ঢাকা, বুধবার, ৫ মাঘ ১৪২৮, ১৯ জানুয়ারি ২০২২, ১৫ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

খেলা

লাহোর হামলায় পুলিশের সমালোচনায় বিচারক

স্পোর্টস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৭৫৮ ঘণ্টা, জুলাই ৩১, ২০১০
লাহোর হামলায় পুলিশের সমালোচনায় বিচারক

লাহোর: শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট দলের ওপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় দায়িত্বপ্রাপ্ত সিনিয়র পুলিশ কর্মকর্তদের তীব্র সমালোচনা করেছেন উচ্চ আদালতের বিচারক শাব্বার রাজা রিজভি।

প্রতিবেদনে ১২জনেরও বেশি পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে দায়িত্ব পালনে অবহেলার অভিযোগ এনেছেন লাহোরের এ বিচারক।



২০০৯ সালের ৩ মার্চ দ্বিতীয় টেস্টের তৃতীয় দিন সকালে গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে যাচ্ছিলেন সফরকারী শ্রীলঙ্কা দলের ক্রিকেটাররা। স্টেডিয়ামের কাছে লিবার্টি চত্বরে পৌঁছালে সন্ত্রাসীরা বন্দুক হামলা করে। ঘটনাস্থলে মারা যান নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা পুলিশসহ আটজন।

সৌভাগ্যক্রমে লঙ্কান ক্রিকেটাররা বেঁচে যান। তবে আহত হয়েছিলেন বেশ কয়েকজন ক্রিকেটার। দারুণ সাহসিকতার পরিচয় দিয়েছিলেন বাসের ড্রাইভার মেহার মোহাম্মদ খলিল। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে দ্রুত বাসটিকে স্টেডিয়ামে নিয়ে যান।

ওই হামলার পর থেকেই পাকিস্তানে কোন আন্তর্জাতিক খেলা হয়নি। নিরপেক্ষ ভেন্যুতে খেলতে হচ্ছে আন্তর্জাতিক সিরিজ। এমনকি বিশ্বকাপের সহ-আয়োজক থেকে পাকিস্তানকে বাদ দেয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)।


এই ঘটনার তদন্ত প্রতিবেদনে বিচারক রিজভি কড়া সমালোচনা করেছেন সিনিয়র পুলিশদের। শ্রীলঙ্কান টিমের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা কমান্ডার হাজি হাবিবুর রেহমানের সম্পর্কে তিনি প্রতিবেদনে উল্লেখ করেন। “আমি আশা করেছিলাম দুর্ঘটানার সময় ঘটনাস্থলে অথবা সকাল আটটার মধ্যেই অফিসে থাকবেন হাবিবুর। দুভার্গ্যবশত ঘটনা ঘটে যাওয়ার পর সেখানে উপস্থিত হয়েছিলেন তিনি। ”

পুলিশের উপ-পরিদর্শক জেনারেল জাবেদ সালেমিরও সমালোচনা করেছেন রিজভি। বলেন,“সালেমি ডিউটির সময়েও জানতেন না কোথায় পুলিশ অফিসারদের ওপর হামলা হয়েছে। ”


এ ঘটনায় রিজভি প্রতিবেদনে উল্লেখ করেছেন। “ঘটনাস্থলে থাকলে অবশ্যই তিনি (সেলিমি) সবই জানতেন। ”

সেলিমির প্রসঙ্গে বিচারক আরো বলেন,“সেলিম আমার কাছে বিভ্রান্তিমূলক জবানবন্দী দিয়েছেন। আসলে তার সত্য বলার সাহস নেই। ”

এছাড়া পুলিশ সুপারিনটেন্ডেন্ট মোহাম্মদ আবেদের বিরুদ্ধেও দায়িত্বে অবহেলার উল্লেখ করেন প্রতিবেদনে। আবেদ দায়িত্ব পালনে পুরোপুরি ব্যর্থ হয়েছেন। কেননা হামলার সময় তিনিও উপস্থিত ছিলেন না ঘটনাস্থলে। ঘটনাস্থলের আশপাশের উচু ভবনগুলোতে নিরাপত্তাবেষ্টনী গড়ে তোলার দায়িত্ব ছিলো তারাই।

লাহোর ঘটনায় রিজভির প্রতিবেদন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের কাছে জমা দেবে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড। তবে সরকারের অনুমোদন না পাওয়ার এখানো তা আইসিসিকে জমা দেওয়া সম্ভব হয়নি।

বাংলাদেশ সময়: ১৫৩৩ ঘন্টা, জুলাই ৩১, ২০১০

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa