ঢাকা, সোমবার, ৯ বৈশাখ ১৪৩১, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ১২ শাওয়াল ১৪৪৫

আগরতলা

কনকনে হাওয়া ও তীব্র ঠাণ্ডায় জবুথবু গোটা ত্রিপুরা

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯৫৬ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২, ২০২৪
কনকনে হাওয়া ও তীব্র ঠাণ্ডায় জবুথবু গোটা ত্রিপুরা কুয়াশাচ্ছন্ন শীতের সকাল।

আগরতলা, (ত্রিপুরা): এবার শীতের মৌসুমে ঠাণ্ডার তেমন দাপট দেখা যায়নি বলে আক্ষেপ করতে শোনা যাচ্ছিল ত্রিপুরাবাসীদের মধ্যে। কারণ ২০২৩ সালের ডিসেম্বর মাসেও দিনের আলো ফোটার পর তাপ বেশ অনুভূত হচ্ছিল।

সকাল-বিকেলেও শীতের তেমন কোনো প্রভাব লক্ষ্য করা যায়নি। তাই অনেকই হতাশা সুরে বলতে শোনা গিয়েছিল যে এবার হয়তো শীতের দাপট দেখা যাবে না। কিন্তু সাধারণ মানুষের এই ধারণাকে ভুল প্রমাণ করে ৩১ ডিসেম্বর রাত থেকে শীতের দাপট লক্ষ্য করা যায়। বছরের শেষ দিন সন্ধ্যার পর থেকেই রাজধানী আগরতলা শহর রাজ্যের অন্যান্য জায়গায় তীব্র কুয়াশা নামে। এখনো কুয়াশার এই দাপট রয়েছে।

মঙ্গলবার (২ জানুয়ারি) সকালে রাজধানী শহর ছিল কুয়াশার চাদরে মোড়া। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে কুয়াশার দাপট কিছুটা কমলেও সূর্যের দেখা মেলেনি। সূর্য ডেকে থাকার কারণে দৃশ্যমানতা নেমে এসেছে প্রায় এক কিলোমিটারের মধ্যে। সেই সঙ্গে নামছে তাপমাত্রা পারদও।  

আবহাওয়া অধিদপ্তরের দেওয়া তথ্যানুযায়ী, এদিন দিনের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রয়েছে ১৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং সর্বোচ্চ তাপমাত্রা থাকবে ২৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস।  

আবহাওয়া অধিদপ্তরের পূর্বাভাসে আরও বলা হয়েছে, সর্বনিম্ন তাপমাত্রার পারদ ১৩ ডিগ্রির ঘরে থাকা সম্ভাবনা রয়েছে আগামী সোমবার পর্যন্ত। দুই দিন আকাশ আংশিক মেঘাচ্ছন্ন থাকবে। তারপর থেকে আকাশ মেঘমুক্ত হয়ে পরিষ্কার হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। সেই সঙ্গে উত্তরে ঠাণ্ডা কনকনে হওয়ার কারণে শীতের দাপট অনেকটাই বেড়ে গেছে। সব মিলিয়ে শীতের দাপটে জবুথবু গোটা ত্রিপুরার মানুষ।  

বাংলাদেশ সময়: ১৯৫৬ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০২, ২০২৪
এসসিএন/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।