ঢাকা, শুক্রবার, ৩ বৈশাখ ১৪২৮, ১৬ এপ্রিল ২০২১, ০৩ রমজান ১৪৪২

আগরতলা

আগরতলায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১১৫৯ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২১, ২০২১
আগরতলায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন আগরতলায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন

আগরতলা (ত্রিপুরা): যথাযোগ্য মর্যাদার সঙ্গে ত্রিপুরা রাজ্যজুড়ে পালিত হয়েছে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস।

রোববার (২১ ফেব্রুয়ারি) রাজ্যের মূল অনুষ্ঠানটি হয় রাজ্য সরকার ও আগরতলাস্থিত বাংলাদেশের সহকারী হাইকমিশনের যৌথ উদ্যোগে।

এদিন প্রথমে একটি শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়। শোভাযাত্রাটি রাজধানীর রবীন্দ্র শতবার্ষিকী ভবনের সামনে থেকে শুরু হয়ে শহরের বিভিন্ন রাস্তা পরিক্রমা করে আবার রবীন্দ্র ভবনের সামনে এসে শেষ হয়। এখানে ভাষা শহীদ বেদির প্রতিকৃতিতে সবাই মিলে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধার্ঘ্য নিবেদন করেন। এদিনের শোভাযাত্রায় বিভিন্ন স্কুল, কলেজ এবং সমাজের বিভিন্ন স্তরের মানুষ অংশ নেন।

এরপর রবীন্দ্র ভবনে এ উপলক্ষে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। এ সভায় উপস্থিত ছিলেন ত্রিপুরা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব, শিক্ষা দপ্তরের মন্ত্রী রতন লাল নাথ, রাজস্ব দপ্তরের মন্ত্রী এন সি দেববর্মা, আগরতলাস্থিত বাংলাদেশের সহকারী হাইকমিশনার মোহাম্মদ জোবায়েদ হোসেন প্রমুখ। এছাড়াও অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সরকারি হাইকমিশনের প্রথম সচিব মো. জাকির হোসেন ভূইয়া, ত্রিপুরা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন উপাচার্য অধ্যাপক অরুণোদয় সাহা।

এ সময় মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব বলেন, মায়ের মুখ থেকে শুনে শিশু প্রথম যে কথা বলে তাই হলো মাতৃভাষা। মাতৃভাষায় আমরা যেভাবে স্বতঃস্ফূর্ত ভাবে বলতে পারি অন্য ভাষায় সেটা হয় না। অন্য কোনো লোক যদি ভাষা না বোঝে, তবে শারীরিক ভাবভঙ্গির মধ্য দিয়ে কী বলতে চাইছে তা বুঝে নেয়। বাংলার পাশাপাশি ত্রিপুরার বর্তমান সরকার রাজ্যের জনজাতিদের ভাষাকেও গুরুত্ব দেয়। বর্তমান সরকার বাংলা ভাষার পাশাপাশি তাদের নিজস্ব ভাষায়ও চাকরির বিভিন্ন পরিক্ষা নেওয়া হচ্ছে। সরকারের এ চেষ্টার কারণে রাজ্যের জনজাতি অংশের মানুষ নিজেদের ভাষা নিয়ে গর্ববোধ করে। ’

মাতৃভাষার সম্মান ও তাকে কার্যক্ষেত্রে বাস্তবায়িত করার আহ্বান জানান মুখ্যমন্ত্রী।

অপরদিকে, সহকারী হাইকমিশনার মোহাম্মদ জোবায়েদ বাংলা ভাষার ঐতিহ্য গুরুত্ব তুলে ধরেন। সেই সঙ্গে এদিনের তাৎপর্য তুলে ধরেন। পাশাপাশি যৌথভাবে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করার জন্য সবাইকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।

সবশেষে ত্রিপুরা রাজ্যের ১৯টি জনজাতিগোষ্ঠী প্রতিনিধিরা তাদের চিরাচরিত পোশাক পড়ে মঞ্চে আসেন এবং আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে নিজেদের ভাষায় শুভেচ্ছা জানান।

আগরতলার পাশাপাশি রাজ্যের অন্য জেলায়ও সরকারি এবং বেসরকারি উদ্যোগে উদযাপিত হয় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস।

বাংলাদেশ সময়: ১১৫৮ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২১, ২০২১
এসসিএন/এফএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
welcome-ad
Alexa