ঢাকা, শুক্রবার, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৪ মে ২০২৪, ১৫ জিলকদ ১৪৪৫

আগরতলা

বাংলাদেশ ও ত্রিপুরার মধ্যে আরো ২ রেল সংযোগ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩০৯ ঘণ্টা, মার্চ ২৩, ২০১৭
বাংলাদেশ ও ত্রিপুরার মধ্যে আরো ২ রেল সংযোগ বাংলাদেশ ও ত্রিপুরার মধ্যে আরো ২ রেল সংযোগ

আগরতলা: আগরতলা-আখাউড়ার পাশাপাশি আরও দুটি স্থান দিয়ে ত্রিপুরা ও বাংলাদেশের মধ্যে রেল যোগাযোগের পরিকল্পনা রয়েছে ভারতীয় রেলওয়ের। এই দুটি জায়গা হলো ত্রিপুরার বিলোনিয়া ও বাংলাদেশের ফেনী এবং ত্রিপুরার খোয়াই ও বাংলাদেশের শায়েস্তা গঞ্জ।

রাজ্যের একেবারে প্রান্তিক শহর সাব্রুম পর্যন্ত রেলপথ আগামী বছরের জানুয়ারি মাসের মধ্যে পৌঁছে যাবে। সেখান থেকে সড়ক পথে বাংলাদেশের চট্টগ্রাম বন্দরের সঙ্গে যোগাযোগ হবে।

এই দুটি প্রকল্পের জরিপের অনুমোদন ইতোমধ্যে শেষে হয়েছে।

দু’দিনের ত্রিপুরা সফরের দ্বিতীয় দিন বৃহস্পতিবার (২৩ মার্চ) ভারত সরকারের রেলওয়ে মন্ত্রকের রাষ্ট্রমন্ত্রী রাজেন গোসাই রাজ্য অতিথিশালায় উত্তরপূর্ব সীমান্ত রেলওয়ে (এনএফআর) আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান।

এর আগে সকালে ত্রিপুরার রাজ্যপাল এবং দুপুরে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকার ও ত্রিপুরার পরিবহন দফতরের মন্ত্রী মানিক দে’র সঙ্গে বৈঠক করেন রাজেন গোসাই।
বাংলাদেশ ও ত্রিপুরার মধ্যে আরো ২ রেল সংযোগ
ত্রিপুরা রাজ্যের রেলওয়ে ব্যবস্থা উন্নয়নের জন্য বিশেষ পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে জানিয়ে রাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আগরতলা-আখাউড়া রেল সম্প্রসারণের জন্য চলতি বছরের এপ্রিল মাসের মধ্যে জমি আধিগ্রহণ হয়ে গেলে মে মাসে ভারতীয় অংশে কাজ শুরু হয়ে যাবে। ভারতীয় অংশে নির্মাণ কাজ করবে ভারতীয় ঠিকাদারি সংস্থা ইরকন এবং বাংলাদেশ অংশে অন্য সংস্থা। তবে বাংলাদেশ অংশে নির্মাণ কাজের পরামর্শদাতা হিসেবে থাকবে ইরকন।

আগরতলা-আখাউড়া রেল লাইন চালু হলে আগরতলা-ঢাকা-কলকাতা রেল যোগাযোগ সম্ভব বলেও জানান রাজেন গোসাই।

তিনি বলেন, আগরতলা থেকে ঢাকা হয়ে কলকাতার দূরত্ব মাত্র ৬শ’ কিমি। কিন্তু আগরতলা থেকে গৌহাটি হয়ে কলকাতার দূরত্ব দেড় হাজার কিলোমিটার। তাই এই পথে অল্প সময়ে আগরতলা থেকে ঢাকা বা কলকাতা যাওয়া সম্ভব হবে।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন- মন্ত্রীর সচিব জে বালাজি ও এনএফআর’র জি এম এইচ কে জাগ্গি।

বাংলাদেশ সময়: ১৯০৮ ঘণ্টা, মার্চ ২৩, ২০১৭
এসসিএন/জিপি/জেডএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।