ছিল। এগুলি দ্রুত সম্পন্ন করার জন্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে বিএসএফ। তাদের এই তৎপরতার জন্য গত এক বছরে রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় ৬টি উন্মুক্ত সীমান্তের অংশে কাঁটাতারের বেড়া নির্মাণ করা সম্ভব হয়েছে বলে এদিন জানিয়েছেন আইজি।

বাংলাদেশ সময়: ২০৩৪ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৫, ২০২২
এসসিএন/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa