ঢাকা, শনিবার, ৭ কার্তিক ১৪২৮, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

সিঙ্গাপুর

ঋণের বেড়াজালে সিঙ্গাপুরের বাসিন্দারা

আনোয়ার হোসেন, সিঙ্গাপুর করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১০২০ ঘণ্টা, নভেম্বর ১৮, ২০১৪
ঋণের বেড়াজালে সিঙ্গাপুরের বাসিন্দারা

সিঙ্গাপুর: ২৪ ঘণ্টা অনলাইনে কেনাকাটা করা, কয়েকদিনের ছুটি পেলে বিদেশে ঘুরতে যাওয়া আর দামি রেস্টুরেন্টে নতুন নতুন খাবারের স্বাদ নেয়া– এসব সিঙ্গাপুরিয়ানদের নিত্যদিনের অভ্যেস। আর এসব করতে গিয়েই বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল দেশ সিঙ্গাপুরের বাসিন্দারা ঋণের জালে আবদ্ধ হয়ে পড়ছেন।



সিঙ্গাপুরের ক্রেডিট ব্যুরোর দেয়া তথ্যে জানা যায়, এখানে পনের লক্ষেরও অধিক অধিবাসী ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করে থাকেন। অনেক ক্ষেত্রেই তারা কেনাকাটা বা বিভিন্ন বিল পরিশোধ করেন এই কার্ড দিয়ে। খরচ করার সময় চিন্তা না করলেও মাসের শেষে ক্রেডিট কার্ডের বিল পরিশোধ করতে গিয়ে তাদের বেশ সমস্যায় পড়তে হয়। প্রায়ই ব্যাংকগুলোর তাদের কাছে পাওনা থাকে। এই টাকা নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে পরিশোধ করতে না পারলে পড়তে হয় চক্রবৃদ্ধি সুদের ফাঁদে।

ক্রেডিট কাউন্সেলিং, সিঙ্গাপুর (সিসিএস) এর প্রেসিডেন্ট ক্যুও হো ন্যাম এ প্রসঙ্গে বাংলানিউজকে বলেন- ‘এখানকার মানুষ ভবিষ্যতের চিন্তা মাথায় না রেখে চোখ বন্ধ করে খরচ করে। কারণে অকারণে ব্র্যান্ডেড কাপড় আর ইলেকট্রনিক্স গেজেট কেনা, একটু সময় পেলেই দামি রেস্টুরেন্টে আর ক্লাবে যাওয়া, জুয়া খেলাসহ নানারকম অপচয় করলেও এদের অনেকেরই খরচের তুলনায় আয় অনেক কম।

খরচ সামাল দিতে বাধ্য হয়ে তারা ব্যাংক, বিভিন্ন ঋণ প্রদানকারী সংস্থা বা পরিচিত জনদের কাছ থেকে টাকা ধার করলেও অধিকাংশ ক্ষেত্রেই সেই টাকা আর ফেরত দিতে পারেন না। একসময় পুরনো ঋণ শোধ করতে নতুন জায়গা থেকে ঋণ নিতে হয়। আর এভাবেই তারা স্থায়ীভাবে ঋণের বেড়াজালে আটকে যায়।

তিনি বলেন, আমি একজন ঋণগ্রস্ত ব্যক্তিকে জিজ্ঞেস করেছিলাম, তোমার আয় যখন এত কম, তাহলে তুমি এত বিলাস বহুল জীবনযাপন কর কেন? জবাবে সে বলল- আমি এতে অভ্যস্ত হয়ে গেছি। আমার আশা আছে, একদিন আমি অনেক বেশি আয় করব আর আমার সব ঋণ শোধ করতে পারব।

দি সানডে টাইমসে প্রকাশিত রিপোর্ট অনুযায়ী, ২০১৪ সালের জুন পর্যন্ত প্রায় ৪৩ হাজার জন ঋণ খেলাপী হয়েছেন, যাদের বকেয়া ঋণের পরিমাণ তাদের পুরো বছরের আয়ের চেয়ে বেশি।

বাংলাদেশ সময়: ১০২০ ঘণ্টা, নভেম্বর ১৮, ২০১৪

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa