ঢাকা, রবিবার, ৮ কার্তিক ১৪২৮, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

খেলা

প্রতিশোধ নেওয়া হলো না পাকিস্তানের

সেকান্দার আলী, গুয়াংজু থেকে | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮১৬ ঘণ্টা, নভেম্বর ২০, ২০১০
প্রতিশোধ নেওয়া হলো না পাকিস্তানের

গুয়াংজু: ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ নিয়ে বাড়তি উত্তাপ থাকবে এটা স্বাভাবিক। খেলার আগে কথার এবং মাঠে এগিয়ে যাওয়ার লড়াই।

মোটকথা যুদ্ধের পরিবেশ তৈরি হয়। এশিয়ান গেমসের গ্রুপ ম্যাচ ব্যতিক্রম ছিলো না।

ভারত: ৩ গোল
পাকিস্তান ২ গোল
ফল: ভারত জয়ী

আগের দিন ভারতকে উসকে দিয়েছিলো পাকিস্তান। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীকে উদ্দেশ্য করে বলেছিলো ‘ভারত রক্ষণাত্মক হকি খেলে। ’ প্রতিউত্তরে কঠিন কথা বলেনি আটবারের অলিম্পিক চ্যাম্পিয়নরা। অপেক্ষায় ছিলো ময়দানী লড়াইয়ের। শনিবার ভারতের উত্তর পেয়ে গেছে পাকিস্তান।

গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে ৩-২ গোলে হেরেছে এশিয়ান গেমসে সর্বাধিক সাতবারের চ্যাম্পিয়নরা। এনিয়ে ভারতের কাছে টানা চতুর্থ পরাজয়ে মেনে নিতে হলো হ্যাট্রিক বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের।

একমাস আগেই কমনওয়েলথ গেমসে ভারতের কাছে সাত গোল (৭-৪) হজম করতে হয়েছিলো পাকিস্তানকে। ক্ষতটা আরো দগদগে হলো। গুয়াংজু এশিয়ান গেমসের সেমিফাইনাল খেলতে হলে গ্রুপের শেষ ম্যাচে জয়ের বিকল্প নেই পাকিস্তানের। অবশ্য প্রতিপক্ষের বিচারে জয় ধরে নিতে পারে পাকিস্তান। রোববার বাংলাদেশের মুখোমুখি হবে এশিয়ার অন্যতম পরাশক্তি পাকিস্তান।

অন্যদিকে পাকিস্তানের কাছ থেকে পুরো তিন পয়েন্ট তুলে নেওয়ায় সেমিফাইনালে খেলার পথে অনেকটাই এগিয়ে গেছে ভারত। রোববার জাপানের কাছ থেকে এক পয়েন্ট পেলেই শীর্ষ চারে জায়গা করে নেবে আটবারের অলিম্পিক চ্যাম্পিয়নরা।

কমনওয়েলথ গেমসের মতো শনিবারের খেলায় একচেটিয়া আধিপত্য দেখানোর সুযোগ পায়নি ভারত। বরং পাকিস্তানের খেলায় ছন্দ ছিলো। ভারত খেলেছে রক্ষণাত্মক হকি। পাল্টা আক্রমণ থেকে গোলের সুযোগ পেয়েছে। বিশেষ রক্ষণভাগ অরক্ষিত রেখে আল-আউট খেলতে চেয়েছেন সোহেল আব্বাসরা। সুযোগটা পুরোই কাজে লাগিয়েছে সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ভারত।

খেলার তৃতীয় মিনিটে পেনাল্টি কর্নার থেকে এগিয়ে যায় এশিয়ান গেমসে নয়বারের রানার্সআপ ভারত। ড্রগ এন্ড ফিকে নিশানা ভেদ করেন সন্দিপ সিং। আগে গোল খেয়ে দমে যায়নি পাকিস্তান। একমিনিটের ব্যবধানে সমতায় ফেরে। স্পিকের কারুকাজ দিয়ে প্রতিপক্ষের জালে বল পাঠান রেহান বাট।

বিরতির আগে ২-১ গোলে এগিয়ে থাকে হকির জাদুকর ধ্যানচাঁদের দেশ। দ্বিতীয় গোলটি এসেছে ধরমবীর সিংয়ের স্টিক থেকে।

গতির সঙ্গে ছন্দ রেখে খেলে ৪৩ মিনিটে গিয়ে সমতায় ফেরে দোহা এশিয়ান গেমসে তৃতীয় স্থান পাওয়া পাকিস্তান। শাকিল আব্বাস দর্শনীয় গোল এনে দেন দলকে। যদিও বেশি সময় গোল ধরে রাখতে পারেনি। পাঁচ মিনিটের ব্যবধানে ফের এগিয়ে গেছে ভারত। পেনাল্টি কর্নার থেকে এবারও গোলদাতা সন্দিপ সিং। বাকি ২২ মিনিট অনেক চেষ্টা করেও সমতায় ফেরা হয়নি পাকিস্তানের। ভারতও গোলের দেখা পায়নি। শেষদিকে একটু বেশি রক্ষণাত্মক খেলেছে রাজ পাল সিংয়ের স্কোয়াড।

অভিজ্ঞতায় সমৃদ্ধ পাকিস্তানের খেলোয়াড়রা। ২০০’র ওপরে ম্যাচ খেলেছেন অন্তত পাঁচজন। দলে সোহেল আব্বাসের মতো পেনাল্টি কর্নার বিশেষজ্ঞ থাকার পরেও পাকিস্তানের আক্রমণভাগ সুযোগ কাজে লাগাতে পারেনি। পুরো ম্যাচে একটি মাত্র পেনাল্টি কর্নার আদায় করতে পেরেছে পাকিস্তান। সমতায় ফেরার শেষ ভরসাকেও ব্যর্থ করে দিয়েছেন ভারত গোলরক্ষক ভরত কুমার।

ভারতীয় ম্যানেজার হরেন্দ্র সিং বলছিলেন,“পাকিস্তান পেপারে খেলতে চেয়েছে। আমাদেরকে খোঁচা দিয়েছে রক্ষণাত্মক খেলি বলে। শেষপর্যন্ত আমাদের পরিকল্পনাই সফল হয়েছে। পাল্টা আক্রমণ থেকে গোল বের করতে চেয়েছিলাম। ছেলেরা সুযোগ কাজে লাগাতে পেরেছে। ”

হারলেও পাকিস্তান খারাপ খেলেনি বলে বিশ্বাস সোহেল আব্দাসের। তার দৃষ্টিতে,“ফলাফল যাই হোক, দু’দলই পাল্লা দিয়ে খেলেছে। পাকিস্তান কোন অংশেই পিছিয়ে ছিলো না। ”

এ গ্রুপের প্রথম দুই ম্যাচে ভারত হংকংকে ৭-০ এবং বাংলাদেশকে ৯-০ গোলে হারিয়েছে। পাকিস্তান হংকংকে ১২-০, জাপানকে ৮-২ গোলে হেরেছে।
 
গুয়াংজু সময় ১৯৫১ ঘন্টা, নভেম্বর ২০, ২০১০

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa