ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৮ মে ২০২৪, ১৯ জিলকদ ১৪৪৫

শেয়ারবাজার

তিতাসের শেয়ারের দর পতনের দায় বিইআরসি’র

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮২৬ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ৪, ২০১৬
তিতাসের শেয়ারের দর পতনের দায় বিইআরসি’র ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ঢাকা: এনার্জি রেগুলেটরী কমিশনের সিদ্ধান্তের কারণেই তিতাসসহ ৭টি সরকারি কোম্পানির শেয়ার দামে ব্যাপক দরপতন ঘটে বলে অভিযোগ করেছেন শেয়ার ব্যবসায়ীরা।

বৃহস্পতিবার (৪ ফেব্রুয়ারি) এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করে ডিএসই ব্রোকার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ডিবিএ)।



শেয়ার বাজারের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে বৃহস্পতিবার দুপুরে ডিএসই মেম্বার্স ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ডিবিএ সভাপতি আহসানুল ইসলাম টিটু।

এ সময় তিনি বলেন, সরকার পুঁজিবাজারের উন্নয়নের জন্য অনেক উদ্যোগ নিয়েছে। কিন্তু এখনও তার কাঙ্ক্ষিত  ফল পাওয়া যায়নি।

সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনটির পক্ষ থেকে দাবি করা হয়, ১৯৯৬ ও ২০১০ সালে পুঁজিবাজার ধসের বিষয়ে তদন্ত রিপোর্ট তথ্য ভিত্তিক নয়। আইনের কোন বিষয় লংঘন হয়েছে তা নিয়েও রিপোর্টে সুনির্দিষ্ট কোন তথ্য পাওয়া যায়নি।

পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা এসইসি সম্পর্কে সংগঠনটির পক্ষ থেকে বলা হয়, ভাল কোম্পানির আইপিও বাজারে আনার ক্ষেত্রে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা শুধু একটি পোস্টঅফিস মাত্র। মার্চেন্ট ব্যাংক ও ইস্যু-ম্যানেজারকে এ দায়িত্ব নিতে হবে। কোম্পানির সকল তথ্য যাচাই-বাছাই করার দায়িত্ব তাদের। মার্চেন্ট ব্যাংক ও ইস্যু ম্যানেজারকে আরো দায়িত্ববোধ সম্পন্ন হতে হবে বলেও ডিবিএ সভাপতি উল্লেখ করেন।

এ সময় দাবি করা হয়, সরকার, বিএসইসি এবং স্টক এক্সচেঞ্জ এর প্রচেষ্টায় বাজার যখন স্থিতিশীল হতে যাচ্ছিল, তখনই ২০১৫ সালের আগস্ট মাসে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের সিদ্ধান্তের কারণে তিতাসের শেয়ারের দামে ব্যাপক দরপতন হয়। যার নেতিবাচক প্রভাব সমগ্র বাজারের উপর পরে।

এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের এই ট্যারিফ সিদ্ধান্তের কারণেই ৭টি সরকারি কোম্পানির শেয়ার দামে ব্যাপক দরপতন ঘটে। যার প্রভাবে বিনিয়োগকারীরা বাজার সর্ম্পকে আস্থাহীন ও পুঁজিহীন হয় বলে দাবি করেন আহসানুল ইসলাম।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন- মোস্তাক আহমেদ সাদেক, মিনহাজ মান্নান ইমন, শাহেদ আব্দুল খালেক, খুজিস্তা নুর-ই নাহরিন প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ১৮২৭ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ০৪, ২০১৬
এফবি/আরআই

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।