ঢাকা, রবিবার, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ১২ রবিউস সানি ১৪৪২

আগরতলা

ত্রিপুরায় লকডাউনের পর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার পরিকল্পনা

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০৫৯ ঘণ্টা, জুলাই ১, ২০২০
ত্রিপুরায় লকডাউনের পর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার পরিকল্পনা

আগরতলা (ত্রিপুরা): করোনা ভাইরাসের জেরে ভারত জুড়ে যে লকডাউন ঘোষণা করা হয় ধীরে ধীরে তা শিথিল করা হচ্ছে। এর প্রেক্ষিতে আগামী দিনে ত্রিপুরা রাজ্যের স্কুল, কলেজসহ অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলিকে আবার চালু করার পরিকল্পনা নিচ্ছে।

স্কুল-কলেজসহ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার বিষয়ে সমাজের বিভিন্ন স্তরের মানুষের মতামত জানতে বুধবার (১জুলা) ত্রিপুরা সরকারের শিক্ষা দফতর এক বৈঠকের আয়োজন করে। ত্রিপুরা সরকারের শিক্ষা দফতর'র উদ্যোগে আয়োজিত এই বৈঠকের পৌরহিত্য করেন শিক্ষামন্ত্রী রতন লাল নাথ।

এদিন বৈঠকে শিক্ষা দফতরের মন্ত্রী ছাড়াও ত্রিপুরা সরকারের সমাজকল্যাণ ও সমাজ শিক্ষা দফতরের মন্ত্রী সান্তনা চাকমা ত্রিপুরা সরকারের শিক্ষা দফতরের সাবেক মন্ত্রী তপন চক্রবর্তী, ছাত্রছাত্রীদের অভিবাবকদের পক্ষে মোট ৬জন প্রতিনিধি, রাজ্যের বিভিন্ন ছাত্র সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, শিক্ষক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, স্বাস্থ্য দফতরের কর্মকর্তা, ত্রিপুরা মধ্যশিক্ষা পর্ষদের সাবেক সভাপতি এবং বর্তমান সভাপতি, কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলির প্রতিনিধি, সমাজের বৃদ্ধিজীবী অংশের প্রতিনিধি, সমাজ শিক্ষা দফতরের প্রতিনিধি, শিশু অধিকার রক্ষা কমিশনের প্রতিনিধি প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

দীর্ঘ প্রায় ৫ ঘণ্টার বেশি সময় ধরে এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠক শেষে এদিন সন্ধ্যায় ত্রিপুরা সরকারের শিক্ষা দফতর'র মন্ত্রী রতন লাল নাথ সংবাদ মাধ্যমকে জানান বৈঠকে উপস্থিত সকলেই তাদের মতামত দিয়েছেন লকডাউন পরবর্তী সময়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো পুনরায় চালু করার বিষয়ে। তবে সকলের বক্তব্যে উঠে এসেছে সবার আগে ছেলেমেয়েদের সুরক্ষিত রাখার বিষয়টি। সরকার যেন ছাত্র-ছাত্রীদের সুরক্ষার বিষয়ে গুরুত্ব রেখে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেয়। অনেকে আবার পরামর্শ দিয়েছেন যদি ছাত্র-ছাত্রীদের একটি বছর নষ্ট হয় তা হলেও চিন্তা করার কোনো কারণ নেই সবচেয়ে প্রথম দেশের ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে বাঁচিয়ে রাখার বিষয়টিকে গুরুত্ব দিতে হবে। পাশাপাশি তারা লন্ডনের সময় রাজ্য সরকার যে অনলাইনে ক্লাস চালু করেছে এই ব্যবস্থার জন্য ধন্যবাদ জানিয়েছে। তবে কিছু কিছু ক্ষেত্রে ইন্টারনেট সমস্যাসহ অন্যান্য সমস্যা থাকলেও অনলাইন ব্যবস্থাকে আগামী দিনেও চালিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন।

সবার পরামর্শ বিবেচনা করে পরবর্তী সময় সরকার সিদ্ধান্ত নেবে কবে থেকে রাজ্যে আবার স্কুল কলেজ খোলা যায় এই বিষয়টি নিয়ে। তবে এদিন স্কুল-কলেজ আবার চালু করা দিনক্ষণ নির্ধারণ না হলেও আগামী দিনে স্কুল চালু করার পর সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে কটন পাটন চালিয়ে যাওয়ার বিষয়ে সকলে পরামর্শ দিয়েছেন বলেও জানান শিক্ষামন্ত্রী।

বাংলাদেশ সময়: ২০৫৯ ঘন্টা, জুলাই ০১, ২০২০
এসসিএন/এমএমএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa