ঢাকা, সোমবার, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৩ মে ২০২২, ২১ শাওয়াল ১৪৪৩

আগরতলা

ভূমি-গৃহহীনদের জমি-ঘর দেবে সরকার: মুখ্যমন্ত্রী

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১০৪ ঘণ্টা, মার্চ ২৫, ২০২১
ভূমি-গৃহহীনদের জমি-ঘর দেবে সরকার: মুখ্যমন্ত্রী মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব

আগরতলা (ত্রিপুরা): বিধানসভায় ত্রিপুরা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব বলেছেন, আগরতলা শহরে এমন কিছু লোক রয়েছে যাদের নিজস্ব জমি নেই তাদের জন্যও সরকার চিন্তা ভাবনা করছে। টুডার মাধ্যমে তাদের জায়গা দেওয়া হবে এবং এই জায়গাতে প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনার মাধ্যমে ঘর করে দেওয়া হবে।

 

বৃহস্পতিবার (২৫ মার্চ) ত্রিপুরা বিধানসভার ২০২১-২২ অর্থ বছরের বাজেট অধিবেশনের শেষ দিন প্রশ্ন উত্তর পর্বে ট্রেজারি বেঞ্চের বিধায়ক সুধাংশু দাস নগর উন্নয়ন দপ্তরের মন্ত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেবের কাছে জানতে চান রাজ্যের শহরাঞ্চলে বর্তমানে কতসংখ্যক পরিবার কাঁচা ঘরে বসবাস করছেন এবং ভারত সরকারের নির্দেশ অনুসারে রাজ্যের শহরাঞ্চলে কাঁচা ঘরে বসবাসকারী পরিবারগুলোকে কবে নাগাদ পাকা ঘর তৈরি করে দেওয়া হবে বলে আশা করা হচ্ছে? 

উত্তরে মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব বলেন, বর্তমানে রাজ্যের শহরাঞ্চলে মোট ২৯ হাজার ৩৮টি পরিবার কাঁচা ঘরে বসবাস করছে। ভারত সরকারের নির্দেশ অনুসারে শহরাঞ্চলে কাঁচা ঘরে বসবাসকারী পরিবারগুলোর মধ্যে যারা প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা ঘর পাওয়ার জন্য আবেদন করেছেন তাদের জন্য ২০২২ সালের মধ্যে পাকা ঘর নির্মাণ করার কাজ শেষ হবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

তখন বিধায়ক সুধাংশু দাস বলেন, দেখা গিয়েছে এমন অনেক লোক রয়েছে যারা একবার সরকার থেকে দেওয়া ঘর পেয়ে গিয়েছে তাদের অনেকের নাম দ্বিতীয় দফায় ঘর পাওয়ার জন্য যে তালিকা রয়েছে তার মধ্যেও উল্লেখ করা আছে। এই সকল লোকের নাম তালিকা থেকে বাদ দেওয়া এবং রাজনৈতিক রঙ বিচার না করে প্রকৃতপক্ষে যারা সরকারি ঘর পাওয়ার উপযোগী তাদের যেন ঘর দেওয়া হয়।

তখন বিধায়ক সুদীপ রায় বর্মন দাঁড়িয়ে এই বিষয়ে আরও একটি অতিরিক্ত প্রশ্ন করেন। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা যখন চালু হয়েছিল তখন সরকারি খাস জমিতে যারা বসবাস করছেন তাদেরও ঘর দেওয়া হতো। কিন্তু বর্তমানে সরকারি খাস জমিতে বসবাসকারী মানুষদের এ ধরনের ঘর দেওয়া হচ্ছে না। এইসব মানুষদের ঘর দেওয়ার বিষয়ে সরকারের কোন ধরনের চিন্তাভাবনা রয়েছে কিনা? 

তখন মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব বলেন, যারা একবার ঘর পেয়ে গিয়েছে এদের অনেকের নাম দ্বিতীয়বার সরকারি ঘর পাওয়ার তালিকা উঠে এসেছে এই বিষয়টি রাজ্য সরকারের নজরে এসেছে। যাতে এই সকল সুবিধাভোগীরা দ্বিতীয় দফায় ঘর না পান তার জন্য সরকার পদক্ষেপ গ্রহণ করছে।

অপরদিকে বিধায়ক সুদীপ রায় বর্মন এর করা প্রশ্নের উত্তরে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, যেসব পরিবারের ঘর নেই এমনকি নিজস্ব জমি নেই তাদের চিহ্নিত করে টুডার মাধ্যমে জায়গা চিহ্নিত করে এই জায়গায় তাদের জন্য প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনার মাধ্যমে ঘর করে দেওয়ার চিন্তাভাবনা সরকার করছে।

মুখ্যমন্ত্রীর এই ঘোষণার পর ট্রেজারি বেঞ্চ এর সদস্যরা করতালি দিয়ে স্বাগত জানান।  

বাংলাদেশ সময়: ২১০৪ ঘণ্টা, মার্চ ২৫, ২০২১
এসসিএন/এইচএডি/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa