ঢাকা, বুধবার, ২১ শ্রাবণ ১৪২৭, ০৫ আগস্ট ২০২০, ১৪ জিলহজ ১৪৪১

আগরতলা

আগরতলায় অনুষ্ঠিত হলো ৭১তম রাজ্যভিত্তিক বনমহোৎসব

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০৭-০৪ ০৩:৪৪:০৬ পিএম
আগরতলায় অনুষ্ঠিত হলো ৭১তম রাজ্যভিত্তিক বনমহোৎসব ছবি: বাংলানিউজ

আগরতলা (ত্রিপুরা): আগরতলায় অনুষ্ঠিত হলো ৭১তম ত্রিপুরা রাজ্যভিত্তিক বনমহোৎসব। শনিবার (৪ জুলাই) রাজধানীর নিউক্যাপিটাল কমপ্লেক্সস্থ মহাকরণের বাইরে অনুষ্ঠিত হয় উৎসবটি। 

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ত্রিপুরা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব, ত্রিপুরা সরকারের বন দফতরের মন্ত্রী মেবার কুমার জমাতিয়া, বন দফতরের প্রিন্সিপ্যাল সেক্রেটারী বরুন কুমার সাহু প্রমুখ।  

অনুষ্ঠানের শুরুতে উপস্থিত অতিথিরা একটি করে গাছের চারা রোপণ করেন।

এরপর বন এবং বনজ সম্পদ সম্পর্কিত নতুন একটি ওয়েবসাইটের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব। এই ওয়েবসাইটে ত্রিপুরা রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় বনদফতরের যে সকল অফিস চারা উৎপাদন কেন্দ্র রয়েছে তার তথ্য পাওয়া যাবে। এমনকি অনলাইনের মাধ্যমে বৃক্ষপ্রেমীরা এই ওয়েবসাইট থেকে চারা অর্ডার করতে পারবেন।

করোনা মহামারির কারণে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ক্ষুদ্র পরিসরে অনুষ্ঠানটির আয়োজন করা হয়।

.মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব অনুষ্ঠান শেষে সংবাদমাধ্যমকে বলেন, বর্তমান সরকার যে পরিমাণ বৃক্ষ রোপণ করছে তার সম্পূর্ণ তথ্য রাখছে। এমনকি প্রতিবছর যে সকল গাছ লাগানো হয়েছে সেগুলি কি অবস্থায় রয়েছে তার তথ্য রাখা হচ্ছে। সবচেয়ে খুশির যে বিষয়টা হলো, প্রতিবছর যে পরিমাণে গাছ লাগানো হচ্ছে বর্তমানে তার নব্বই শতাংশের বেশি গাছ জীবিত রয়েছে।  

আগে বছর বছর গাছ লাগালেও তার ৫০ থেকে ৬০শতাংশের বেশি বাঁচানো যেত না। কিন্তু এখন বন দফতরের চেষ্টায় তা অনেকগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। এজন্য মুখ্যমন্ত্রী ত্রিপুরা সরকারের বনদফতরের মন্ত্রী মেবার কুমার জমাতিয়াসহ সকল স্তরের বনকর্মীদেরকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।

অনুষ্ঠান শেষে উপস্থিত সাধারণ মানুষদের মধ্যে বন দফতরের ফুলের গাছ, ঔষধি গাছ ও বহু মূল্যবান গাছ বিনামূল্যে বিতরণ করা হয়।

বাংলাদেশ সময়: ১৫৪৪ ঘণ্টা, জুলাই ০৪, ২০২০
এসসিএন/এমএইচএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa