ঢাকা, সোমবার, ২ কার্তিক ১৪২৮, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

বাণিজ্যমেলা

হারবাল পণ্য মন কেড়েছে নারীদের

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১২২৭ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৩, ২০১৮
হারবাল পণ্য মন কেড়েছে নারীদের বাণিজ্য মেলায় হারবাল পণ্যে বেশি আগ্রহ নারীদের/ছবি: বাংলানিউজ

বাণিজ্য মেলা থেকে: রাজধানী শের-ই-বাংলা নগরের বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রের পাশেই চলছে ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা। মোটরসাইকেল পার্ক করেই প্রথম দিনের মতো ভিআইপি গেট দিয়েই প্রবেশ করা গেল। এক মাসব্যাপী মেলায় বলেই শুরুর দিকটায় উপচে পড়া ভিড় না থাকাটাই স্বাভাবিক। তবুও যে চিত্র দেখা গেল, তাতে মেলাটা মেলা বলেই মনে হলো।

একটু একটু করে ভেতরে দিকে এগুলে চোখে পড়ল কিছু কিছু স্টলে মানুষের বেশ ভিড়। তাদের একটি হেভেন হারবাল।

মেলার মূল প্রবেশ পথ দিয়ে ঢুকলে হাতের বাঁয়ে আসতে হবে। ভিড় দেখে ভালোই লাগল, সংবাদ তো পাওয়া যাবে। এ ভাবনা নিয়ে হেভেন হারবালের স্টলে প্রবেশ।

দেশে পৃথিবীর নানা ব্র্যান্ডের দামী সব প্রসাধনীর অন্ত নেই এখন। ক্রেতাও বেশ। বিদেশি শব্দটাই যে আকর্ষণের! চিরায়ত সত্যের মধ্যে বসবাস করেও হারবালের প্রতি মানুষের এতো আগ্রহ দেখে বিস্মিত না হয়ে পারা গেল না। এ স্টলে তরুণ তরণী থেকে শুরু করে নারীদের প্রসাধনী কিনতে দেখা গেল।

প্রচলিত প্রসাধনী যখন মাথায় চুল পড়া বন্ধ না করে, নতুন চুল জগাতে সাহায্য না করে কিংবা মুখের কালো দাগ দূর না করে তখন হারবাল পণ্যের ওপর ভরসা করাটাও বোধহয় স্বাভাবিক। অন্তত মেলায় এসে তাই মনে হলো।

হেভেন হারবাল মূলত পাঁচ ধরনের প্রসাধনী এনেছে। এগুলো হলো- খুশকি দূর করা, চুল পড়া রোধ এবং নতুন চুল গজানোর শ্যাম্পু, চুল কালো করার শ্যাম্পু, মুখের স্পট দূর করার ক্রিম, স্কিন থেরাপি এবং ফেস ওয়াশ।

নারীদের আগ্রহ দেখা খুশকি দূর করা, স্কিন থেরাপির প্রতি, দাম ধরা হয়েছে ৯শ টাকা, আর সবার আগ্রহ বিশেষ করে তরুণ-তরুণীরা নিচ্ছেন চুল পড়া রোধ এবং নতুন চুল গজানোর শ্যাম্পুর। এর দাম ধরা হয়েছে ৫শ টাকা। এছাড়া ৫শ টাকা মূল্যের ক্রিম, ৩শ টাকা মূল্যের ফেস ওয়াশ আর ১ হাজার টাকা মূল্যের চুল কালো করার শ্যাম্পুর প্রতিও অনেকে আগ্রহ লক্ষ্য করা গেছে।

আরিফা চৌধুরী নামের এক ক্রেতা বাংলানিউজকে বলেন, বাজারের অনেক প্রসাধনীই তো ব্যবহার করেছি। তেমন ফল পাইনি। তাই হারবাল প্রসাধনী ট্রাই করে দেখি।

রতি রহমান নামের এক তরুণ বলেন, চুল পড়া বন্ধ হয় না। তাই হারবাল শ্যাম্পু কিনতে এসেছি।

হেভেন হারবাল স্টলের ম্যানেজার সরফরাজ রাজ বলেন, হেভেন হারবাল সুনামের সঙ্গে মানুষের সেবা করে আসছে। চীন এবং দেশের কাঁচামাল দিয়ে যাত্রাবাড়ীতে নিজস্ব কারখানায় প্রসাধনী তৈরি করে বাজারজাত করা হয়। বাণিজ্য মেলায় এ পর্যন্ত দুই বার দ্বিতীয় স্থান অর্জনের পুরস্কার পেয়েছে হেভেন হারবাল।

বাংলাদেশ সময়: ১৮১৩ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০৩, ২০১৭
ইইউডি/এসএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa