ঢাকা, শুক্রবার, ৬ বৈশাখ ১৪৩১, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ০৯ শাওয়াল ১৪৪৫

আগরতলা

নিরাপদে রঙ খেলার পরামর্শ ডাক্তারদের

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩১৮ ঘণ্টা, মার্চ ১১, ২০১৭
নিরাপদে রঙ খেলার পরামর্শ ডাক্তারদের আগরতলায় হোলির জন্য রঙের পসরা। ছবি: সুদীপ

আগরতলাঃ ‘ওরে গৃহবাসী খোল দ্বার খোল, লাগলো যে দোল’. বসন্তকাল এলেই যেন রবি ঠাকুরের এই গান আকাশে বাতাসে ভেসে বেড়ায়। বসন্তের অন্যতম এক উৎসব দোল।
 

দোল খেলেন না এমন বাঙালি খুঁজে পাওয়া কঠিন। রোববার (১২ মার্চ) দোলপূর্ণিমা।

মানুষ রঙের উ‍‍ৎসবে সামিল হবেন। এর আগের দিন অর্থাৎ শনিবার (১১ মার্চ) আগরতলার মহারাজগঞ্জ বাজারে গিয়ে দেখা গেল রঙের ছড়াছড়ি। লাল, সবুজ, হলুদ, নীল আরও কতো রঙ ও কত ভিন্ন ভিন্ন দামের আবিরের পসরা সাজিয়ে বসে আছেন দোক‍ানিরা।

তবে পশ্চিমবঙ্গের সাথে ত্রিপুরা রাজ্যে রঙ খেলার কিছু মৌলিক পার্থক্য রয়েছে। পশ্চিমবঙ্গের বাঙালিরা দোলের দিন রঙ খেলেন, কিন্তু ত্রিপুরা রাজ্যের হিন্দু অংশের অধিকাংশ মানুষ দোলের দিন দেবতাকে রঙ দেন ও দোলের পর দিন অর্থা‍ৎ হোলির দিন নিজেরা রঙ খেলেন।

প্রসাধন বিশেষজ্ঞ ডা কমল দাস।  ছবি: সুদীপকথিত আছে, দোলে রঙ খেললে নানা অসুখ দূরে থাকে। তবে ডাক্তাররা বলছেন, দোলের আনন্দে সামিল হোন। তবে কিছু কিছু বিষয় যেন মাথায় থাকে রঙ খেলার সময়।

আগরতলার চর্ম ও প্রসাধন বিশেষজ্ঞ ডা কমল দাস বাংলানিউজকে বলেন, রঙ খেলার সময় চোখের যাতে কোন ক্ষতি না হয় সে দিকে খেয়াল রাখতে হবে। অনেকের আবার বিভিন্ন ধরনের রঙের অ্যালার্জি রয়েছে তাদের ওই ধরনের রঙ এডিয়ে চলা ভালো। এখন বেশীর ভাগ রঙে কেমিক্যাল থাকে, তাই এ ধরনের রঙ এড়িয়ে প্রাকৃতিক রঙ দিয়ে খেলা ভালো। কেমিকেল মেশানো রঙ স্থায়ীভাবে চর্ম রোগের সৃষ্টি করে। যতো তাড়াতাড়ি সম্ভব রঙ খেলা শেষ করে ধুয়ে ফেলতে হবে।  

বাংলাদেশ সময়: ১৮০০ ঘণ্টা, মার্চ ১১, ২০১৭
এসসিএন/ জেডএম     

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
welcome-ad
welcome-ad