ঢাকা, সোমবার, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৭ মে ২০২৪, ১৮ জিলকদ ১৪৪৫

শেয়ারবাজার

ডিএসই'র নতুন সফটওয়্যারে শঙ্কা নেই

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪০৭ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১০, ২০১৪
ডিএসই'র নতুন সফটওয়্যারে শঙ্কা নেই ছবি : নাজমুল হাসান/বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ঢাকা: ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) বৃহস্পতিবার (১১ ডিসেম্বর) যে নতুন সফটওয়্যার চালু করা হবে তাতে কোনো শঙ্কা থাকবে না বলে জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) স্বপন কুমার বালা।

বুধবার (১০ ডিসেম্বর) ডিএসই’র নতুন স্বয়ংক্রিয় লেনদেন ব্যবস্থার (অটোমেশন ট্রেডিং সিস্টেম) আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন পূর্ব সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।



তিনি বলেন, ‘আমরা যথাযথ পরীক্ষা-নিরীক্ষার মাধ্যমে এটি চালু করতে যাচ্ছি। সিস্টেমটি চালুর জন্য বিভিন্ন ব্রোকার হাউজকে যথাযথ প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে। এটা চালু হলে কোনো শঙ্কা থাকবে বলে আমি মনে করি না। ’

স্বপন কুমার বালা জানান, ১১ ডিসেম্বর সকাল সাড়ে ৯টায় রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁ হোটেলে সিস্টেমটি উদ্বোধন করা হবে।

এ সফটওয়্যার উদ্বোধন করবেন অর্থ প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান এমপি। এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. এম খায়রুল হোসেন।

ডিএসইর ব্যবস্থাপনা পরিচালক বলেন, নতুন এ সফটওয়্যারে লট প্রথার অবসান হচ্ছে।   ফলে যে কোনো সংখ্যক শেয়ার লেনদেন করা যাবে।

লট সাইজ ভেঙ্গে দিয়ে হাওলা চার্জের মাধ্যমে ডিএসইকে লাভজনক করতেই এ প্রক্রিয়ায় লেনদেন চালু করা হচ্ছে কী না? সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এখানে লট সাইজ থাকবে না ঠিক আছে। তবে প্রতিটি লেনদেনের ক্ষেত্রে হাওলা চার্জের বিষয়টি নিয়ে আলোচনার পর সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। আগামী ১১, ১৪ ও ১৫ তারিখের লেনদেন দেখার পর বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) সঙ্গে কথা বলে সিদ্ধান্ত নেব। প্রয়োজনে হাওলা চার্জ তুলে দেওয়া হবে।

তিনি আরও বলেন, কয়েকটি পর্যায়ে এ সফটওয়্যার পূর্ণাঙ্গভাবে চালু করা হবে। বৃহস্পতিবার প্রথম পর্যায়ের কার্যক্রম চালু করা হবে।   এ পদ্ধতি বাস্তবায়নের জন্য ৩৫ কোটি টাকা খরচ হয়েছে।

স্বপন কুমার বালা বলেন, নতুন স্বয়ংক্রিয় লেনদেন ব্যবস্থা চালুর লক্ষ্যে গত ২৪ নভেম্বর থেকে ডিএসইর ব্রোকারেজ হাউসগুলোর প্রায় ৪০০টি ট্রেডিং ওয়ার্ক স্টেশন থেকে একযোগে পরীক্ষামূলক লেনদেন (মক ট্রেডিং) করা হয়। পরীক্ষামূলক লেনদেনে যেসব ত্রুটি-বিচ্যুতি ধরা পড়ে তা তাৎক্ষণিকভাবে সমাধান করা হয়।

এর আগে চলতি বছরের ২১ মার্চ অটোমেটেড ট্রেডিং প্লাটফর্ম চালুর জন্য নাসডাক ওএমএক্স ও ফ্লেক্সট্রেড সিস্টেমসের সঙ্গে চুক্তি সই করে ডিএসই। ফলে নয় মাসের মধ্যে আধুনিক প্রযুক্তির অটোমেটেড ট্রেডিং প্লাটফর্ম চালু করতে যাচ্ছে ডিএসই।

নতুন স্বয়ংক্রিয় লেনদেন ব্যবস্থার মধ্যে নাসডাক ওএমএক্স সরবরাহ করছে ম্যাচিং ইঞ্জিন ও ফ্লেক্সট্রেড সরবরাহ করছে অর্ডার ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম (ওএমএস)।

নতুন অটোমেটেড ট্রেডিং প্লাটফর্ম সম্পর্কে ডিএসই স্টেকহোল্ডার প্রতিনিধি, সব ব্রোকিং হাউজের সব অনুমোদিত প্রতিনিধি, আইটি বিভাগের প্রধান এবং ক্রেডিট অ্যাডমিনিস্ট্রেটরদের ধারণা দিতে গত ৪ সেপ্টেম্বর প্রশিক্ষণ কর্মশালা করে ডিএসই। যা তিন মাসব্যাপী পর্যায়ক্রমে চলে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, ডিএসইর পরিচালক শাকিল রিজভী, মো. শাহজাহান, খাজা গোলাম রসুল ও শরীফ আনোয়ার হোসেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৪০৮ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১০, ২০১৪

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।