ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯, ১১ আগস্ট ২০২২, ১২ মহররম ১৪৪৪

আগরতলা

নির্মাণাধীন আখাউড়া-আগরতলা রেলপথ পরিদর্শনে পরিবহনমন্ত্রী

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫১২ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৩০, ২০১৭
নির্মাণাধীন আখাউড়া-আগরতলা রেলপথ পরিদর্শনে পরিবহনমন্ত্রী আখাউড়া-আগরতলা রেলপথ পরিদর্শন করে ত্রিপুরার পরিবহনমন্ত্রী মানিক দে। ছবি: বাংলানিউজ

আগরতলা: ত্রিপুরা রাজ্যের রাজধানী আগরতলা থেকে বাংলাদেশের আখাউড়ার মধ্যে নির্মাণাধীন রেলপথের কাজ পরিদর্শন করেছেন রাজ্যের পরিবহন মন্ত্রী মানিক দে।

শনিবার (৩০ ডিসেম্বর) আগরতলা রেলস্টেশনে পৌঁছে মন্ত্রী প্রথমে উত্তরপূর্ব সীমান্ত রেলওয়ে এবং রেলের নির্মাণ সংস্থা ইরকন’র কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেন।

এরপর যান আগরতলা রেলওয়ে স্টেশন সংলগ্ন সিদ্ধি আশ্রম এলাকায়; যেখান থেকে রেলপথ নির্মাণের কাজ ঘুরে দেখা শুরু করেন তিনি।

 

প্রথমে মন্ত্রী রেল স্টেশন থেকে বাংলাদেশ সীমান্তের নিশ্চিন্তপুর সীমান্ত পর্যন্ত ভারতীয় অংশের প্রায় ৫ কিলোমিটার দীর্ঘ রেলপথের পুরোটাই ঘুরে দেখেন।  

নকশার সঙ্গে কাজের গতি প্রকৃতির খোঁজ-খবর নেন মন্ত্রী। পরিদর্শন শেষে তিনি জানান, আগরতলা-আখাউড়া রেলপথের ভারতীয় অংশের জমি অধিগ্রহণের কাজ শেষ। এখন মাটি ফেলার কাজ চলছে। ভারতীয় অংশের পাঁচ কিলোমিটারের মধ্যে সাড়ে তিন কিলোমিটার হবে ফ্লাইওভারের ওপর দিয়ে।  

এ জন্য ১৫৭টি পিলার নির্মাণ করা হবে বলে জানান মানিক দে।  

ত্রিপুরার পরিবহন মন্ত্রী বলেন, এরই মধ্যে প্রয়োজনীয় পরীক্ষা-নিরীক্ষার কাজ শুরু হয়েছে। আশা করছি ২০১৯ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে নির্দিষ্ট সময়েই কাজ শেষ হবে।  

পরিদর্শনকালে মন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন- ত্রিপুরার পশ্চিম জেলার অতিরিক্ত জেলা শাসক তমাল মজুমদার, সদর মহকুমার মহকুমা শাসক সমিত রায় চৌধুরীসহ উত্তরপূর্ব সীমান্ত রেল ও রেলের নির্মাণ শাখা ইরকন’র কর্মকর্তারা।

উত্তর-পূর্ব ভারতে এটাই প্রথম কোনো আন্তর্জাতিক প্রকল্প।  এর মোট দৈর্ঘ্য ১৫ কিলোমিটার। ভারতীয় অংশে পড়েছে ৫ কিলোমিটার ও বাংলাদেশের অংশে ১০ কিলোমিটার।  

বাংলাদেশ সময়: ২১০৫ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৩০, ২০১৭
এসসিএন/এমএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa